অলিম্পিকের দ্রুততম মানব ইতালির মার্সেল জেকবস

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:০১ পিএম, ০১ আগস্ট ২০২১

উসাইন বোল্ট চেয়ে চেয়ে দেখলেন, তার দেশের কোনো প্রতিযোগি নেই। এতদিন ১০০ মিটার বলতেই সবাই জানতো- সেখানে উসাইন বোল্ট এবং তার গলাতেই উঠবে সোনার পদক।

কিন্তু ২০১৬ রিও অলিম্পিকেই অ্যাথলেটিকসের ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডকে বিদায় জানান তিনি। যার ফলে ১৩ বছর পর ভিন্ন কারো গলায় ওঠার অপেক্ষায় ছিল অ্যাথলেটিকসের সেরা ইভেন্ট ১০০ মিটার স্প্রিন্ট।

এবার প্রতিযোগিতায় ছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং চীনের অ্যাথলেটরা। সেমিফাইনালে ৯.৮৩ সেকেন্ড সময় নিয়ে সবাইকে চমকে দিয়েছিলেন চীনের স্প্রিন্টার বিংথিয়ান।

কিন্তু সোনার লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত সবাইকে পেছনে ফেলে দিলেন ইতালিয়ান অ্যাথলেট লেমন্ত মার্সেল জেকবস। তিনিই হয়ে গেলেন ১০০ মিটারের রাজা। অলিম্পিকের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ইভেন্ট ১০০ মিটার স্প্রিন্টের স্বর্ণ পদক জিতে বোল্টের ছেড়ে যাওয়া আসন দখল করে নিলেন জেকবস।

৯.৮০ সেকেন্ড সময় নিলেন তিনি ১০০ মিটারের দৌড় শেষ করতে। যুক্তরাষ্ট্রের স্প্রিন্টার ফ্রেড কার্লেই সময় নিয়েছেন ৯.৮৪ সেকেন্ড। তিনি জিতেছেন রৌপ্য পদক এবং কানাডার স্প্রিন্টার আন্দ্রে ডি গ্রাসে সময় নিয়েছেন ৯.৮৯ সেকেন্ড। তিনি জিতেছেন ব্রোঞ্জ পদক।

সেমিফাইনালে ৯.৮৪ সেকেন্ড সময় নিয়েছিলেন লেমন্ত মার্সেল জেকব। তবুও কেন যেন তাকে কেউ ফেবারিটের জায়গায় রাখেনি। কিন্তু দৌড়াতে এসে তিনিই বাজিমাত করলেন। জিতে নিলেন সেরার আসন। হয়ে গেলেন আগামী চার বছরের জন্য অলিম্পিকে অ্যাথলেটিকসের রাজা।

ফাইনালে তিনজনই নিজেদের ব্যক্তিগত সেরা সময়ে দৌড়েছেন আজ। ১০০ মিটারে অলিম্পিক ইতিহাসে যে ইতালির সাফল্য বলতে ১৯৬০ রোম অলিম্পিকের ব্রোঞ্জ পদক। সেটাও ছিল মেয়েদের ইভেন্টে! এবার নিজ দেশের হয়ে নতুন ইতিহাসই সৃষ্টি করলেন মার্সেল জেকব।

আইএইচএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]