আট মিনিটের জাদুতে বড় জয়ে শুরু চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালের

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:১৪ এএম, ১৬ জুন ২০২১ | আপডেট: ১২:৩৭ এএম, ১৬ জুন ২০২১

বিরতির বাঁশি বাজার বাকি তখন দুই মিনিট। হাঙ্গেরির গোল মুখে সহজতম সুযোগ পেয়েছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। গোল লাইনের খুব কাছ থেকেও বারের ওপর দিয়ে মেরে বসেন পর্তুগালের সবচেয়ে বড় এই তারকা। মনে হচ্ছিল, রোনালদোর এই ভুলের মাশুল দিয়ে হয়তো জয়বঞ্চিত থাকতে হবে পর্তুগালকে।

তবে দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের একদম শেষ দিকে সব হিসেব বদলে দিয়েছে ইউরো কাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল। মাত্র আট মিনিটের ব্যবধানে তিন গোল করে বড় জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে তারা। যেখানে অধিনায়ক রোনালদো একাই করেছেন জোড়া গোল। অন্যটি এসেছে রাফায়েল গুররেইরোর পা থেকে।

এ জোড়া গোলের মাধ্যমে ইউরো কাপের ইতিহাসে এখন সর্বোচ্চ গোল রোনালদোর। মিশেল প্লাতিনিকে পেছনে ফেলে টুর্নামেন্টের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ১০+ গোলের মালিক হলেন তিনি। এছাড়া আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলের আরও কাছে পৌঁছে গেছেন রোনালদো।

হাঙ্গেরির মাঠে ম্যাচটিতে পুরো সময়ই আধিপত্য ছিল পর্তুগালের। একের পর এক সুযোগও তৈরি করেছে তারা। কিন্তু প্রথমার্ধে গোলের তালা ভাঙতে পারেনি। বলা ভালো প্রথম ৮০ মিনিটেই কোনো গোল করতে পারেনি পর্তুগিজরা। অন্যদিকে স্বাগতিকরাও পারেনি পর্তুগালের রক্ষণে ভয় ধরাতে।

ম্যাচের ৪৩ মিনিটের সময় বাম পাশ থেকে দুর্দান্ত ক্রস বাড়ান ডিয়েগো জোতা। বক্সের ভেতরে থাকা ব্রুনো ফার্নান্দেস সেটিতে পা ছোঁয়াতে পারেননি, বল চলে যায় ফাঁকায় থাকা রোনালদোর সামনে। কেবল ঠিকঠাক পা লাগালেই হয়ে যেত গোল। কিন্তু সেটি বারের অনেক ওপর দিয়ে মারেন রোনালদো।

ফলে গোলশূন্যই কাটে প্রথমার্ধ। দ্বিতীয়ার্ধে ফিরেও আক্রমণের ধার বজায় রাখে ইউরোর বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু গোল মিলছিল না কিছুতেই। উল্টো ৮০ মিনিটের দিকে ম্যাচের প্রথম গোলটি করে বসে হাঙ্গেরি। তবে সেই আক্রমণটি মাঝ মাঠে থাকতেই অফসাইড হওয়ায় বাতিল করে দেয়া হয় গোল।

এরপরই শুরু হয় পর্তুগালের জাদু। প্রথম গোলটি তারা করে ৮৪ মিনিটে গিয়ে। রাফা সিলভার ক্রস এক খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে চলে যায় গুররেইরোর পায়ে। তিনি গোলের উদ্দেশে শট নিলে সেটি অরবানের গায়ে লেগে জড়িয়ে যায় জালে, লিড পেয়ে যায় পর্তুগাল।

ব্যবধান বাড়াতে দুই মিনিটও লাগেনি তাদের। এ গোলেও অবদান রাফা সিলভার। ব্রুনোর বাড়ানো বল ধরে জোরালো আক্রমণের সম্ভাবনা জাগান রাফা। কিন্তু তাকে পেছন থেকে ফেলে দেন অরবান। পেনাল্টি পায় পর্তুগাল। স্পটকিকে নিজের প্রথম গোল করেন রোনালদো।

এ গোলের মাধ্যমে ইউরো কাপের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ১০ গোলের মালিক হন রোনালদো। তিনি পেছনে ফেলে দেন মিশেল প্লাতিনিকে। পরে অতিরিক্ত যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে রাফা সিলভার এগিয়ে দেয়া বলে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন পর্তুগিজ অধিনায়ক। জাতীয় দলের হয়ে এটি তার ১০৬তম গোল।

বড় জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করলেও, ‘এফ’ গ্রুপে নিজেদের বাকি দুই ম্যাচে কঠিন পরীক্ষার মুখে পড়তে হবে পর্তুগালকে। আগামী শনিবার (১৯ জুন) তিনবারের ইউরো চ্যাম্পিয়ন জার্মানির মুখোমুখি হবে তারা। আর গ্রুপের শেষ ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স।

এসএএস/জেডএইচ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]