আবারও অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশনে আটক জকোভিচ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৫৫ এএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২২

এবারের অস্ট্রেলিয়া সফরটি রীতিমতো দুঃস্বপ্নের মতো কাটছে নাম্বার ওয়ান টেনিস তারকা নোভাক জকোভিচের। দুই দফায় ভিসা বাতিল হওয়ার পর এবার দ্বিতীয়বারের মতো ইমিগ্রেশনে আটক করা হয়েছে তাকে।

মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন খেলার উদ্দেশে এবার অস্ট্রেলিয়া সফরে গিয়েছেন জকোভিচ। করোনাভাইরাসের টিকা না নেওয়া থাকায় দুইবার তার ভিসা বাতিল করেছে অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে এরই মধ্যে আপিল করেছেন জকোভিচের আইনজীবীরা। এই আপিলের শুনানি হওয়ার আগে আজ (শনিবার) আবারও সরকারি ব্যবস্থাপনায় অভিবাসী আটক কেন্দ্রে থাকতে হবে জকোভিচকে, এমনটাই জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

গত ৬ জানুয়ারি অস্ট্রেলিয়ার বিমানবন্দরে অবতরণ করেন জকোভিচ। তখন তিনি জানান যে, তার জন্য করোনাভাইরাসের টিকার শর্ত শিথিল করা হয়েছে। কিন্তু ইমিগ্রেশনে সেই তথ্যপ্রমাণ দেখাতে ব্যর্থ হন।

যে কারণে তাৎক্ষণিকভাবে ভিসা বাতিল করে অভিবাসী আটক কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেওয়া হয় সার্বিয়ান তারকাকে। সেখানেই চারদিন থাকতে হয় তাকে। পরে আদালতের রায় অনুযায়ী জকোভিচের ভিসা ফিরিয়ে দিতে বাধ্য হয় অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন মন্ত্রণালয়।

এই রায়ের পর গত সোমবার (১০ জানুয়ারি) আটক কেন্দ্রে থেকে ছাড়া পান জকোভিচ। এমনকি অনুশীলনের জন্য টেনিস কোর্টেও নামেন তিনি। পরে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ড্র'তেও রাখা হয় তার নাম।

যখন সবকিছু স্বাভাবিক মনে হচ্ছিল, তখনই আসে নতুন খবর। শুক্রবার দ্বিতীয় দফায় জকোভিচের ভিসা প্রত্যাহারের খবর জানান অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন মন্ত্রী অ্যালেক্স হক। তার মতে, টিকা না নেওয়া জকোভিচের উপস্থিতি অস্ট্রেলিয়ার জনগণের জন্য হুমকির কারণ।

তাই দ্বিতীয় দফায় ভিসা বাতিল হয় জকোভিচের। এবারও এই ভিসা বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল করছেন তিনি। যার রায় পাওয়া যেতে পারে রোববার। তবে রায় পাওয়ার আগে শনিবার রাতটি আটক অবস্থায়ই কাটাতে হবে জকোভিচকে।

এসএএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]