৬০ বছর বয়সে খেলতে নেমে গেলেন সুরিনামের ভাইস প্রেসিডেন্ট

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:২৮ এএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

মঙ্গলবার অনন্য ঘটনার জন্ম দিলেন সুরিনামের ৬০ বছর বয়সী ভাইস প্রেসিডেন্ট রনি ব্রুন্সউইক। নিজের মালিকানাধীন ফুটবল ক্লাবের হয়ে খেলতে নেমে যান তিনি। তবে জয়ীর বেশে মাঠ ছাড়তে পারেননি।

দক্ষিণ আমেরিকার ছোট্ট দেশ সুরিনাম। সেই দেশের একসময়কার বিদ্রোহী নেতা ছিলেন ব্রুন্সউইক। খেলাধুলার প্রতি ঝোঁকের কারণে কিনে নেন ইন্টার মোয়েনগোতাপোই ক্লাবটি। সেই ক্লাবের হয়েই ৬১ নম্বর জার্সি পরে ৬০ বছর বয়সে মাঠে নেমেছেন তিনি।

হন্ডুরাসের ক্লাব অলিম্পিয়ার বিপক্ষে কনকাকাফ লিগের ম্যাচটিতে জয় দূরে থাক, রীতিমতো উড়েই যেতে হয়েছে ব্রুন্সউইকের দলকে। তারা হেরে গেছে ৬-০ গোলের বড় ব্যবধানে। এই ক্লাবের অধিনায়ক এবং প্রেসিডেন্ট- উভয়ই একজন, রনি ব্রুন্সউইক।

শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচটিতে শুরু থেকেই খেলেছেন ব্রুন্সউইক। তবে পুরো ম্যাচ শেষ করতে পারেননি। তাকে তুলে নেয়া হয় ৫৪ মিনিটের সময়। ততক্ষণে ০-৩ গোলে পিছিয়ে তার দল। পরে আরও ৩ গোল হজম করে ইন্টার মোয়েনগোতাপোই।

দল হারলেও কনকাকাফ লিগের সবচেয়ে বয়স্ক খেলোয়াড় হওয়ার রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন ব্রুন্সউইক। আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর হন্ডুরাসের মাঠে দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই দল। কিন্তু সেটিতে খেলতে পারবেন না ব্রুন্সউইক। কারণ আপাতত দেশের বাইরে যেতে পারবেন না তিনি।

jagonews24

২০২০ সালের জুলাইয়ে সুরিনামের ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন ব্রুন্সউইক। এর আগে আশির দশকে বিদ্রোহী যোদ্ধা হিসেবে সুরিনামিজ লিবারেশন আর্মি গঠন করেছিলেন তিনি। তবে জঙ্গল কমান্ডো হিসেবেই বেশি পরিচিতি ছিলো ব্রুন্সউইকের দলের।

১৯৮৬ থেকে ১৯৯২ পর্যন্ত চলা গৃহযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ ছিলো তার। এরপর থেকে এখনও পর্যন্ত রাজনীতিবিদ হয়ে আছেন তিনি। গেরিলা যোদ্ধা ছাড়াও ড্রাগ ডিলার এবং গোল্ড ম্যাগনেট হিসেবেও পরিচিতি ছিলো তার। ১৯৯৯ সালে নেদারল্যান্ডস সরকার কর্তৃক বিচারের সম্মুখীনও হয়েছিলেন তিনি।

পরে ২০০২ সালে ইন্টার মোয়েনগোতাপোইয়ের স্টেডিয়াম বানিয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতিতে ক্লাবে খেলোয়াড় কাম মালিক হয়ে যান ব্রুন্সউইক। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক নিজের নামেই ক্লাবের স্টেডিয়াম নির্মাণ করেন তিনি।

খেলোয়াড় হিসেবে বেশ কিছু নেতিবাচক ঘটনার জন্ম দিয়েছেন তিনি। ২০০৫ সালে ম্যাচ চলাকালীন সময়ে এক খেলোয়াড়কে অস্ত্র দেখিয়ে হুমকি দেন তিনি। এর সাত বছর পর রেফারিকে গালিগালাজ করেও নিষিদ্ধ হন কনকাকাফ লিগে সবচেয়ে বয়স্ক এই ফুটবলার।

এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]