বৈদ্যুতিক স্কুটার নিয়ে ৮ বছর পর ফিরছে হিন্দুস্থান মোটরস

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৪৫ পিএম, ২৬ মে ২০২২

বিশ্বে বৈদ্যুতিক গাড়ির চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে। পরিবেশ বাঁচাতে ছোট-বড় সব সংস্থাই বৈদ্যুতিক যানবাহনকে আঁকড়ে ধরেই ব্যবসা বাড়াতে চাইছে। এবার হিন্দুস্থান মোটর দীর্ঘ আট বছর পর নতুন প্রজন্মের বৈদ্যুতিক যান নিয়েই ফিরছে।

সম্প্রতি ইউরোপের একটি গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থার সঙ্গে হিন্দুস্থান মোটরসের চুক্তি হয়েছে। যদিও এই ইউরোপীয় সংস্থার পরিচয় গোপন রাখা হয়েছে। সূত্রের খবর, হিন্দুস্থান মোটরস বর্তমানে ইলেকট্রিক স্কুটার দিয়ে তাদের দ্বিতীয় যাত্রা শুরু করতে চলেছে। যেখানে প্রায় ৩০০ থেকে ৪০০ কোটি টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে চলেছে তারা।

বিড়লা গোষ্ঠীর এই হিন্দুস্থান মোটরস স্বাধীনতার ঠিক এক বছর পর ১৯৪৮ সালে হুগলির উত্তরপাড়ায় গাড়ি উৎপাদনের কাজ শুরু করে। বহু বছর ধরে সাফল্যের সঙ্গে কাজ করে আসলেও ২০১৪ সালে হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায় সেই যাত্রা। তবে এবার দীর্ঘ আট বছর পর ফের একবার ফিরতে চলেছে হিন্দুস্থান মোটরস। বর্তমানে দুই চাকার যান দিয়ে পুনরায় গাড়ির বাজারের পা রাখতে চলেছে তারা।

এবিষয়ে হিন্দুস্থান মোটরসের ডিরেক্টর উত্তম বোস বলেন, ‘ইউরোপের একটি সংস্থার সঙ্গে আমাদের চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়ে গিয়েছে। বর্তমানে আমাদের লক্ষ্য দু’চাকার গাড়ি তৈরি করা। আগামী বছরের মার্চ মাসের মধ্যে কাজ শুরু হয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। আমাদের হাতে এখন ২৮৬ একর জমি রয়েছে। একবার সবকিছু মিটে গেলে কাজ আরও দ্রুতগতিতে এগোবে।’

উত্তম বসু আরও জানিয়েছেন বিগত কয়েক বছরের আর্থিক পদক্ষেপের পারকে এখন ঋণমুক্ত হতে পেরেছে হিন্দুস্থান মোটরস। সম্প্রতি কোম্পানির মোট সম্পত্তি ধনাত্মকে পৌঁছেছে। ২০১৪ সালের অক্টোবরে উত্তরপাড়ার কারখানার কর্মবিরতির নোটিশ দেয় ঋণে জর্জরিত কোম্পানিটি। সে সময় কোম্পানির কর্মী সংখ্যা ছিল ২৩০০। যা এখন কমে ৩০০ হয়েছে।

তবে এখন ঋণ শোধ হয়েছে তাদের। শুরুতে তারা চীনের ইলেকট্রিক স্কুটার উৎপাদনকারী সংস্থাগুলোর সঙ্গে কাজ করতে চেয়েছিল। কিন্তু পরে ইউরোপীয় সংস্থার সঙ্গেই কাজ করার সিন্ধান্ত নেন তারা।

সূত্র: হিন্দুস্থান টাইমস

কেএসকে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]