শক্তিশালী ব্যাটারি ও নান্দনিক ডিজাইনে রিয়েলমি সি ১২

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:২৭ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২০

আকর্ষণীয় প্রাইস পয়েন্টে চমক নিয়ে আসতে জুড়ি নেই স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমির। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশে প্রবেশের পর থেকে তরুণদের পছন্দের স্মার্টফোন হয়ে উঠেছে টেক-ট্রেন্ডসেটার ব্র্যান্ড রিয়েলমি। প্রতিটি ফোনে আধুনিক সব ফিচার ও হার্ডওয়্যারের সাথে চোখ ধাঁধানো ডিজাইনের ডিভাইস এনে তরুণদের দৈনন্দিন প্রযুক্তিগত চাহিদা পূরণ করছে রিয়েলমি।

সম্প্রতি মাত্র ১০ হাজার ৯৯০ টাকা বাজারমূল্যে রিয়েলমি তাদের সি সিরিজের নতুন সংযোজন– রিয়েলমি সি ১২ নিয়ে এসেছে, যাতে ৬ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের মেগা ব্যাটারির পাশাপাশি নানা কনটেন্ট উপভোগের জন্য আছে বিশাল ডিসপ্লে। এছাড়া দৈনন্দিন কাজ ও বিনোদনে বাড়তি মাত্রা যোগ করতে কী কী আছে এ ফোনে, সেগুলো দেখে নেয়া যাক।

৫৭ দিনের স্ট্যান্ডবাই সাপোর্টসহ ৬,০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি

সম্প্রতি স্মার্টফোনের ব্যবহার আগের থেকে অনেকটাই বেড়েছে। অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহণ করা থেকে শুরু করে অনলাইনে প্রেজেন্টেশন, গান উপভোগ, সিনেমা বা টিভি সিরিজ দেখা, অনলাইনে গেম খেলায় স্মার্টফোনে একটি বড় ব্যাটারি থাকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সে লক্ষ্যে সি সিরিজের নতুন ফোনে ৬,০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের বিশাল একটি ব্যাটারি দেয়া হয়েছে, যা ১০ ঘণ্টারও বেশি পাবজি গেমিং, ২৮ ঘণ্টার বেশি ইউটিউব দেখা, স্পটিফাই ব্যবহার করে ৬০ ঘণ্টা গান, সম্পূর্ণ চার্জে ৪৬ ঘণ্টারও বেশি কল করা যাবে। উপরন্তু ব্যাটারিটি ৫৭ দিন পর্যন্ত স্ট্যান্ডবাই থাকবে।

সি ১২-এ ‘অ্যাপ কুইক ফ্রিজার’ ফিচারে একটি নির্দিষ্ট সময় পর অব্যবহৃত অ্যাপগুলো বন্ধ করে ব্যাটারির সাপোর্ট বাড়াতে সাহায্য করবে। এর পাশাপাশি উন্নত স্ক্রিন ব্যাটারি অপটিমাইজেশনে ফোন ব্যবহারের ওপর ডিসপ্লের কিছু কিছু ইফেক্ট কমিয়ে ব্যাটারি ব্যাকআপ বাড়াবে। সি ১২ এর উন্নত রিভার্স চার্জিংয়ের মাধ্যমে অন্য ফোনও মাইক্রো ইউএসবি ওটিজি দিয়ে চার্জ দেয়া যাবে।

চমৎকার ডিসপ্লে, শক্তিশালী প্রসেসর এবং ট্রিপল এআই ক্যামেরা

যেকোনো কনটেন্ট দেখায় বিনোদনের মাত্রা বাড়াতে রিয়েলমি সি ১২তে আছে ৬.৫-ইঞ্চির এইচডি প্লাস মিনি ড্রপ ডিসপ্লে, যার স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও ৮৮.৭ শতাংশ। পছন্দের টিভি সিরিজ হোক বা সিনেমা কিংবা গেমিং- প্রতিটি ক্ষেত্রেই মিলবে অনন্য বিনোদন।

