ফোলা পায়ের ছবি দিয়ে কী বোঝালেন নেইমার? পুরো বিশ্বকাপ নিয়েই শঙ্কা!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:১৫ পিএম, ২৭ নভেম্বর ২০২২

গোড়ালি মচকে যাওয়ার কারণে এরই মধ্যে ঘোষণা হয়ে গেছে, সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে খেলতে পারবেন না নেইমার। পরের ম্যাচে ক্যামেরুনের বিপক্ষেও খেলার সম্ভাবনা কম। এরই মধ্যে নতুন ছবি পোস্ট করে ভক্ত-সমর্থকদের আতঙ্ক বাড়িয়ে দিয়েছেন নেইমার নিজে। ফোলা পায়ের ছবি দেখে ভক্তরা আতঙ্কে আছেন, পুরো বিশ্বকাপই কী শেষ হয়ে গেলো নেইমারের? যদিও এখনই তাকে নিয়ে আশা ছাড়ছে না ব্রাজিল শিবির।

সার্বিয়ার বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ২-০ গোলে দুরন্ত জয় ছিনিয়ে নেয় ব্রাজিল। সোমবার মাঠে নামছে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে। নেইমারের ইনজুরির কারণে, একেবারেই স্বস্তিতে নেই ব্রাজিল কোচ তিতে। কারণ, নেইমারের চোটের আপডেট তাকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছে। ব্রাজিল কোচকে চিন্তায় ফেলেছে নেইমারের চোট।

ডান পায়ের গোড়ালি মচকে যাওয়ার কারণে সার্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের ৮০তম মিনিটে মাঠ ছাড়েন পিএসজির ব্রাজিলিয়ান তারকা। বেঞ্চে বসে নেইমারকে কাঁদতেও দেখা যায়। পরে প্রকাশিত ছবিতে দেখা গেছে, নেইমারের গোড়ালি এবং এর আশপাশের জায়গাটা বেশ বাজেভাবে ফুলে রয়েছে।

পরদিনই ব্রাজিল দলের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে খেলতে পারবেন না নেইমার। এমনকি শঙ্কা রয়েছে ক্যামেরুনের বিপক্ষে ম্যাচেও।

কিন্তু শনিবার রাতেই নেইমার তার ইনজুরি আক্রান্ত পায়ের আরও একটি ছবি প্রকাশ করেন। যেটা দেশে শঙ্কার মাত্রাটা বেড়ে যাচ্ছে কয়েকগুণ। ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে নিজের পায়ের চোটের কয়েকটি ছবি শেয়ার করেন নেইমার। সেখানে অবশ্য কিছু লেখেননি তিনি। তবে ছবি দেখে নিঃসন্দেহে আশঙ্কা বাড়বে ব্রাজিল ফুটবল ভক্তদের।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, গোড়ালিসহ পুরো ডান পায়ের পাতাটা লুচির মতো ফুলে রয়েছে নেইমারের। জুতা পরতেও যে তার সমস্যা হচ্ছে, সেটা বেশ ভালোই বোঝা যাচ্ছে। এমন একটি পা নিয়ে নেইমার বিশ্বকাপের বাকি ম্যাচগুলোও খেলতে পারেন কি না তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, এই ম্যাচগুলোতে তাদের বিশ্রাম দিয়ে মূলত নকআউট পর্বের আগে ফিট করে তোলা হবে। তবে নেইমারের চোটের যা পরিস্থিতি, তাতে ব্রাজিল যদি নকআউটেও ওঠে, সেক্ষেত্রে আদৌ তিনি খেলতে পারবেন তো?

শনিবার নেইমার লিখেছিলেন, ‘ব্রাজিলের জার্সি পরার গর্ব এবং ভালোবাসা বোঝানো সম্ভব নয়। আমাকে যদি ঈশ্বর জিজ্ঞেস করেন, কোন দেশে জন্ম নিতে চাও, আমি বলব ব্রাজিল। আমি জীবনে কিছু সহজে পেয়ে গেছি, এমন নয়। আমাকে সব সময় নিজের স্বপ্ন এবং লক্ষ্যের দিকে দৌড়াতে হয়েছে। কখনও কারও খারাপ চাইনি। সবাইকে সাহায্য করার চেষ্টা করেছি। আমার জীবনের আরও একটা কঠিন সময়। আবার একটা বিশ্বকাপেই চোট পেলাম। হ্যাঁ, চোট রয়েছে আমার। কষ্ট হচ্ছে। ফিরে আসার সুযোগ রয়েছে আমার। সেই চেষ্টা আমি করব। দেশ, সতীর্থ এবং নিজের জন্য ফিরে আসতে হবে। আমাকে এভাবে মারার জন্য শত্রুদের খুব বেশি অপেক্ষা করতে হবে না। ঈশ্বরের ওপর বিশ্বাস আছে আমার।’

এরই মধ্যে জানা গেছে, একই ধরনের চোট পেয়ে নেইমারের মতো গ্রুপের বাকি ম্যাচ থেকে ছিটকে গেছেন ডিফেন্ডার দানিলোও।

ব্রাজিলের দলের চিকিৎসক রডরিগো লেসমার রয়টার্সকে বলেন, ‘শুক্রবার বিকেলে নেইমার এবং দানিলোর এমআরআই করা হয়েছে। দুজনই গোড়ালিতে মারাত্মকভাবে আঘাত পেয়েছে। ওরা নিশ্চিতভাবে পরের ম্যাচে খেলতে পারবে না। ওদের চিকিৎসার মধ্যে দিয়ে যেতে হবে এবং বিশ্বকাপে যাতে ওরা দ্রুত খেলার মতো জায়গায় ফিরে আসতে পারে, সে চেষ্টাই করা হবে।’

এই দুই ম্যাচে নেইমারের ছিটকে যাওয়ার খবরের পর তার বিকল্প কে হতে পারেন, তা নিয়েও শুরু হয়েছে আলোচনা। নেইমারের বিকল্প হিসেবে রদ্রিগো কিংবা আন্তোনির নাম শোনা যাচ্ছে।

আইএইচএস/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।