নেইমারকে বিশ্বকাপ থেকে সরিয়ে দিতে চায় তারা: অভিযোগ ব্রাজিল কোচের

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৩৭ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

তিউনিসিয়ার বিপক্ষে বিশ্বকাপের আগে শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে ব্রাজিল প্রত্যাশিত এবং দর্শণীয় একটি জয়ই পেয়েছে। আফ্রিকান প্রতিদ্বন্দ্বীকে ৫-১ গোলের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে ৫ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

ম্যাচটি ছিল ফিফা ফ্রেন্ডলি। তবে প্যারিসের পার্ক ডি প্রিন্সেসে তিউনিসিয়া ব্রাজিলের বিপক্ষে ম্যাচটিকে ফ্রেন্ডলি হিসেবে নিতে পারেনি সম্ভবত। মাঠে নামার পর ব্রাজিল খুব কঠিন এক প্রতিদ্বন্দ্বী পরিবেশের মধ্যে পড়ে যায়। চিত্র বলে দিচ্ছিল যেন ম্যাচটি কোনো টুর্নামেন্টের। তিউনিসিয়া এত বেশি সিরিয়াস হয়ে গিয়েছিল যে, ব্রাজিলও বাধ্য হয়েছিল সিরিয়াস হয়ে খেলতে এবং ম্যাচজুড়ে দুই দল এত বেশি ফাউল করেছে যে তা ছিল অবিশ্বাস্য।

শুধু মাঠেই নয়, গ্যালারিতেও ছিল তুমুল হট্টগোল। দুই দলের সমর্থকরাই অসহিষ্ণু আচরণ করেছিলেন পুরোটা ম্যাচজুড়ে। ম্যাচ শুরুর সময়, ব্রাজিল ফুটবল দল যখন তাদের জাতীয় সঙ্গীন পরিবেশন করছিল, তিউনিসিয়ার সমর্থকরা তখনই টার্গেট করে নেইমারকে। তার চোখে লেজার রশ্মি নিক্ষেপ করা, ম্যাচের সময় কলা নিক্ষেপ- করেছিল তারা।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসব বিষয় তুলে আনেন ব্রাজিল কোচ তিতে। তিনি বলেন, ‘এখানে তিউনিসিয়ানরাই সংখ্যায় ছিল অধিক। বেশ কয়েকবার আমি চেষ্টা করেছি, গ্যালারিতে ব্রাজিলের কোনো সমর্থক আছে কি না। আমি কিছু সমর্থককে দেখেছি, যারা তিউনিসিয়ানদের মাঝে মিশ্রিত হয়ে ছিল। সমর্থকদের এই উপস্থিতি ম্যাচটিকে প্রতিযোগিতামূলক করে তুলেছিল।’

‘এমনকি মাঠেও আমরা দেখলাম, ম্যাচটা যেন কোনো প্রতিযোগিতার। হতেই পারে। কিন্তু আমি কখনোই চিন্তা করতে পারিনি যে, নেইমারের সঙ্গে যা হয়েছে তা এভাবে কখনও ঘটতে পারে। আমার মনে হয়েছিল, তারা মাঠেই নেমেছিল নেইমারকে এখনই বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে দিতে। তারা যেন চায়’ই না নেইমার বিশ্বকাপে খেলুক। তারা যেভাবে চেষ্টা করেছিল, তাতে সেটাই প্রতীয়মান হয়েছে। আমি এ ধরনের কোনো চিন্তাই করতে পারছি না।’

ম্যাচের নায়ক নেইমারও এ নিয়ে কথা বলেছেন ম্যাচ শেষে। তিনি বলেন, ‘সত্যিই আমাকে ভয় ধরিয়ে দিয়েছিল ম্যাচের এসব ঘটনা। আমি তিতের (কোচ) এ নিয়ে কথাও বলেছি। আমি ফাউল করেছিলাম। এটা ছিল আমার প্রথম এবং তখনই হলুদ কার্ড দেখি। দ্বিতীয়ার্ধে আমাকে কঠোর ফাউল করা হলো। কাউন্টার অ্যাটাকে গিয়েছিলাম, আমাকে কঠিক ফাউল করে তারা সেটা থামাতে চেয়েছে। কিন্তু রেফারি তাকে হলুদ কার্ড দিল না। এটা তো সত্যিই কঠিন!’

নেইমার আরও বলেন, ‘আমি কিছুই বুঝতে পারছি না। মনে হচ্ছে যেন, এই ম্যাচ থেকেই বিশ্বকাপ শুরু হয়ে গেছে। সমর্থকদের দ্বারাই তিউনিসিয়ার খেলোয়াড়রা যেন অতিরিক্ত উত্তেজিত হয়েছিল।’

বর্ণবাদী আচরণ সম্পর্কে নেইমার নিজের মতামত তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘এ নিয়ে আমার কিছুই বলার নেই। ফুটবলের জন্যই এটা দুঃখজনক। সবার জন্যই। এমনকি যারা তিউনিসিয়া থেকে এসেছেন, তাদের জন্যও।’

কাতার বিশ্বকাপের আগে ব্রাজিল দারুণ প্রস্তুতি সেরে রাখলো। চলতি ২০২২ সালেই মোট সাতটি জয় এবং একটি ম্যাচ ড্র করেছে তারা। এর মধ্যে ৫ ম্যাচেই অন্তত চারটি করে গোল করেছে তারা।

আইএইচএস/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।