রিয়েলমি সি ১২ এ আছে ট্রিপল এআই রিয়ার ক্যামেরা। ১৩ মেগাপিক্সেলের প্রধান ক্যামেরায় থাকছে এফ/২.২ এর বড় অ্যাপারচার এবং ৪এক্স জুম। এর সাথে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেলের একটি ব্ল্যাক অ্যান্ড হোয়াইট পোর্ট্রেট লেন্স, যা দিয়ে অল্প আলোতেও চমৎকার ও নান্দনিক পোর্টেট তোলা যাবে। এছাড়া ৪ সেন্টিমিটারের ম্যাক্রো লেন্সে ব্যবহারকারীরা মাইক্রো জগতের বিস্ময়কর সৌন্দর্য তুলে আনতে পারবেন। তাছাড়া ৫ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড ফ্রন্ট ক্যামেরায় তুলতে পারবেন প্রাণবন্ত সেলফি। এছাড়া ৩০ ফ্রেমে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিওর পাশাপাশি আছে এইচডিআর, টাইম-ল্যাপ্স ও প্যানোরামার সুবিধা।

চোখ ধাঁধানো নান্দনিক ডিজাইন

অনন্য জ্যামিতিক ডিজাইনের সি ১২ এর পেছনের অংশে ট্রাপিজয়েডের বিভিন্ন কোণ দিয়ে তিনটি ভাগে বিভক্ত করে এবং বিভিন্ন রঙেরছটা তৈরি করে। ভিউ অ্যাঙ্গেল পরিবর্তিত হওয়ার সাথে সাথে প্রতিটি ভাগে রঙ এবং আলোও পরিবর্তিত হয়। এই জ্যামিতিক গ্রেডিয়েন্ট ডিজাইনে প্রত্যাশিত, আবার ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট তৈরি করে। মেরিন ব্লু ও কোরাল রেড- এ দুটি চোখ ধাঁধানো রঙে রিয়েলমি সি ১২ আরো রঙিন ওআকর্ষণীয়। এর পাশাপাশি এর অনন্য টেক্সচারে ব্যবহারকারীদের হাতে এটি হবে আরো আরামদায়ক এবং স্মার্টফোনটির ব্যাকসাইডে খুব সহজে ফিঙ্গারপ্রিন্টের ছাপ পড়বে না। তাছাড়া চমৎকার গ্রিপের ফলে আঁচড় কিংবা স্লাইডিংয়ের সম্ভাবনাও কম। পাশাপাশি থাকছে রিয়ার মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট আনলক সুবিধাও।

শক্তিশালী প্রসেসরে চমৎকার গতি

গেমিংসহ যেকোনো কাজে সর্বোচ্চ গতি নিশ্চিত করতে রিয়েলমি সি ১২-এ ব্যবহার করা হয়েছে ৬৪-বিট অক্টাকোর ১২ ন্যানোমিটারে হেলিও জি৩৫ চিপসেট। কর্টেক্স এ৫৩ সিপিইউ’র সাথে এই চিপসেট সর্বোচ্চ ২.৩ গিগাহার্টজ গতিতে কাজ করে, ফলে কাজ ও গেমিং এক্সপেরিয়েন্সও হবে চমৎকার। ৩ গিগাবাইট এলপিডিডিআর৪এক্স র‍্যাম আগের তুলনায় ২০ শতাংশ উন্নততর। ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজের পাশাপাশি মাইক্রো এসডি কার্ডের ব্যবহারে ২৫৬ গিগাবাইট পর্যন্ত স্টোরেজ বাড়ানোর সুবিধা আছে।

রিয়েলমি সি সিরিজের পূর্ববর্তী ফোনগুলো সেরা সফটওয়্যার-হার্ডওয়্যারের সমন্বয়ে স্মার্টফোন বাজারে ব্যাপক সাড়া ফেলে। উদ্ভাবনী সব ফিচার ও বিস্ময়কর অপটিমাইজেশনে মাত্র ১০ হাজার ৯৯০ টাকা মূল্যে রিয়েলমি সি ১২ ও স্মার্টফোন উৎসাহীদের মাঝে একই রকম প্রতিক্রিয়া ফেলবে। রিয়েলমি সি ১২ কেনার জন্য ক্লিক করুন- https://realmebd.com/brandshop/

এএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]