দেশজুড়ে

সুনামগঞ্জ হানাদার মুক্ত হয় আজ

৬ ডিসেম্বর, সুনামগঞ্জ মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে বীর মুক্তিযোদ্ধারা পাক হানাদারদের পরাস্ত করে সুনামগঞ্জ মহকুমা সদর মুক্ত করেন। ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর ভোরে মেজর এম.এ মোত্তালেবের নেতৃত্বে স্থানীয় ইব্রাহিমপুর গ্রামে সমবেত হন মুক্তিযোদ্ধারা।

পরবর্তীতে সংঘবদ্ধ হয়ে সুনামগঞ্জের পিটিআই (প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট) স্কুল ক্যাম্পে হানাদার বাহিনীর অবস্থান লক্ষ্য করে চারদিক ঘেরাও করে তারা আক্রমণ চালান। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রাণপণ লড়াই আর মুক্তিকামী জনগণের দুর্বার প্রতিরোধে পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেরে ওইদিন পাক হানাদার বাহিনী সুনামগঞ্জ ছেড়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। তাদের চূড়ান্ত পরাজয় ঘটে।

পাক বাহিনীর পরাজয়ের পর এলাকার সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে মুক্তির উল্লাস। আনন্দ উদ্বেলিত কন্ঠে ‘জয়বাংলা’ ধ্বনি আর হাতে প্রিয় স্বদেশের পতাকা নিয়ে ছোটাছুটি করতে থাকেন মুক্তিযোদ্ধাসহ সবাই। সুনামগঞ্জ জেলা শহরের বিভিন্ন রাস্তায় বের হয় আনন্দ মিছিল। স্বাধীন বাংলাদেশের জয়ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে ওঠে জেলা শহর।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ জানান, সকালে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে সুনামগঞ্জ মুক্ত দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়েছে। এরপর সুনামগঞ্জ শহরে প্রথম নির্মিত শহীদ মিনারে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, শোভাযাত্রা এবং পরে শহরের শহীদ আবুল হোসেন মিলনায়তনে আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে।

মোসাইদ রাহাত/আরএআর/এমএস