রাসেলকে হারিয়ে শিরোপার দিকে আরেক পা কিংসের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:০৫ পিএম, ২৬ জুন ২০২২

জিতেই চলেছে বসুন্ধরা কিংস। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে কোনো দলই চ্যাম্পিয়নদের সামনে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারছে না। রোববার কিংসের ভেন্যুতে রাসেল হেরেছে ৩-২ গোলে। শুরুতে পিছিয়ে পড়েও বসুন্ধরা কিংস পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছেড়েছে।

ধারার বিপরীতে পিছিয়ে পড়েছিল বসুন্ধরা কিংস। তবে প্রথমার্ধেই ব্রাজিলিয়ান মিগুয়েইল ফেরেইরার অসাধারণ গোলে ম্যাচে ফেরে কিংস।

বিরতির পর খালেদ শাফেইয়ের গোলে লিড নেয় চ্যাম্পিয়নরা। সব শঙ্কা উড়িয়ে প্রিমিয়ার লিগে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রকে হারিয়ে শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে এড়িয়ে গেলো বসুন্ধরা।

এই জয়ে ১৭ ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই আছে কিংস, সমান ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট পাওয়া রাসেলের অবস্থান অষ্টম।

প্রথম লেগে শেখ রাসেলকে ১-০ গোলে হারিয়েছিল বসুন্ধরা। ফিরতি ম্যাচে ঠিক চেনারুপে দেখা যায়নি বসুন্ধরাকে। বিশেষ করে আক্রমণভাগের খেলোয়াড়রা পারেননি নিজেদের মেলে ধরতে। বিপলু আহমেদ ও ব্রাজিলিয়ান রবসন রবিনহো গোল মিস করেছেন। সুযোগগুলো নষ্ট না করলে জয়ের ব্যবধানটা আরও বড় হতে পারতো।

২৮ মিনিটে লিড নেয় জুলফিকার মাহমুদ মিন্টুর দল। বল নিয়ে ঢুকে পড়ার সময় বক্সের মধ্যে আকিনাদকে ফেলে দেন বিশ্বনাথ ঘোষ। রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজালে, মানতে না পারা রাসেলের খেলোয়াড়রা প্রতিবাদ করতে থাকেন। স্পট কিক থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন নেন আইজার আকমোতভ।

রাসেলের এগিয়ে যাওয়ার আনন্দ প্রথমার্ধেই মিইয়ে যায়। ম্যাচের ৩৮ মিনিটে বাঁ প্রান্ত দিয়ে বক্সের মধ্যে ঢুকে পড়েন রবসন। একজনকে কাটিয়ে জায়গা বানিয়ে মাইনাস করেন। চলতি বলে দারুণ শটে গোল করেন মিগুয়েল ফেরেইরা।

৬৫ মিনিটে লিড নেয় বসুন্ধরা। ডান প্রান্ত থেকে মিগুয়েল ফেরেইরার সেট পিসে রাসেল গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা ঠিকমতো ফেরাতে পারেননি। সামনে বল পান খালেদ শাফিইয়ে। ঠান্ডা মাথায় বল জালে জড়ান ইরানি এ ডিফেন্ডার।

নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার পাঁচ মিনিট আগে রবসন গোল করলে অনিশ্চয়তা কাটে। তবে ম্যাচের যোগ করা সময়ে বদলি মান্নাফ রাব্বির গোলে জমে ওঠে ম্যাচটি। একটু পর রেফারির শেষ বাঁশি বাজতে জয়ের আনন্দে মেতে ওঠেন রবসনরা।

আরআই/এমএমআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]