বন্যার্তদের জন্য এক কিশোরী ফুটবলারের মহৎ উদ্যোগ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৫৫ পিএম, ২২ জুন ২০২২

অডিও শুনুন

দুপুরে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়া ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে বাফুফের নারী ফুটবল কমিটির চেয়ারপার্সন মাহফুজা আক্তার কিরণ ঘোষণা করেছে মেয়েদের ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচ দুটির টিকিট বিক্রি থেকে যে টাকা হবে তা প্রদান করা হবে সিলেটের বন্যাদূর্গতের সাহায্যে।

সন্ধ্যায় দেশের এক কিশোরী ফুটবলার শাহেদা আক্তার রিপা ঘোষণা দিয়েছে, সিলেটের বন্যার্তদের সাহায্যের জন্য তিনি নিলামে তুলতে চান তার জেতা সর্বোচ্চ গোলদাতার একটি ট্রফি।

গত বছর ডিসেম্বরে ঢাকায় অনুষ্ঠিত সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ভারতকে হারিয়ে। ওই টুর্নামেন্টে ৫ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতার ট্রফি জিতেছিলেন শাহেদা আক্তার রিপা। সেই ট্রফিটিই তিনি এখন নিলামে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন।

এ বিষয়ে রিপার বড় ভাই ফারুক হোসাইন বুধবার রাতে কক্সবাজার থেকে বলেছেন, ‘গতকাল সন্ধ্যায় রিপার সঙ্গে আমার কথা বলার সুযোগ হয়েছিল। ওর সঙ্গে সিলেটের বন্যা নিয়ে কথা হচ্ছিলো। ও তখন ট্রফি নিলামে উঠাতে চাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করে। আমিও তাকে উৎসাহিত করেছি। এরপর আমি বাবাকে বলেছি, তিনি না করেননি। এরপর ফেসবুক পেজের মাধ্যমে জানিয়েছি। তবে এখনও সেভাবে সাড়া পাইনি।’

নিজের ফেসবুক পেইজে দেয়া স্ট্যাটাসে শাহেদা আক্তার রিপা লিখেছেন, ‘আমি বাংলাদেশ মহিলা অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল টিমের একজন সদস্য। সিলেটে বন্যার্তদের পাশে দাঁড়াতে আমি ছোট্ট একটি উদ্যোগ নিয়েছি। আমার ছোট্ট ক্যারিয়ারে সবচেয়ে যেটা বড় পাওয়া, ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপ টুর্নামেন্টে আমরা চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলাম। ওই টুর্নামেন্ট-এ আমি সর্বোচ্চ গোলদাতা (৫ গোল) হয়েছিলাম। আমি ৩ ম্যাচে সেরা খেলোয়াড়ও হয়েছিলাম।’

‘সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে পাওয়া ট্রফিটি আমি নিলামে তুলতে চাই। যার সম্পূর্ণ অর্থ ব্যয় হবে সিলেটের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের জন্য। কোনো দয়াবান ব্যাক্তি যদি এই মহৎ কাজের অংশীদার হন তাহলে আমরা কিছুটা হলেও বন্যার্ত মানুষের পাশে থাকত পারবো।’

‘আমার এই ট্রফিটা আমার বাড়িতে শো-কেসে রাখা আছে, হয়তো সারাজীবন থাকবে; কিন্তু কোনো মানুষের কাজে আসবে না। এই মূহূর্তে সিলেটের সবচেয়ে বেশি যেটা দরকার সেটা হল সবার সহযোগিতা। আমি যদি সিলেটের পাশে একটু হলেও দাঁড়াতে পারি তাহলে আপনাদের সবার প্রতি চির কৃতজ্ঞ থাকব।'

আরআই/আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]