তরুণরা ঝুঁকছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ে

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৩ এএম, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৭

অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বাড়ছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্র। জনপ্রিয় ই-কমার্স সাইটগুলোর প্রডাক্ট (পণ্য) প্রচারে যে কেউ এ মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে কমিশন ভিত্তিক প্রডাক্ট প্রমোশন করতে পারেন। দেশের শিক্ষার্থীদের বিরাট একটি অংশ খণ্ডকালীন কাজের সুযোগ হিসেবে এ মাধ্যম ব্যবহার করতে পারেন।

ই-মার্কেটিং যখন অনলাইনে করা হয় তখন সেটি হবে ‘ডিজিটাল মার্কেটিং’। যদি কেহ ‘ডিজিটাল মার্কেটিং’ স্কিল নিজের কোনো প্রডাক্ট অথবা সার্ভিসের বিক্রয় ও প্রমোশনের জন্য ব্যবহার করেন, তখন সেটা হবে ইন্টারনেট মার্কেটিং। আর যখন ডিজিটাল মার্কেটিং স্কিল ব্যবহার করে অন্য কারও প্রডাক্ট অথবা সার্ভিস কমিশন ভিত্তিক প্রমোশন করা হয় সেটি হবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।

প্রযুক্তিবিদদের মতে, ভবিষ্যতের ডিজিটাল মার্কেটিং বা অনলাইন বাজারের একটি বড় অংশে জায়গা করে নেবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। এ খাতে দেশের তরুণদের আগ্রহ দিন দিন বাড়ছে।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের চতুর্থ দিন সকালে ‘দ্য প্রসপেক্ট অ্যান্ড চ্যালেঞ্জস অব ডিজিটাল কারেন্সি ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন।

digital-world.jpg-2

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. রাশেদুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আমরা নিজে থেকে চেষ্টা না করলে সফলতার মুখ দেখবো না। সরকারের পাঁচ বিলিয়ন ডলার আইসিটি এক্সপোর্টের জন্য তরুণরাই কাজ করবে। এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে তরুণদের সব ধরনের সহযোগিতা দেবে আইসিটি ডিভিশন।

২০১৭ সালের ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড আয়োজনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী দেখিয়েছেন ডিজিটাল বাংলাদেশের কতটা অগ্রগতি হয়েছে- যোগ করেন তিনি।

‘মার্কেটেভার বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা আল-আমিন কবির সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। আলোচনায় অংশ নেন ডেভসটিম লিমিটেডের সহ-প্রতিষ্ঠাতা নাসির উদ্দিন শামীম, বিজস্কোপের প্রতিষ্ঠাতা নাহিদ হাসান।

জাহিদ হাসান বলেন, যে কোনো একটি বিষয় নিয়ে কাজ করতে হবে। সেই কাজ ভালভাবে শিখে ওই বিষয়ে নিজের দক্ষতা বাড়াতে হবে। সারা বছর কাজ করা যাবে এমন বিষয়ে কাজ করতে হবে। লক্ষ্য ঠিক থাকলে এবং নিয়মিত কনটেন্ট দিলে সফলতা আসবেই।

তিনি আরও বলেন, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ে কাজ করতে গেলে অনেকে প্রথমে হীনমন্যতায় ভোগে। কারণ অনেকেরই জানা নেই আমরা কোন বিষয়ে কাজ করব। এজন্য আমার পরামর্শ হলো নতুন বিষয়ে কাজ করতে হবে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্পর্কে ভাল ধারণা থাকতে হবে।

আরএম/এমএমজেড/জেআইএম

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]