ঢাকা-মালে সরাসরি ফ্লাইট: ভ্রমণে অপরূপ সৌন্দর্যের হাতছানি

মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল
মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল , বিশেষ সংবাদদাতা মালদ্বীপ থেকে ফিরে
প্রকাশিত: ০৯:২৯ এএম, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে গত ১৯ নভেম্বর থেকে প্রথমবারের মতো বেসরকারি ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স ঢাকা-মালে-ঢাকা সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করেছে। মাত্র দুই সপ্তাহ আগে চালু হলেও ফ্লাইটটি মালদ্বীপে অবস্থানকারী লাখো প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মী ও ভ্রমণপ্রিয় পর্যটকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। বর্তমানে ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে সপ্তাহে তিনদিন ঢাকা-মালে-ঢাকা ফ্লাইট চলছে। সরাসরি ফ্লাইট চালুর আগে পর্যন্ত মালদ্বীপিয়ানসহ বিভিন্ন এয়ারলাইন্সে শ্রীংলকায় ট্রানজিট হয়ে মালদ্বীপে যেতে হতো। এতে অতিরিক্ত যাত্রা খরচের (যাওয়া আসা ৬৫ হাজার) তো লাগতোই, সময়ও লাগতো বেশি।

নয়নাভিরাম ও অপরূপ সৌন্দর্যের দেশ মালদ্বীপে ঘুরে বেড়াতে ভ্রমণপিপাসুদের জন্য ৫৮ হাজার ৯৯০ টাকায় (যেখানে বিমান টিকেট, দুইরাত তিন দিন হোটেলে অবস্থান, সকালের নাস্তা এবং বিমানবন্দরে যাওয়া আসা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে) সাশ্রয়ী প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। মাত্র দুই সপ্তাহ আগে ইউএস-বাংলার সরাসরি ফ্লাইট চালু হলেও ‘মর্নিং শোজ দ্য ডে’ প্রবাদের মতো স্বল্প সময়েই সরাসরি এ ফ্লাইটট ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

বেসরকারি ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) মো. কামরুল ইসলাম জাগো নিউজের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স গত ১৯ নভেম্বর থেকে ঢাকা-মালদ্বীপ-ঢাকা সরাসরি ফ্লাইটি পরিচালনা শুরু করেছে। প্রাথমিকভাবে সপ্তাহে তিনদিন ফ্লাইট পরিচালনা করছে। সুষ্ঠু পরিকল্পনা ও তা বাস্তবায়নের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে বিশেষ করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সুলভ মূল্যে দেশে ফেরার সুযোগ করে দিতে গত ৮ বছরে বিভিন্ন দেশে ফ্লাইট পরিচালনা করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা রেখে ঢাকা-মালে-ঢাকা সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করেছে। মাত্র ৪৫ হাজার ৫৪৫ টাকায় রিটার্ন টিকিট বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া ভ্রমণপিপাসু বাংলাদেশি ট্যুরিস্টদের সেবাদানে মাত্র ৫৮ হাজার ৯৯০ টাকায় সাশ্রয়ী প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। মূলত মালদ্বীপে অবস্থানরত বাংলাদেশি প্রবাসী কর্মী ও ট্যুরিস্টদের কথা মাথায় রেখে সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনা হচ্ছে।

jagonews24

তিনি জানান, দুবাই, মাস্কাট, দোহা, সিঙ্গাপুর ও কুয়ালামপুর- প্রতিটি জায়গায় বাংলাদেশি শ্রমিকরা অবস্থান করছেন। মালদ্বীপেও লক্ষাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছে। প্রবাসী কর্মী ও ট্যুরিস্টদের সেবা দেওয়ার জন্যই এ সরাসরি ফ্লাইট।

কামরুল ইসলাম বলেন, সরাসরি ফ্লাইট চালুর ফলে একটি মাত্র ইমিগ্রেশনের মাধ্যমে যাত্রীরা বাংলাদেশে যেতে পারছেন। কিন্তু অন্যান্য বিদেশি ফ্লাইট অন্য দেশে ট্রান্সজিট হয়ে যাওয়ার ফলে যাত্রীদের সময় ও ভোগান্তি হচ্ছে। সরাসরি ফ্লাইট চালু হওয়ায় অর্থ ও সময় দুটোই সাশ্রয় হচ্ছে। মাত্র দুই সপ্তাহ আগে এটি চালু হলেও যাত্রীদের ব্যাপক সাড়া মিলছে। বর্তমানে ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে ফ্লাইট পরিচালিত হচ্ছে। তাদের মধ্যে প্রায় ২০ শতাংশ পর্যটক।

তিনি বলেন, অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি মালদ্বীপ। বিধাতা যেন দুহাত ভরে দেশটির প্রকৃতির রূপ ফুটিয়ে তুলেছেন। নৈসর্গিক দৃশ্য, স্বর্গের দ্বীপ, প্রকৃতির কন্যা যেন সৌন্দর্যের রানী। যা দুনিয়াজোড়া মানুষকে মুগ্ধ করে চলেছে। সেখানকার শান্ত, সরল ও মনোরম পরিবেশ মুগ্ধ করে সবাইকে। ছোট ছোট দ্বীপগুলো যেন নানা রঙে সেজে পর্যটকদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে। সমুদ্রবিলাসী ভ্রমণপিপাসুরা নির্জনতায় হারাতে চাইলে, সমুদ্রের অবগাহনে নিজেকে নতুন করে আবিষ্কার করতে চাইলে, প্রকৃতির সুশোভিত ও অপরূপ সৌন্দর্যের সুধা পান করতে চাইলে, মালদ্বীপই হতে পারে আকর্ষণীয়, প্রিয় ও আদর্শ স্থান।

jagonews24

কামরুল ইসলাম বলেন, গত দেড়-দুই বছর করোনার কারণে অনেকেই বিদেশে ট্যুর করতে পারেনি। করোনার প্রকোপ কিছুটা কমে আসায় এবং পরীক্ষা শেষ হওয়ায় অনেকেই ঘুরতে বের হচ্ছেন। সেক্ষেত্রে অনেকেই ৫৮ হাজার ৯৯০ টাকার প্যাকেজে মালদ্বীপ যাওয়ার জন্য বুকিং দিচ্ছেন।

মালদ্বীপে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোহাম্মদ নাজমুল হাসান গত ৪ ডিসেম্বর দেশটিতে সফররত বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন গণমাধ্যমের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক মতবিনিময়কালে বলেন, মালদ্বীপে লক্ষাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মী রয়েছে। তাদের জন্য সরকারিভাবে একটি ফ্লাইট পরিচালনার জন্য হাইকমিশন গত কয়েক বছর ধরে চেষ্টা করেছে। কিন্তু সফল হয়নি। এক্ষেত্রে বেসরকারি ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স গত ১৯ নভেম্বর থেকে সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করায় তাদের ধন্যবাদ।

মোহাম্মদ নুরুল আমিন। গত ১৭ বছর যাবত মালদ্বীপে রয়েছেন। দু-তিন বছর পর পর দেশে যান। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, সরাসরি ফ্লাইট না থাকায় অন্য দেশে ট্রানজিট হয়ে দেশে ফেরায় নানা ভোগান্তির পাশাপাশি সময়-খরচ দুটোই বেশি লাগতো। অপেক্ষাকৃত সাশ্রয়ী বিমান ভাড়ায় সরাসরি ফ্লাইট চালু হওয়ায় আমরা ভীষণ খুশি।

এমইউ/এমকেআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]