আরচারদের নিশানাভেদের অপেক্ষা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৩:০৭ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ০৩:১১ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০১৭

শুক্রবার থেকেই জমছিল বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম এলাকা। গা ঘেঁষা মওলানা ভাসানী স্টেডিয়াম, শেখ রাসেল রোলার স্কেটিং কমপ্লেক্সসহ পল্টন ময়দানজুড়েই একটা রমরমা ভাব। শনিবার পূর্ণতা পেল পুরো আয়োজনের। ২০তম এশিয়ান আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপ ঘিরে দেশের খেলাধুলার প্রাণকেন্দ্র এখন উৎসবমুখর।

৩৫ দেশের তীরন্দাজরা শনিবার সেরে নিয়েছেন শেষ অনুশীলন। শুক্রবার মওলনা ভাসানী স্টেডিয়ামেও অনুশীলন করেছেন বিভিন্ন দেশের খেলোয়াড়রা। তবে শনিবারের অনুশীলন পর্বটাও ছিল উৎসবমুখর। টুর্নামেন্টের ভেন্যু বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও দুই সেশনে তীরন্দাজদের অনুশীলন মিলিয়ে অন্যরকম আবহও এখানে।

এশিয়ান আরচারির অন্যরকম আকর্ষণ এ প্রতিযোগিতায় বিশ্বমানের কিছু খেলোয়াড় থাকায়। এ যেমন এ প্রতিযোগিতার কারণে ঢাকায় পা পড়েছে দুইজন অলিম্পিক স্বর্ণজয়ীর। ব্যক্তিগত ইভেন্টে অলিম্পিক গেমসে স্বর্ণ জেতা কোনো ক্রীড়াবিদের আগে বাংলাদেশে পা পড়েনি। দক্ষিণ কোরিয়ার দুই আরচার ঢাকায় এসেছেন যারা নাম লিখিয়েছেন অলিম্পিক গেমসে স্বর্ণজয়ীদের তালিকায়।

গত দুই দিন আড়াইশ’র উপরে এশিয়ান আরচার প্রস্তুতি শেষ করেছেন নিশানাভেদের। বিশেষ করে দক্ষিণ কোরিয়া, ভারত, চাইনিজ তাইপে ও ইরানের আরচারদের জন্য শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই হলো এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ। সর্বশেষ এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে সর্বাধিক ৬ স্বর্ণ পাওয়া দক্ষিণ কোরিয়া ও ৩ স্বর্ণ পাওয়া ভারতের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে পারে এবারের আসর। তবে এ দুই দেশকে চ্যালেঞ্জ জানাতে প্রস্তুতি নিচ্ছে চাইনিজ তাইপে ও ইরান।

টুর্নামেন্ট নিয়ে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম এলাকায় একটা উৎসবমুখর পরিবেশ তৈরি হলেও অন্ধকারও আছে আলোর নিচে। আয়োজন অনেকটাই অগোছালো। এ যেমন টুর্নামেন্টের উদ্বোধনের জন্য কোনো মন্ত্রীকেও আনতে পারেনি আরচারি ফেডারেশন। উদ্বোধন করেছেন বিওএর মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা।

উদ্বোধনের দিনেও বদলায়নি বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম চত্বরের জঞ্জালের পরিবেশ। শত শত রিক্সা ঢুকছে। শোঁ-শোঁ করে প্রাইভেটকারসহ বিভিন্ন যানবাহন এপাশ থেকে ওপাশ দিয়ে ঢুকে বেরিয়ে যাচ্ছে। হাঁটতে গিয়ে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়েছে দেশ-বিদেশি তীরন্দাজদেরও। ক্রীড়াবিদদের হাঁটার স্বাধীনতাও নেই স্টেডিয়াম এলাকায়। ৩৫ দেশের ক্রীড়াবিদদের একটি টুর্নামেন্ট চলাকালীন বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের পরিবেশ থাকল আগের মতোই।

শনিবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হলেও তীরন্দাজদের লক্ষ্যভেদের লড়াইটা শুরু হবে সোমবার থেকে। রোববার আরচারদের স্ট্যান্ডিং নির্ধারণ করা হবে। তার পরেরদিন থেকেই ১০ স্বর্ণের জন্য তীর-ধনুকের লড়াইটা শুরু হবে। রিকার্ভ পুরুষ দলগত, রিকার্ভ নারী দলগত, রিকার্ভ পুরুষ একক, রিকার্ভ নারী একক, কম্পাউন্ড পুরুষ দলগত, কম্পাউন্ড নারী দলগত, কম্পাউন্ড পুরুষ একক, কম্পাউন্ড নারী একক, রিকার্ভ মিশ্র দলগত এবং কম্পাউন্ড মিশ্র দলগত ইভেন্টে হবে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের প্রতিযোগিতা।

আরআই/আইএইচএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :