আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে প্রতিশোধ নিতে চান নেদারল্যান্ডস কোচ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০৯ পিএম, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২

২০১৪ বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে হারের ক্ষত এখনও ভুলতে পারেননি লুইস ফন গাল। সেবার ব্রাজিল বিশ্বকাপের সেমিটফাইনালে আর্জেন্টিনার কাছে হেরেই বিদায় নিতে হয়েছিলো নেদারল্যান্ডসকে। সেই হারের কথা ভুলতে পারেননি ডাচ কোচ। এ কারণেই এবার যখন কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে পাচ্ছেন, তখন সেই হারের ক্ষতে প্রলেপ দিতে চান নেদারল্যান্ড কোচ।

আবার নেদারল্যান্ডসের ফুটবলাররা একজোট হয়ে খেলেন তাদের কোচের জন্য। কারণ, এই কোচ তাদেরকে অনেক কিছু অর্জন করিয়েছেন। ডাচদের বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্নও দেখাচ্ছে ফন গালের কোচিং দর্শন এবং তার ট্যাকটিস। এ কারণেই নেদারল্যান্ডস ফুটবলাররা তার জন্য নিজেদের উজাড় করে দিয়ে খেলতে চান।

যেমন দলটির ফুটবলার ড্যালি ব্লিন্ড বলেছেন, এখনকার নেদারল্যান্ডস শুধু একজনের জন্যই খেলে। তার নাম লুইস ফন গাল। প্রখর ফুটবল বুদ্ধির পাশাপাশি যার প্রতিটি ট্যাকটিক্যাল সিদ্ধান্তে মুগ্ধ ফুটবল বিশ্লেষকেরা।

কে বলবেন, তিনি লড়াই করছেন প্রস্টেট ক্যানাসারের সঙ্গে! ‘আমাদের সঙ্গে অনুশীলনে থেকে, ম্যাচে ডাগআউটে থাকার পরে মাঝেমধ্যে ওকে হাসপাতালে যেতে হয়। কিন্তু সেখানে চিকিৎসা সংক্রান্ত কী ঘটেছে তা নিয়ে কখনও আলোচনা করতে বসেন না। দেখে বোঝারই উপায় নেই এমন অসুখের সঙ্গে যুদ্ধ চলছে’- মন্তব্য আয়াক্স আমস্টারডাম মিডফিল্ডারের। যিনি শেষ ষোলোয় আমেরিকার বিরুদ্ধে নিজে গোল করেছেন। করিয়েছেনও একটা।

এখানেই থামেননি ব্লিন্ড, ‘স্যার নিজে কিছু না বললেও আমাদের মাথায় সবসময় এই কথাটা ঘোরে। এমন অবস্থাতেও সবকিছু সামলে উনি যেভাবে আমাদের সঙ্গে পড়ে আছেন, তা বিস্ময়কর। আমরা জানি, উনি চিরকাল এমনই থাকবেন। কোনোদিন পাল্টাবেন না। আমরা এই কোচের জন্যই খেলি। বিশ্বকাপে অনেক দূর যেতে চাই।’

‘অনেকদূর’ যাওয়ার পথে এই মুহূর্তে সবচেয়ে বড় বাধা আর্জেন্টিনা। ফন গাল কী বলছেন? এসব নিয়ে ফন গাল নিজে বলেন, ‘আমি আমার অসুস্থতা নিয়ে ভাবছি না। সে সব ভাবার প্রশ্নও ওঠে না। এখন লক্ষ্য একটাই, আর্জেন্টিনাকে হারানো। বিশ্বকাপে দু’বার আমরা ওদের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছিলাম। ছেলেদের বলেছি, এবার কিন্তু কোনোভাবেই সেটা যেন না হয়।’

আমেরিকাকে হারানোর পর থেকে নেদারল্যান্ডস দলের মেজাজ দেখে মনে হয়েছে, ফুটবলাররা আত্মবিশ্বাসে টগবগ করে ফুটছে। অবশ্য ফন গাল যে রোববার দলের খেলায় খুব খুশি হয়েছেন- এমন নয়। অকপটে বলেছেন, ‘বার বার বল আমাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছিলো। যা বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। বিশেষ করে বিশ্বসেরা দলগুলোর বিরুদ্ধে খেলতে নেমে এমন হলে কিন্তু হেরেই ফিরতে হবে।’

নেদারল্যান্ডস দলের ম্যাঞ্চেস্টার সিটির তারকা নাথান অ্যাকের কথায়, ‘জানি, আমাদের এখনও অনেক দূর যেতে হবে। এই দলটার আরও ভাল খেলার ক্ষমতা আছে। তবে আরও বেশি করে নিজেদের খেলায় মনঃসংযোগ করতে হবে। যতদূর যাওয়া সম্ভব ততদূরই যেতে হবে। সবই আমাদের করতে হবে কোচের জন্য। উনি ছাড়া অন্য কারও কথাই মাথায় রাখি না।’

৭১ বছর বয়সি ফান হালও মনে করেন, ‘আমি মনে করি এবার কাপ জেতার সম্ভাবনা প্রবল। আর তিনটি ম্যাচ জিতলেই তো সবার সব স্বপ্ন সত্যি হবে।’ সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘টানা এক বছর ধরে সবাইকে বলে আসছি যে, ঠিকঠাক খেলতে পারলে আমরা বিশ্বকাপ নিয়েই দেশে ফিরব।’

আইএইচএস/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।