সুপার সাব রাশফোর্ডের জোড়া গোলে বাঁচলো ম্যানইউ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪১ এএম, ০৭ অক্টোবর ২০২২

রিয়াল সোসিয়েদাদের কাছে পরাজয়ের পর ইউরোপা লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলা নিয়ে বেশ সংশয়ের মধ্যেই পড়ে গিয়েছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। কিন্তু পরের দুই ম্যাচে টানা জয়ে পরের রাউন্ডে ওঠার সম্ভাবনা ধরে রেখেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

যদিও বৃহস্পতিবার রাতে বড় ধরনের হোঁচট খেতে গিয়েছিল তারা। সাইপ্রাসের অখ্যাত দল ওমানিয়া নিকোশিয়ার মাঠে গিয়ে পয়েন্ট হারিয়ে আসতে বসেছিল তারা। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি ৩-২ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো-এরিক টেন হাগের দল।

ম্যানইউকে বাঁচিয়ে দিয়েছেন মূলতঃ পরিবর্তিত ফুটবলার মার্কাস রাশফোর্ড। জেডন সানচোর পরিবর্তে দ্বিতীয়ার্ধে রাশফোর্ডকে মাঠে নামান কোচ। মাঠে নেমেই করলেন বাজিমাত। করলেন জোড়া গোল। ম্যানইউর হয়ে বাকি গোলটি করলেন অ্যান্থোনি মার্শাল।

প্রথমার্ধে গোল হজম করে পিছিয়ে পড়েছিল ম্যানইউ। ম্যাচের ৩৪তম মিনেটে ম্যানইউর জাল কাঁপিয়ে দেন করিম আনসারিফার্ড। ১-০ গোলে পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ম্যানইউ এবং নিকোশিয়া।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই মাঠে নামানো হয় মার্কাস রাশফোর্ডকে। মাঠে নামার পরই ম্যানইউর খেলার গতি পরিবর্তন করে দেন তিনি। নিজে দুটি গোল করলেন না শুধু, অ্যান্থোনি মার্শালের গোলের সেটআপও করে দেন তিনি।

এই জয়ের ফলে ‘ই’ গ্রুপে তিন ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ম্যানইউ। ৩ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ শীর্ষে রিয়াল সোসিয়েদাদ। ৩ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে শেরিপ এবং ওমানিয়া নিকোশিয়ার কোনো পয়েন্ট নেই এখনও পর্যন্ত।

আগের ম্যাচে ম্যানসিটির কাছে ৬-০ গোলে হেরেছিল ম্যানইউ। সেই ম্যাচের একাদশে ৩টি পরিবর্তন আনেন এরিক টেন হাগ। নিকোশিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামান রোনালদো, ক্যাসেমিরো এবং ভিক্টর লিন্ডেলপকে।

সাইপ্রাসের দলটির বিপক্ষে রোনালদোর সামনে দারুণ এক সুযোগ ছিল একটি মাইলফলকে পৌঁছার। ক্লাব ফুটবলে ৭০০ গোলের মাইলফলকে পৌঁছাতে মাত্র একটি গোল প্রয়োজন সিআর সেভেনের। কিন্তু সেই কাঙ্খিত গোলটি করতে পারলেন না তিনি।

ম্যাচের ৫৩তম মিনিটে ফার্নান্দেজের কাছ থেকে একটি লম্বা পাস ধরে শট নেয়ার জায়গা তৈরি করেই সেটিকে জড়িয়ে দেন নিকোশিয়ার জালে। ১০ মিনিট পর আবারও গোল। এবার এগিয়ে যায় ম্যানইউ। এবারও গোলের সঙ্গে যুক্ত রাশফোর্ড। তিনি গোলের সুযোগ তৈরি করে দেন অ্যান্থোনি মার্শালকে।

৮৪তম মিনিটে এসে আবারও গোল করলো ম্যানইউ। এবারও গোলদাতা মার্কাস রাশফোর্ড। তার এই গোলের জোগানদাতা ছিলেন রোনালদো।

কিন্তু মিনিটখানেক পর একটি গোল হজম করে বসে ম্যানইউ। নিকোশিয়ার হয়ে নিকোলাস পানাগিউতো গোল করে ব্যবধান কমান। শেষ ৫-৭ মিনিটে স্বাগতিকরা চেষ্টা করেছিল সমতা ফেরানোর; কিন্তু তাতে সফল হয়তি তারা।

আইএইচএস/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।