আবাহনীর জালে সাইফের চার গোল

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:৪৩ পিএম, ০৩ জুলাই ২০২২

বসুন্ধরা কিংসকে রুখে দিয়ে চব্বিশ ঘণ্টা আগে আবাহনীর মুখে হাসি ফুটিয়েছিল মোহামেডান; কিন্তু সেই হাসি চব্বিশ ঘণ্টার বেশি আর স্থায়ী হলো না আবাহনীর। যে ম্যাচটা জিতলে কিংসের সঙ্গে দূরত্ব আরো কমিয়ে আনতে পারতো ৬ বারের চ্যাম্পিয়নরা, সেই ম্যাচে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের কাছে তারা হারলো এবং সে হারটা বাজেভাবে।

রোববার মুন্সিগঞ্জে আবাহনীকে ৪-২ গোলে হারিয়ে রানার্সআপ হওয়ার দৌড়ে ভালোভাবেই ফিরে এসেছে সাইফ। সামনে থাকা আবাহনীর চেয়ে তারা এখন পিছিয়ে ৫ পয়েন্টে।

আবাহনী কেবল ম্যাচটিই হারেনি, ম্যাচের সঙ্গে হারিয়েছে শিরোপা লড়াইয়ে টিকে থাকার সুযোগ ও সম্মানও। কারণ, চার চারটি গোল তারা হজম করেছে। চলতি মৌসুমে আবাহনীর জালে এত গোল এর আগে হয়নি। এই হারটা কিংসের সঙ্গে আবাহনীর দূরত্ব তৈরি করে দিলো ৭ পয়েন্টের।

কিংস যদি পরের দুই ম্যাচ জিতে তাহলেই হ্যাটট্রিক শিরোপা জেতা হয়ে যাবে তদেরা। তখন আবাহনী বাকি সব ম্যাচ জিতলেও লাভ হবে না। ট্রেবল জয়ের যে লক্ষ্য ছিল আবাহনীর তা এই ম্যাচের পর প্রায় শেষ। লিগ শিরোপা জয়ের আশাটা এখন ছেড়ে দিতেই পারে মারিও লেমসের দল।

৪-২ গোলে হেরেছে আকাশী-নীলরা। যদি হারের ব্যবধান ৭-২ হতো তাতেও অবাক হওয়ার ছিল না। এই ম্যাচে আবাহনীকে মনে হয়েছে তাদের ছায়া। পুরোটা সময় তারা সাইফের আক্রমণ ঠেকিয়েছে। এই জায়গায় বড় কৃতিত্ব দেওয়া যেতে পারে আবাহনীর গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেলকে। তিনি গোটা চারেক নিশ্চিত গোল খাওয়া থেকে বাঁচিয়েছেন দলকে।

১৪ মিনিটে নাইজেরিয়ান এমফন উদোহ’র গোলে এগিয়ে যায় সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। ৩৪ মিনিটে কলিন্দ্রেসের কর্নার থেকে দর্শনীয় গোল করে আবাহনীকে ম্যাচে ফেরান ব্রাজিলের ডরিয়েলটন। ৪০ মিনিটে সবুজ হোসেনের গোলে দ্বিতীয়বার লিড নেয় ক্রুসিয়ানির দল।

৬৫ মিনিটে মো. রহিম উদ্দিন গোল করলে ৩-১ গোলে এগিয়ে যায় সাইফ। ৭১ মিনিটে পেনাল্টি পায় সাইফ। এমেকার গোল সাইফের জয় প্রায় নিশ্চিত করে দেয়। ইনজুরি সময় আবাহনী পেনাল্টি পেলে কলিন্দ্রেস গোল করে ব্যবধান কমিয়েছেন মাত্র।

১৮ ম্যাচ শেষে আবাহনী ৩৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে। তাদের চেয়ে ৭ পয়েন্ট বেশি নিয়ে শীর্ষে বসুন্ধরা কিংস। সাইফ এই জয়ে সমান ম্যাচে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তৃতীয় স্থানে।

আরআই/আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]