অর্থনীতি

নিরীক্ষা যোগ্যতা হারাল আহমেদ অ্যান্ড আক্তার

পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর এবার নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠান আহমেদ অ্যান্ড আক্তারের লাইসেন্স নবায়ন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দ্য ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউনট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএবি)।

বৃহস্পতিবার আইসিএবির নেতারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। আইসিএবির এই সিদ্ধান্তের ফলে নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠানটি নিরীক্ষা কাজের যোগ্যতা হারিয়েছে। অর্থাৎ, আহমেদ অ্যান্ড আক্তার আর কোনো প্রতিষ্ঠানের নিরীক্ষা কার্যক্রম করতে পারবে না।

আইসিএবি সূত্রে জানা গেছে, আহমেদ অ্যান্ড আক্তারের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে চলতি বছরের ৩০ জুন। পরে প্রতিষ্ঠানটি থেকে নবায়নের জন্য নির্ধারিত ফি দেয়া হয়নি। ফলে প্রতিষ্ঠানটির লাইসেন্স নবায়ন না করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়ছে।

এর আগে মঙ্গলবার (২ জুলাই) বিএসইসির কমিশন সভায় সিদ্ধান্ত হয়, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত এবং প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করতে চায় এমন কোম্পানির নিরীক্ষা কাজ করতে পারবে না নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠান আহমেদ অ্যান্ড আক্তার।

প্রতিষ্ঠানটির নিরীক্ষা কাজের ওপর এমন নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়ে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো সাইফুর রহমান জানান, আহমেদ অ্যান্ড আক্তারের পার্টনার শাহেদ মোহাম্মদ অবসরের কারণে নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠানটি পার্টনারশিপ থেকে প্রোপ্রাইটরশিপে পরিণত হয়েছে। যা দ্য ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউনট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএবি) থেকে গত ২৬ মে এক চিঠির মাধ্যমে জানানো হয়। এর মাধ্যমে আহমেদ অ্যান্ড আক্তার শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্ট কোম্পানির আর্থিক হিসাব নিরীক্ষার যোগ্যতা হারিয়েছে।

তিনি আরও জানান, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত আহমেদ অ্যান্ড আক্তারকে তালিকাভুক্ত কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন নিরীক্ষা ও সনদপত্র প্রদান, প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও), আরপিও, রাইটস ইস্যুর মাধ্যমে উত্তোলনকৃত তহবিল ব্যবহার-সংক্রান্ত বিবরণী নিরীক্ষা ও সনদপত্র প্রদান এবং কর্পোরেট গভর্নেন্স কোড পরিপালন সংক্রান্ত সনদপত্র প্রদান থেকে বিরত থাকবে বলে কমিশন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এমএএস/এসআর/পিআর