জাতিসংঘে বাংলা চাই : শেরপুরে উৎসাহ-উদ্দীপনায় চলছে ভোটদান

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি শেরপুর
প্রকাশিত: ১২:৫৩ পিএম, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

জাতিসংঘের ৭ম দাপ্তরিক ভাষা হোক বাংলা’ -স্লোগানে শেরপুরে জাতিসংঘে বাংলা চাই অনলাইন ভোটিং ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় শেরপুর সরকারি কলেজ চত্বরে এ ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করেন অধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এ কে এম রিয়াজুল হাসান।

দেশের অন্যতম খাদ্য প্রক্রিয়াজাত প্রতিষ্ঠান প্রাণ-এর সহায়তায় শীর্ষস্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কম ‘জাতিসংঘের ৭ম দাপ্তরিক ভাষা হোক বাংলা’ স্লোগানে এ অনলাইন ভোটিং কার্যক্রমের আয়োজন করেছে।

Sherpur

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিবার-পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডা. পীযুষ চন্দ্র সূত্রধর। ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধের নানা ইতিহাসের সাক্ষী শেরপুরে এ ক্যাম্পেইন উদ্বোধনের পরপরই ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ভোট দিচ্ছেন তরুণ-তরুণীরা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. এ কে এম রিয়াজুল হাসান বলেন, ভাষার জন্য প্রাণ দেওয়ার ইতিহাস পৃথিবীর আর কোনো জাতির নেই। কিন্তু আমাদের বাঙালিদেরকে মায়ের ভাষা বাংলাকে পৃথিবীর বুকে প্রতিষ্ঠিত করতে রক্ত দিতে হয়েছে। তাই একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের মর্যাদা লাভ করেছে।

Sherpur

তিনি আরও বলেন, ভাষার মাসে জাতিসংঘে বাংলাকে দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে মর্যাদার দাবি খুবই যৌক্তিক একটি দাবি। আমরা চাই, জাতিসংঘে বাংলাকেও দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে মর্যাদা দেওয়া হোক। আশা করি জাগো নিউজের এ অনলাইন ভোটিং কার্যক্রম একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

অনলাইনে ভোট দেওয়ার পর উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে শেরপুর সরকারি কলেজের ব্যবস্থাপনা বিষয়ের সম্মান দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র বিতার্কিক এমদাদুল হক রিপন বলেন, বাংলা আমাদের মাতৃভাষা। জাতিসংঘে যদি বাংলা দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে মর্যাদা পায় সেটা হবে খুব আনন্দের। এ জন্য অনলাইনে ভোট দিয়ে খুব খুশি লাগছে।

Sherpur

কলেজ ছাত্র জারিন তাসলিম লিসা, প্রাপ্তি হোড়, খন্দকার শাহরিয়ার সৌরভ অনলাইনে ভোট দিয়ে আনন্দ প্রকাশ করেন। তারা বলেন, আমরা সবাই চাই, বাংলা জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা হোক। এ জন্য ভোট দিয়েছি। ভোট দিয়ে এ কার্যক্রমে আমাদের সম্পৃক্ত হতে সুযোগ দেয়ার জন্য জাগো নিউজকে অভিনন্দন জানাই।

রক্তদানের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ‘রক্তদিন জীবন বাঁচান (রজীবা)’ সভাপতি সোহেল রানা বলেন, জাতিসংঘে ৭ম দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে বাংলাকে প্রতিষ্ঠিত করার এ দাবি খুবই ন্যয়সঙ্গত একটি দাবি। এ জন্য আমরা নিজেরা ভোট দিচ্ছি এবং অন্যদেরকে ভোটদানে উৎসাহিত করছি। ভোটদানের সংখ্যা যতো বাড়বে, আমাদের দেশের আবেদনও ততো জোরালো হবে। এ জন্য সবাইকে অনলাইনে এ ভোটিং কার্যক্রমে অংশ নেওয়া প্রয়োজন।

হাকিম বাবুল/আরএস/এমএস

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]

আপনার মতামত লিখুন :