বাংলাদেশের সঙ্গে প্রীতি ম্যাচ খেলতে চায় মঙ্গোলিয়া-নেপাল

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১০:০৮ পিএম, ০২ আগস্ট ২০২১

সেপ্টেম্বরের ফিফা উইন্ডোতে সিলেটে হওয়ার কথা ছিল সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। করোনা ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন স্বাগতিক না হওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় এই ফুটবল টুর্নামেন্টে পিছিয়ে চলে যায় অক্টোবরে। তাই ৩০ আগস্ট ৭ সেপ্টেম্বরের উইন্ডোতে দুটি ফিফা ফ্রেন্ডলি খেলতে ১৪ দেশকে প্রস্তাব দিয়েছে বাফুফে।

সেপ্টেম্বরের উইন্ডোতে ফিফা ফ্রেন্ডলি খেলতে বাংলাদেশ থেকে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে আফগানিস্তান, ভারত, শ্রীলংকা, মালদ্বীপ, নেপাল, ভুটান, লাওস, মঙ্গোলিয়া, কম্বোডিয়া, ইন্দোনেশিয়া, চাইনিজ তাইপে, ম্যাকাও, গুয়াম ও তিমুর লেস্তেকে।

২৩ জুন চিঠি দেয়া হলেও সোমবার পর্যন্ত কোনো দেশ সেপ্টেম্বরে খেলতে সাড়া দেয়নি। তবে এ দেশগুলোর মধ্যে নেপাল ও মঙ্গোলিয়া বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ খেলতে চাচ্ছে নভেম্বরের উইন্ডোতে। নেপাল তাদের দেশে গিয়ে দুটি ম্যাচ খেলার প্রস্তাব দিয়েছে বাফুফেকে, মঙ্গোলিয়া চেয়েছে বাংলাদেশে আসতে।

মঙ্গোলিয়া প্রথমে সেপ্টেম্বরের পরিবর্তে অক্টোবরে ম্যাচ খেলতে চেয়েছিল। তবে ৪ থেকে ১২ অক্টোবরের উইন্ডোতে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হবে বলে ওই সময়ে কোনো সুযোগ নেই। বাফুফে মঙ্গোলিয়াকে নভেম্বরে খেলার কথা বলেছে।

নেপাল নভেম্বরে বাংলাদেশের বিপক্ষে দুটি ম্যাচ খেলতে করতে চায় কাঠমান্ডুতে। বাফুফে এখন দুই দেশের একটিকে বেছে নেবে ৭ থেকে ১৬ নভেম্বরের উইন্ডোর জন্য।

কোন দেশকে বাফুফে পছন্দ করবে সেটা এখনো ঠিক করেনি। তবে বাফুফে মঙ্গোলিয়ার দিকেই একটু আগ্রহ বেশি। কারণ, নেপালের সঙ্গে এমনিতেই অনেক ম্যাচ খেলা হয়ে থাকে। সে তুলনায় অনেক কম ম্যাচ খেলা হয় মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে। ২০২১ সালে বিশ^কাপ বাছাইয়ের দুটি ম্যাচ খেলার পর মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে আর দেখা হয়নি লাল-সবুজ জার্সিধারীদের।

আরআই/আইএইচএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]