জাতীয়

‘আমরা বকাউল্লাহ ওনারা শোনাউল্লাহ সংসদ গরিবউল্লাহ’

গ্যাসের দাম বাড়ানোর পর তা নিয়ে জাতীয় সংসদে আলোচনা করতে নোটিশ দিয়ে কোনো সাড়া না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।

বৃহস্পতিবার চলতি অধিবেশনের সমাপনী দিনে ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নেন তিনি।

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের শরিক মেনন বলেন, রুলস অব প্রসিডিউরে আছে। সুতরাং এটা সম্পর্কে জানার অধিকার আমার আছে। অবশ্য আমাদের সংসদ সদস্য মঈন উদ্দীন খান বাদল আমাকে বলছিলেন, আপনি খামোখা এটা নিয়ে ইনসিস্ট করে লাভ নেই। কারণ আমরা হচ্ছি বকাউল্লাহ আর ওনারা শোনাউল্লাহ আর এই সংসদ হচ্ছে গরিবউল্লাহ।

তিনি বলেন, ‘মাননীয় স্পিকার, যদি এ আলোচনাটা না হয় তাহলে সংসদ আরও গরিব হবে বলে আমার ধারণা। আমি এ ব্যাপারে আপনার বক্তব্য চাচ্ছি।’

পরের অধিবেশনের সভাপতি ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, ‘মাননীয় সদস্য, আপনারা শুধু বকাউল্লাহ বকাই নন আর আমরা শোনাউল্লাহ শোনাই নই, আপনারা বক্তব্য রাখেন সে বিষয়ে কিন্তু সরকার কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করে। আপনার ৬৮ বিধির নোটিশটি আমি সেদিনও বলেছি, এটা মাননীয় স্পিকারের বিবেচনাধীন আছে। বিবেচনা করা হবে না, এমনতো কোনো কথা নেই। বিষয়টি আমরা আপনাকে পরে অবহিত করব।’

গ্যাসের দাম বাড়ানোয় ক্ষোভ প্রকাশ করে গত রোববার (৭ জুলাই) সংসদে বক্তব্য দিয়েছিলেন রাশেদ খান মেনন। গ্যাসের দাম নিয়ে সংসদে আলোচনার জন্য কার্যপ্রণালি বিধির ৬৮ ধারায় নোটিশ দিয়েছিলেন তিনি।

মেনন বলেন, ‘গ্যাসের দাম নিয়ে সংসদে আলোচনার জন্য তিনি ৬৮ বিধিতে একটি নোটিশ দিয়েছেন। হাসানুল হক ইনু, মঈন উদ্দীন খান বাদল, ফজলে হোসেন বাদশা, মোস্তফা লুৎফুল্লাহ এবং লুৎফননেসা খান তার নোটিশে সমর্থন করেছেন।’ তবে সমাপনী দিনেও নোটিশ গৃহীত হয়েছে না বাতিল হয়েছে তা মেননকে জানানো হয়নি।

এইচএস/এসআর/এমকেএইচ