দেশজুড়ে

কিশোরগঞ্জে প্রতি ঘণ্টায় বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী

কিশোরগঞ্জে প্রতি ঘণ্টায় বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। এরই মধ্যে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৭শ ছাড়িয়ে গেছে। বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১১৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ৪৪ জন। অবস্থার অবনতি হওয়ায় এ পর্যন্ত ৯৪ জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। রেফার্ডকৃতদের মধ্যে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক জনের মৃত্যুও হয়েছে।

বর্তমানে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ৪৫ জন, বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৩১ জনসহ বিভিন্ন উপজেলা হাসপাতালে ১১৫ জন রোগী ভর্তি আছেন।

জেলা সদরের বাইরেও বিভিন্ন উপজেলায় ছড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গু। কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল ও জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের বাইরে আব্দুল হামিদ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ২ জন, করিমগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালে ১০ জন, বাজিতপুরে ৩ জন, পাকুন্দিয়ায় ২ জন, কুলিয়ারচরে ৬ জন, নিকলীতে ১ জন, তাড়াইলে ৫ জন, ভৈরবে ৯ জন এবং হোসেনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য প্রকল্পে ১ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে হাসপাতালগুলোতে বিনামূলে ডেঙ্গু শনাক্তকরণ কিট পাওয়া গেলেও রক্তের প্লাটিলেট পরীক্ষা করতে হচ্ছে বাইরের ক্লিনিক থেকে।

কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডাক্তার মো. হাবিবুর রহমান জানান, ডেঙ্গু শনাক্তকরণ কিটের কিছুটা স্বল্পতা থাকলেও চিকিৎসায় কোনো প্রভাব পড়ছে না। হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসকরা আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছেন।

নূর মোহাম্মদ/এফএ/এমকেএইচ