‌‘বিটিআরসির চেয়ারম্যানসহ ঊর্ধ্বতনদের সরে দাঁড়ানো উচিত’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:১২ পিএম, ১২ অক্টোবর ২০১৯

বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দায়ভার নিয়ে সরে দাঁড়ানো উচিত। দেশের সকল গ্রাহক দ্রুত সময়ের মধ্যে এই পাওনা আদায় ও মীমাংসা চায়।

শনিবার (১২ অক্টোবর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, গত ১৮ সেপ্টেম্বর অর্থমন্ত্রী গ্রামীণফোন ও রবি’র কাছে পাওনা যথাক্রমে ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ ও ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকা আদায়ের লক্ষ্যে বিটিআরসির সাথে আপোস-মীমাংসা করে বলেছিলেন, তিন সপ্তাহের মধ্যে ‘উইন উইন সিচুয়েশনে’ থেকে বকেয়া পাওনা আদায় করা হবে। যাতে করে কারোরই হার-জিত না হয়।

তিনি বলেন, অর্থমন্ত্রীর ‘উইন উইন সিচুয়েশন’র সময় অতিবাহিত হয়েছে কোনো অগ্রগতি ছাড়াই। অথচ জিপি ও রবি গত ৭ অক্টোবর বিটিআরসির পাঠানো (৫ সেপ্টেম্বর) লাইসেন্স বাতিলের নোটিশের জবাবে বলেছে, বিটিআরসির অডিট আপত্তি ভিত্তিহীন। অর্থমন্ত্রীর নির্দেশনা ছিল জিপি ও রবির মামলা প্রত্যাহর করবে এবং বিটিআরসির তাদের নোটিশও প্রত্যাহার করবে। কিন্তু কোনো পক্ষই এই নির্দেশনা মান্য করেনি। বরং উল্টো বিটিআরসির পাওনাকে ভিত্তিহীন বলে জনগণের টাকায় অডিট নিষ্পত্তির ব্যয় নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

মহিউদ্দিন আহমেদ আরও বলেন, বিটিআরসি যদি প্রমাণ করতে না পারে যে অপারেটরদের বক্তব্য সঠিক নয়, তাহলে বিটিআরসির চেয়ারম্যাasনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দায়ভার নিয়ে সরে দাঁড়ানো উচিত।

এএস/এমএসএইচ

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]