ইতিহাসগড়া সানের চুলের পেছনে লেগেছে তারই স্বদেশিরা

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:৪৮ পিএম, ৩০ জুলাই ২০২১

টোকিও অলিম্পিকে আরচারিতে ইতিহাস গড়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার আন সান। গেমসের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো আরচারির তিনটি ইভেন্টেই স্বর্ণপদক জিতেছেন সান।

শুক্রবার রাশিয়ার এলেনা ওসিপোভাকে ৬-৫ সেট পয়েন্টে হারিয়ে নারী এককের স্বর্ণ জিতেছেন সান। এর আগে নারী দ্বৈত এবং মিশ্র দ্বৈত ইভেন্টেও স্বর্ণ জিতেছিলেন তিনি।

আরচারির অলিম্পিক ইতিহাসে এর আগে কেউই এক আসরে তিনটি ইভেন্টেই স্বর্ণ জিততে পারেননি। অথচ ইতিহাস গড়েও চুলের কারণে নিজের স্বদেশিদের কাছ থেকে ভর্ৎসনাই পেতে হচ্ছে সানকে।

jagonews24

দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ অলিম্পিকে একটি পদকের জন্য হাহাকার থাকে কত দেশের। সেখানেই একাই দক্ষিণ কোরিয়াকে তিনটি স্বর্ণ এনে দিয়েছেন সান। কিন্তু পুরুষশাসিত দেশটির নারীবাদী বিরোধীরা কি না পড়েছে সানের ছোট চুলের পেছনে।

ইতিহাস গড়ার দিন প্রশংসা পাওয়ার বদলে উল্টো ‘মেয়ে হয়েও চুল ছোট কেন’- এমন অযাচিত প্রশ্নই করা হচ্ছে সানকে ঘিরে। এমনকি চুল ছোট হওয়ায় সানকে নারীবাদীও বলছেন হাজারও কোরিয়ান নাগরিক।

শিক্ষা ও জ্ঞান-বিজ্ঞানের প্রসারে উন্নত দেশ হিসেবে পরিচিত হলেও, দক্ষিণ কোরিয়া মূলত পুরুষশাসিত দেশ। সেখানে কিছুদিন ধরে পুরুষদের মধ্যে নারীবাদবিরোধী মনোভাব তুঙ্গে। দেশটিতে নারী অধিকার বিষয়েও বিস্তর অভিযোগ আছে বাইরের দুনিয়ার।

যার প্রমাণ আরও একবার মিলল সানের সাফল্যের পর। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হাজারও মন্তব্যে সমালোচনা করা হচ্ছে সানের। একজন লিখেছেন, ‘আপনারা কি নিশ্চিত সান একজন নারীবাদী নয়? সে তো নারীবাদী হওয়ার সকল শর্তই পূরণ করেছে।’

jagonews24

সানের একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্টে একজন মন্তব্য করেছেন, আপনি চুল কেটেছেন কেন? উত্তরে হাসি ইমোজি দিয়ে সান লিখেছেন, ‘কারণ এতে আমার সুবিধা হয়।’ ঠিক এভাবেই হাসিমুখে সকল তীর্যক মন্তব্য বরণ করে নিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার এই স্বর্ণকন্যা।

এর আগে দক্ষিণ কোরিয়ার নারী ভলিবল ও এয়ার রাইফেল দলের খেলোয়াড়দের চুল ছোট থাকায়, তাদেরকেও একই হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। যা বহির্বিশ্বে মোটেও কোনো ভালো বার্তা দিচ্ছে না দক্ষিণ কোরিয়ার।

অবশ্য সানের সমর্থকরা ঠিকই লড়াই করছেন তার পক্ষে। একজন সমর্থক কোরিয়া আরচারি অ্যাসোসিয়েশনের মেসেজ বোর্ডে ‘নারীদের ছোট চুল’ ক্যাম্পেইন শুরু করে দিয়েছেন। যা এখন টুইটারে ট্রেন্ডিং হিসেবে চলছে দক্ষিণ কোরিয়ায়। যেখানে সানের প্রতি সমর্থন জানিয়ে নারীরা নিজেদের ছোট চুলের ছবি পোস্ট করছেন।

এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]