ভ্রমণ

ভ্রমণের ক্লান্তি এড়াতে যা করবেন

সঙ্গত কারণেই পর্যটকদের অনেক বেশি পথ ভ্রমণ করতে হয়। ভ্রমণে ব্যবহৃত হতে পারে বিভিন্ন বাহন। আর তাই দীর্ঘ ভ্রমণে শরীরে চলে আসে ক্লান্তি। এই দীর্ঘ ভ্রমণের ক্লান্তি এড়াতে কিছু নিয়ম-কানুন মেনে চললেই হয়। আসুন দীর্ঘ ভ্রমণে ক্লান্তিহীন থাকার কয়েকটি টিপস জেনে নেই আজ-

পূর্ব পরিকল্পনাদীর্ঘ ভ্রমণে যাওয়ার আগে ভ্রমণ পরিকল্পনা করে নিন। বের হওয়ার একসপ্তাহ আগে থেকে ভালো করে ঘুমিয়ে নিন। সেইসঙ্গে নিয়মতি শরীর চর্চা করুন। নিয়মিত স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ করুন। তবে ক্যাফেইন ও চর্বি জাতীয় খাবার বর্জন করুন।

সক্রিয় থাকুন বিমানবন্দর বা যে কোনো স্টেশনে পৌঁছার পর আপনার শরীরকে কোথাও এলিয়ে না দিয়ে সব সময় সক্রিয় থাকার চেষ্টা করুন। শরীরে আলসেমী ভাব হলে বিরক্ত না হয়ে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করুন। বিমান ওড়ার বা বাহন ছাড়ার আগে শরীরের আড়মোড়া ভেঙে নিন। এতে আপনার শরীরের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক হবে।

স্বাস্থ্যকর খাবারভ্রমণের সময় এবং গৌন্তব্যে পৌঁছার পর স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ করুন। এ ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের ফল ও শাকসবজি খেতে পারেন। ক্যাফেইন, সুগার জাতীয় খাবার বাদ দিন। সেইসঙ্গে সম্ভব হলে বিমানে পরিবেশন করা অতিরিক্ত লবণাক্ত খাবারও এড়িয়ে চলুন।

আরও পড়ুন- পাইলটদের খাবার কেন আলাদা

স্বাস্থ্যকর পানীয়বিমানে ওঠার পর উত্তেজনা দমিয়ে রাখুন। সেইসঙ্গে এক বোতল ফ্রেশ পানি ও ভেষজ চা নিয়ে নিন। যাতে আপনি ক্যাফেইনযুক্ত কঠিন পানীয় পরিহার করতে পারেন।

মেডিটেশনবিমান উড্ডয়নের ২০ মিনিট আগে চোখ বন্ধ করুন এবং মেডিটেশন করুন। অবতরণের পরেও এ কাজের পুনরাবৃত্তি করুন। সেইসঙ্গে এমন গভীরভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস নিন, যাতে শ্বাস বের করে দেওয়ার সময় আপনার মনে হবে পেট একেবারেই খালি হয়ে গেছে।

আয়েশ করুন ভ্রমণের সময় মজাদার কোনো সিনেমা দেখুন, মজাদার কোনো গল্প পড়ুন বা গান শুনুন। যা আপনার মেজাজে অনেক শিথীলতা এনে দিতে পারে। হঠাৎ যদি ঘুম পেতে থাকে তাহলে চট করে সিনেমা দেখা বা বই পড়া বন্ধ করে দিয়ে আয়েশ করুন।

বিশ্রাম নিন ঘুমের চেয়ে বিশ্রামকেই বেশি গুরুত্ব দিন। অতিরিক্ত আরাম পেতে ভ্রমণের সময় এয়ার ফোন বা আই মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন।

আরও পড়ুন- বিদেশ ভ্রমণের আগে-পরে যা করবেন

স্বাভাবিকতানতুন স্থানে যাওয়ার পর শরীরের চাহিদা মোতাবেক কাজ করুন। অযথা জোর করে ঘুমানোর চেষ্টা করবেন না। বিশ্রাম নিয়ে নতুন স্থানের পরিবেশের সঙ্গে নিজেকে খাপ খাইয়ে নেওয়ার চেষ্টা করুন।

ঘুম থেকে বিরতনতুন স্থানে পৌঁছেই ঘুমানোর চেষ্টা করবেন না। এতে শরীরের ক্লান্তি আরও বেড়ে যেতে পারে। তবে দুপুর ২টা থেকে ৪টার মাঝখানে সর্বোচ্চ ২০ মিনিট ঘুমাতে পারেন।

সময় বদল নতুন জায়গায় যাওয়ার পর স্থানীয় সময় অনুযায়ী ঘড়ির সময় বদলে নিন। সেইসঙ্গে নিজের দেশের সময়ের সঙ্গে মিলিয়ে চলার চেষ্টা বন্ধ করুন।

এসইউ/জেআইএম