অ্যাটলেটিকোকে হারিয়ে সুপার কাপ রিয়াল মাদ্রিদের

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৩২ এএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২০

সৌদি আরবের জেদ্দায় আজ রাতে বসেছিলো স্পেনের দুই সেরা ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ এবং অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের মধ্যে স্প্যানিশ সুপার কাপের জমজমাট ফাইনাল। পুরো ফুটবল বিশ্বেরই চোখ ছিল জেদ্দায়।

সেখানে তোমার লড়াই শেষে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে টাইব্রেকারে হারিয়ে স্প্যানিশ সুপার কাপের শিরোপা জিতে নিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। সে সঙ্গে দ্বিতীয় ফেরায় রিয়ালের হয়ে প্রথম শিরোপা জিতলেন কোচ জিনেদিন জিদান।

সৌদি আরবের মাটিতে মাদ্রিদ ডার্বি জিতে ১১তম স্প্যানিশ সুপার কাপ ঘরে তুলল লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। মেগা ফাইনালে টাইব্রেকারে ৪-১ ব্যবধানে তারা হারালো অ্যাটলেটিকোকে।

নির্ধারিত সময়ে দু’পক্ষের কেউই কারও জালে বল প্রবেশ করাতে
পারেনি। নির্ধারিত সময় শেষ হয় গোলশূন্য অমীমাংসিতভাবে। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে অ্যাটলেটিকোকে ৪-১ গোলে হারায় রিয়াল মাদ্রিদ।

দুই দলই শুরু থেকে বেশ কিছু ইতিবাচক আক্রমণের সুযোগ তৈরি করে। কিন্তু দুই গোলরক্ষকের বিশ্বস্ত দস্তানা অক্ষত রাখে দু’পক্ষের গোলমুখ। আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে সৌদি আরবের জেদ্দায় শুরু হয় মেগা ফাইনাল।

ম্যাচে প্রাণ ছিল শুরু থেকেই। রিয়ালের ক্যাসেমিরো অন্যদিকে অ্যাটলেটিকোর হোয়াও ফেলিক্স প্রথমার্ধে দলকে এগিয়ে দেওয়ার সুবর্ণ সুযোগ পেলেও গোলের তালা খুলতে পারেনি কোনও দলই। কিং আবদুল্লাহ স্পোর্টস সিটি স্টেডিয়ামে তখন ম্যাচের নিয়ন্ত্রক দুই দলের দুই গোলরক্ষক ওবলাক ও থিবাৎ কুর্তোয়া।

দ্বিতীয়ার্ধেও মুহুর্মুহু আক্রমণের সামনে নিজেদের দুর্গ অক্ষত রাখলেন দুই গোলরক্ষক। এরই মাঝে দিনের সহজতম সুযোগ হাতছাড়া করেন রিয়ালের ফেডরিকো ভালভের্দে। লুকা জোভিচের ডানপ্রান্ত থেকে বাড়ানো ক্রস থেকে ফাঁকা গোলে হেড করতে ব্যর্থ হন উরুগুয়ের এই মিডফিল্ডার।

এর আগে জোভিচের একটি মাটি ঘেঁষা শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয় অল্পের জন্য। নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার মিনিট দশেক আগে সহজ সুযোগ নষ্টের খাতায় নাম লেখান রিয়ালের সাবেক ফুটবলার আলভারো মোরাতা। কিরান ট্রিপিয়ারের পাস থেকে তার নির্বিষ শট জমা পড়ে কুর্তোয়ার হাতে।

নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার মিনিট দশেক আগে সহজ সুযোগ নষ্টের খাতায় নাম লেখান রিয়ালের সাবেক ফুটবলার আলভারো মোরাতা। শেষ সময়ে গোল নষ্টের হতাশা দ্বিগুণ করে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন রিয়ালের ফেডরিকো ভালভের্দে।

বল ধরে আগুয়ান রিয়ালের সাবেক খেলোয়াড় আলভারো মোরাতাকে পিছন থেকে বাজে ফাউল করে বসেন তিনি। সরাসরি লাল কার্ড দেখাতে কোনও কার্পণ্য করেননি রেফারি। অতিরিক্ত সময়ে বক্সের লুকা মদ্রিচের একটি শট ওবলাক ফিরিয়ে দেন। গোলশূন্য অবস্থাতেই শেষ হলো খেলা।

টাইব্রেকারে রিয়ালের পক্ষে প্রথম তিনটি শট যথাক্রমে ড্যানি কার্ভাহল, রড্রিগো এবং লুকা মদ্রিচ জালে রাখলেও অ্যাটলেটিকোর হয়ে প্রথম দুটি ক্ষেত্রে নিশানায় অব্যর্থ থাকতে পারেননি সল নিগুয়েজ ও থমাস পার্টি।

তৃতীয় স্পটকিকটি অ্যাটলেটিকো জালে রাখলেও রিয়ালের হয়ে চতুর্থ স্পটকিকে নিশানায় অব্যর্থ থাকেন অধিনায়ক সার্জিও রামোস। ফলে ওখানেই নিশ্চিত হয়ে যায় ফলাফল। সেইসঙ্গে রিয়ালের কোচ হিসেবে নয়টি ফাইনালে অলউইন রেকর্ড বজায় রাখলেন জিদান।

আইএইচএস/এমআরএম