জাতীয়

গাড়িচালকদের জন্য মহাসড়কের পাশে বিশ্রামাগার স্থাপন করা হবে

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দেশের প্রধান চারটি মহাসড়কের পাশে গাড়িচালকদের জন্য সরকার বিশ্রামাগার ও পার্কিং স্টেশন স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে। বুধবার সংসদে জাতীয় পার্টির সদস্য মো. মুজিবুল হকের তারকা চিহ্নিত এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী মহাসড়কে চালকদের একটানা ৫ ঘণ্টার অতিরিক্ত সময়ে গাড়ি না চালাতে এবং তাদের জন্য মহাসড়কে বিশ্রামাগার স্থাপনের নির্দেশনা প্রদান করেছেন। এ লক্ষ্যে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে কুমিল্লার নিমসারে, ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের পাশে সিরাজগঞ্জের পাঁচিলায়, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে হবিগঞ্জের জগদীশপুরে এবং ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে মাগুরা জেলার লক্ষ্মীকাণ্ড নামক স্থানে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত বিশ্রামাগার ও পার্কিং স্টেশন স্থাপনের লক্ষ্যে ডিপিপি অনুমোদন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।’

পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী বলেন, ‘স্কিল ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট (এসইআইপি)’ প্রকল্পের আওতায় ৫ বছরে মোট ১ লাখ দক্ষ গাড়িচালক সৃষ্টি করার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। বিআরটিসি প্রকল্প মেয়াদে অর্থাৎ ২০২২ সালের মধ্যে মোট ৩৬ হাজার গাড়িচালক তৈরি করবে। চলতি বছরের জুন মাসের মধ্যে ৮ হাজার গাড়িচালকের প্রশিক্ষণ সমাপ্ত হবে।’

মো. মুজিবুল হকের অপর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, এবারের ঈদযাত্রায় দুর্ঘটনা কম হয়েছে, তবে মৃত্যুর হার বেশি ছিল। থ্রি হুইলার, ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক, লেগুনা, নসিমন, করিমন নিয়ম ভেঙে মহাসড়কে উঠে যাওয়ায় দুর্ঘটনাগুলো সংঘটিত হয়েছে এবং মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পেয়েছে। এসব ছোট-ছোট যানবাহন চলাচলে নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে।

দুর্ঘটনা রোধে সড়ক শৃঙ্খলার ব্যাপারে মন্ত্রী সকলকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান।

এইচএস/এসএইচএস/পিআর