‘ডেয়ারিং হিরোস ওয়াইল্ড পোস্টার ইভেন্ট’ আয়োজন করলো রিয়েলমি

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৪০ পিএম, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

বিশ্বের দ্রুততম বর্ধনশীল স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি সবসময়ই তারুণ্যের চেতনায় উজ্জীবিত। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি, রিয়েলমি তাদের ‘ডেয়ার টু লিপ’ স্পিরিটকে উপস্থাপন করতে ‘ডেয়ারিং হিরোস ওয়াইল্ড পোস্টার ইভেন্ট’ শীর্ষক একটি ক্যাম্পেইনের আয়োজন করে।

ফ্যান ফেস্টিভ্যালের অংশ হিসেবে আয়োজিত এ ক্যাম্পেইনে, বিশ্বব্যাপী রিয়েলমি ফ্যানদের জমা দেওয়া ছবিগুলো লন্ডন, মস্কো, মাদ্রিদ ও শেনজেনের মতো শহরের প্রাণকেন্দ্রে প্রদর্শন করা হয়। ফটোগুলো রিয়েলমির ‘হাউ ডেয়ার ইউ বি ইউ’ স্পিরিটকে তুলে ধরে এবং এ ক্যাম্পেইনটি শত বাঁধা-বিপত্তি পেরিয়ে নিজের স্বপ্ন অনুযায়ী এগিয়ে চলা উদ্যমী তরুণদের জন্য অনন্য একটি উদাহরণ।

তরুণ প্রজন্ম কেন্দ্রিক স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমির লক্ষ্য হলো ফ্যানদের চিন্তা-ভাবনাকে ইতিবাচক ধারায় ধাবিত করা। এ প্রসঙ্গে রিয়েলমির প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও স্কাই লি বলেন, আমাদের তরুণ ব্যবহারকারী ও কর্মীরা আমাদের ট্রেন্ডসেটার হিসেবে ভবিষ্যতের লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে ও অভিনব উদ্ভাবনী ইন্ডাস্ট্রি তৈরিতে সাহস জুগিয়েছে।

রিয়েলমির সাম্প্রতিক সাফল্য এটি প্রমাণ করে যে, সঠিক টিম ও ইচ্ছা থাকলে স্বপ্ন ও ভয় উভয়ই জয় করা সম্ভব। তারুণ্যের শক্তির কাছে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়। এমন চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে রিয়েলমি সম্প্রতি, নতুন একটি মাইলফলকে পৌঁছেছে। মাত্র তিন বছরে বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে দ্রুত ১০ কোটি স্মার্টফোন বিক্রি করা প্রতিষ্ঠান হয়েছে রিয়েলমি। এছাড়া, ক্যানালিসের তথ্য মতে, ২০২১ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকে বাংলাদেশের শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হয়েছে রিয়েলমি।

উল্লেখ্য যে, তরুণ প্রজন্মের পছন্দের ব্র্যান্ড রিয়েলমি তাদের উন্নত ‘১+৫+টি’ কৌশলের সঙ্গে এআইওটি ২.০ বিকাশের পর্যায়ে প্রবেশ করেছে। এর ফলে সাশ্রয়ী মূল্যের ৫জি ফোন ছাড়াও রিয়েলমি তরুণ প্রজন্মের ক্রেতাদের জন্য আরও অনেক এআইওটি পণ্য বাজারে নিয়ে আসবে। রিয়েলমি আগামী তিন বছরের মধ্যে তরুণ ব্যবহারকারীদের কাছে ১০ কোটি ৫জি ফোন সরবরাহের লক্ষ্যে ৫জি পণ্যের এক বিস্তৃত পোর্টফলিও তৈরিতে কাজ করছে।

প্রসঙ্গত, ই-কমার্সের বিস্তৃত প্রেক্ষাপটে দৃঢ় পারফরমেন্স এবং ট্রেন্ডি ডিজাইন সরবরাহকারী ডিভাইস হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে ২০১৮ সালের মে মাসে রিয়েলমি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। রিয়েলমির বিভিন্ন পণ্য প্রবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে তাদের ‘পাওয়ার’ এবং ‘স্টাইল’-এর জন্য ব্যাপক স্বীকৃতি অর্জন করেছে। ভারতে রিয়েলমি দীপাবলির সময় তিনদিনের মধ্যে এক মিলিয়ন মোবাইল ফোন বিক্রির রেকর্ড গড়েছিল।

রিয়েলমি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার লাজাদার বিক্রির রেকর্ডও ভেঙে এই প্ল্যাটফর্মের মোবাইল ফোন বিভাগে ১ নম্বর ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছিল। চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, মিশরসহ খুব অল্প সময়ের মধ্যেই রিয়েলমি ৬১টিরও বেশি দেশের বাজারে প্রবেশ করেছে। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে রিয়েলমি বাংলাদেশের বাজারে আসে। রিয়েলমি শক্তিশালী পারফরম্যান্স, আড়ম্বরপূর্ণ ডিজাইন, আন্তরিক পরিষেবাগুলো সরবরাহ এবং স্মার্টফোনের আরও সম্ভাবনা অন্বেষণ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

এমআরআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]