একযুগ পর প্রতিশোধের সুযোগ ঘানার, সুয়ারেজ বললেন ক্ষমা চাইবো না

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:১৫ পিএম, ০২ ডিসেম্বর ২০২২

২০১০ সালের কোয়ার্টার ফাইনালে ঘানা বনাম উরুগুয়ের সেই ঘটনার কথা এখনও ফুটবলপ্রেমীদের মনে গেঁথে আছে নিশ্চিত। গোল লাইন থেকে হাত দিয়ে বল ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন লুইস সুয়ারেজ। নিশ্চিত গোল থেকে দলকে বাঁচালেও লাল কার্ড দেখেন তিনি এবং ঘানাকে পেনাল্টি দেয়া হয়।

ঘানার তখনকার দলের সেরা তারকা আসামোয়াহ জিয়ান নেন স্পট কিক। কিন্তু কী দুর্ভাগ্য, তার সেই শট গিয়ে আঘাত করে ক্রসবারে। লাল কার্ড দেখে মাঠ থেকে বেরিয়ে যেতে যেতে টানেলে দাঁড়িয়ে পেনাল্টি শটটি দেখছিলেন সুয়ারেজ।

জিয়ানের পেনাল্টি শটটি যখন ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে, তখন টানেলে দাঁড়ানো সুয়ারেজের উল্লাস ছিল চোখে পড়ার মতো। হাত দিয়ে যে বলটি তিনি ফিরিয়েছিলেন, তাতে সত্যিই তার দল রক্ষা পেয়েছে। না হয় কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই উরুগুয়ের বিদায় ঘটতো এবং প্রথম আফ্রিকান দল হিসেবে সেমিফাইনালে উঠে যেতো ঘানা। ১-১ গোলে ম্যাচ শেষ হওয়ার পর, পেনাল্টি শ্যুটআউটে বিদায় নিতে হয় ঘানাকে।

Suarez

উরুগুয়ের কাছে লুইস সুয়ারেজের সেই কর্মকাণ্ড বীরোচিত হলেও ঘানা কিংবা পুরো আফ্রিকার কাছে রীতিমত প্রতারকে পরিণত হন সুয়ারেজ। তাদের মতে, সুয়ারেজের প্রতারণাই তাদেরকে হারিয়েছে। ঘানার মানুষের কাছে সুয়ারেজ পরিচিতি পেয়েছিলেন ‘এল দিয়াবলো বা দ্য ডেভিল (শয়তান)’ নামে।

সেই সুয়ারেজ এখনও আছেন উরুগুয়ে দলে। ঠিক একযুগ তথা ১২ বছর পর আবারও বিশ্বকাপে মুখোমুখি ঘানা এবং উরুগুয়ে। এবার গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে। তবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ এটি। কারণ, ‘এইচ’ গ্রুপ থেকে এরই মধ্যে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করে ফেলেছে পর্তুগাল। দক্ষিণ কোরিয়াকে হারিয়ে ৩ পয়েন্ট অর্জন করেছে ঘানা। তারা দ্বিতীয় স্থানে। উরুগুয়ে এবং দক্ষিণ কোরিয়ার পয়েন্ট ১ করে।

দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে হলে আজ ঘানার বিপক্ষে জিততেই হবে উরুগুয়ের। সে সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়াকে হারতে কিংবা ড্র করতে হবে পর্তুগালের সঙ্গে। উরুগুয়ে ড্র করলেও বিদায় নেবে।

এমন পরিস্থিতিতে ঘানা-উরুগুয়ের ম্যাচটি নিশ্চিত নকআউটে রূপ নিয়েছে। আর ২০১০ সালের মত এতটা শক্তিশালীও নয় উরুগুইয়ানরা। যারা দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে ড্র করেছিলো এবং পর্তুগালের সঙ্গে হেরেছিলো।

Gyan

১২ বছর পর সেই উরুগুয়ে এবং সেই সুয়ারেজকে পেয়ে আজ প্রতিশোধের নেশায় জ্বলে উঠতে পারে ঘানা। তবে, ঘানাইয়ানদের হৃদয়ে যে আগুন ধিকি ধিকি জ্বলছে, তা নিরসন হতে পারে কেবল সুয়ারেজ যদি ক্ষমা চায় সেই ঘটনায়।

কিন্তু সুয়ারেজ আজকের এই ম্যাচের আগে জানালেন তিনি ক্ষমা চাইবেন না কিংবা দুঃখও প্রকাশ করবেন না। তিনি বিশ্বাস করেন না যে ঘটনা ঘটেছিলো তার জন্য ক্ষমা চাইতে হবে। সুয়ারেজ বলেন, ‘আমি অবশ্যই ওই ঘটনার জন্য ক্ষমা চাইবো না বা দুঃখও প্রকাশ করবো না। আমার হ্যান্ডবলের পর ঘানার সেই খেলোয়াড়ও (জিয়ান) তো পেনাল্টি শটটা মিস করেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘যদি বক্সের মধ্যে আমি কোনো বাজে ট্যাকল করে লাল কার্ড পেতান, কিংবা কাউকে ইনজুরিতে ফেলে লাল কার্ড পেতাম, তাহলে হয়তো আমি ক্ষমা চাইতাম। কিন্তু ওটা তো হ্যান্ডবল ছিল। সেটার জন্য কেন ক্ষমা চাইবো? এটা তো আমার ব্যর্থতা নয়। আমি তো আর পেনাল্টি শটটি নিতে যাইনি কিংবা বাধা দিইনি।’

আইএইচএস/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।