এসএ গেমসের প্রস্তুতি শুরু করতে পারে বিওএ : ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:২১ পিএম, ১৯ মে ২০১৯

লোগো ও মাসকট উম্মোচন করার পর ঘন্টা বেজে গেছে ত্রয়োদশ সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসের। আগামী ১-১০ ডিসেম্বর নেপালের কাঠমান্ডু ও পোখারায় হবে ‘দক্ষিণ এশিয়ার অলিম্পিক’ হিসেবে পরিচিত এই গেমস। বাকি ৬ মাসের মতো। কিন্তু বাংলাদেশ এখনো এই গেমসের প্রস্তুতি শুরু করতে পারেনি।

বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ) থেকে সরকারের কাছে ৩৯ কোটি টাকা চেয়েছে গেমসের প্রস্তুতি ও অংশগ্রহণের জন্য। কবে টাকা বরাদ্দ হবে, আর কবে বিওএ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তুতি শুরু করবে তার নিশ্চয়তা নেই।

আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তুতি শুরু না হলেও অনানুষ্ঠানিকভাবে কয়েকটি ফেডারেশন প্রস্তুতি শুরু করেছে। বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের উপমহাসচিব আশিকুর রহমান মিকু জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ‘নিজেদের উদ্যোগে শ্যুটিং, আরচারি, ভলিবল ও সাঁতার গেমসের প্রস্তুতি চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা পুরোদমে প্রস্তুতি শুরুর জন্য সরকারের কাছে অর্থ চেয়েছি। প্রস্তুতি ও অংশগ্রহণের জন্য আমাদের বাজেট ৩৯ কোটি টাকা।’

সামনে জাতীয় বাজেট। বিওএর এই দেয়া গেমসের প্রস্তুতির টাকা কবে পাওয়া যাবে এবং কবেই তারা শুরু করবে অনুশীলন? যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল রোববার দুপুরে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির বার্ষিক ক্রীড়া উৎসব উদ্বোধন করার পর গেমসের প্রস্তুতি প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘এসএ গেমস নিয়ে একটা অনিশ্চয়তা ছিল। সেটা কেটে গেছে। আগামী ১ থেকে ১০ ডিসেম্বর ইনশাল্লাহ গেমস হবে। বিওএ ইতিমধ্যে ট্রেনিং ও অংশগ্রহণের জন্য ৩৯ কোটি টাকার একটা বাজেট দিয়েছে। আশা করছি খুব শিগরিরই আমরা এটা পাবো। বিওএ কাজ শুরু করতে পারে। কারণ টাকা অবশ্যই পাবে।’

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী এসএ গেমস নিয়ে ইতিমধ্যে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে। ‘যখন লোগো ও মাসকট উম্মোচনের মধ্যে দিয়ে গেমস নিশ্চিত হলো তখন আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছি। এ ছাড়া বিওএর সভাপতি, মহাসচিবসহ আমি অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছি। তাকে আমরা আমাদের প্রয়োজনের কথা জানিয়েছি। আশা করি সব হয়ে যাবে। তবে এখন এমন একটা সময় ঠিক নতুন একটা বাজেটের আগ মুহূর্ত। এমন সময় অর্থ ছাড় করাটা মুশকিল। বাজেটের পর অবশ্যই এ অর্থ ছাড় হবে’-বলেছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী।

টাকা বরাদ্দের আগেই অনুশীলন শুরু করার যে সবুজ সঙ্কেত দিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী, তাতে পুরোপুরি আশ্বস্ত হতে পারছে না বিওএ। বিওএর উপমহাসচিব আশিকুর রহমান মিকু বলেছেন, ‘টাকা না পাওয়া পর্যন্ত অনুশীলন করা মুশকিল। আমাদের অতীত অভিজ্ঞতা ভালো না। বিওএ আগে এভাবে অনুশীলন শুরু করেও টাকা পায়নি। তাই অর্থ বরাদ্দের আগে অনুশীলন শুরু করা হবে কিনা সেটা আমাদের মহাসচিব মহোদয় ভালো বলতে পারবেন।’

আরআই/এমএমআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]