একমাত্র দল হিসেবে যে রেকর্ডের মালিক এখন ব্রাজিল

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:১৪ পিএম, ০৩ আগস্ট ২০২১

বিশ্বকাপ ফুটবলে সর্বোচ্চ পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন হলেও অলিম্পিক ফুটবলে স্বর্ণ পদকটা যেন সোনার হরিণই ছিল ব্রাজিলিয়ানদের জন্য। ১৯৮৪ এবং ১৯৮৮ - টানা দুটি অলিম্পিক ফুটবলের ফাইনালে খেললেও সোনার পদকটা জিততে পারেনি তারা। এরপর ২০১২ সালেও লন্ডন অলিম্পিকের ফাইনালে খেলেছিল ব্রাজিলিয়ানরা। কিন্তু নেইমারদের কাঁদিয়ে সেবার সোনার মুকুটটা পরে নেয় মেক্সিকো।

চার বছর পর, ২০১৬ সালে রিও অলিম্পিকে অবশেষে সেই সোনার হরিণ হয়ে যাওয়া মুকুটটা প্রথমবারের মত অর্জন করতে সক্ষম হলো সেলেসাওরা। মারাকানা স্টেডিয়ামে জার্মানিকে টাইব্রেকারে হারিয়ে প্রথমবার অলিম্পিক স্বর্ণ জিতলো তারা।

রিওতে জেতা সেই স্বর্ণ ধরে রাখার লক্ষ্য নিয়ে টোকিও এসেছে ব্রাজিল। দানি আলভেজের নেতৃত্বাধীন দলটিতে রয়েছেন সর্বশেষ কোপায় খেলা একমাত্র ফুটবলার রিচার্লিসন। এবারও সহজেই ফাইনালে পৌঁছে গেলো আলভেজ অ্যান্ড কোং।

মঙ্গলবার যদিও সেমিফাইনালে টাইব্রেকার পর্যন্ত যেতে হয়েছিল ব্রাজিলকে। কিন্তু টাইব্রেকারে তাদের মানসিক দৃঢ়তার সামনে আর পেরে ওঠেনি মেক্সিকো। ৪-১ গোলে হারিয়ে টানা তৃতীয়বারের মত ফাইনালে উঠে গেলো ব্রাজিলিয়ানরা। ২০১২, ২০১৬ সালের পর ২০২১ - টানা তিন অলিম্পিক ফুটবলের ফাইনালে সেলেসাওরা।

সে সঙ্গে একটি বিরল রেকর্ডও গড়ে ফেললো তারা। যে রেকর্ডটা আর কারো নেই। একমাত্র দল হিসেবে বিশ্বকাপ এবং অলিম্পিক- এই দুই আসরেই টানা তিনবার ফাইনাল খেলছে ব্রাজিলিয়ানরা। বিশ্বকাপ ফুটবলে ১৯৯৪, ১৯৯৮ এবং ২০০২ সালে ফাইনাল খেলেছিল তারা।

এরমধ্যে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছে দু’বার। শেষবার এই জাপান থেকেই বিশ্বকাপ শিরোপার স্বাদ পেয়েছিল রোনালদো-রোনালদিনহোরা। এবার টানা তৃতীয়বারের মত অলিম্পিক ফাইনালে উঠে সেই জাপান থেকে কী সোনার পদকটা আবারও গলায় ঝুলাতে পারবে দানি আলভেজ-রিচার্লিসনরা?

কবে ফিফা বিশ্বকাপে ব্রাজিলের আগেই টানা তিনবার ফাইনাল খেলার গৌরব অর্জন করেছিল পশ্চিম জার্মানি। ১৯৮২, ১৯৮৬, ১৯৯০ সালে। আর অলিম্পিকে সবার আগে টানা তিনবার ফাইনাল খেলেছিল যুগোস্লাভিয়া। ১৯৪৮, ১৯৫২ এবং ১৯৫৬ সালে। তবে, একসঙ্গে বিশ্বকাপ এবং অলিম্পিক - এই দুই আসরে টানা তিনবার ফাইনাল খেলার রেকর্ড ব্রাজিল ছাড়া আর কারো নেই।

আইএইচএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]