দেশজুড়ে

রড দিয়ে পিটিয়ে স্ত্রীর হাত-পা ভেঙে দিল স্বামী

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে স্ত্রীর দুই হাত ও দুই পা ভেঙে দেয়ার অভিযোগে স্বামী নূর ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার রহিমানপুর ইউনিয়নের পল্লীবিদ্যুৎ এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

Advertisement

আহত স্ত্রীর নাম পারভীন আক্তার। তিনি জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বড়বাড়ী ইউনিয়নের মালঞ্চা গ্রামের শফিকুল ইসলামের মেয়ে এবং সদর উপজেলার রহিমানপুর ইউনিয়নের পল্লীবিদ্যুৎ এলাকার নূর ইসলামের স্ত্রী। পারভীনকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালের চিকিৎসক সাকিব ইবনে আব্দুল্লাহ বলেন, পারভীনের দুই হাত ও দুই পা রডজাতীয় কিছু দিয়ে আঘাত করে ভেঙে দেয়া হয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আহত পারভীন আক্তার বলেন, আট মাস আগে নূর ইসলামের সঙ্গে আমার বিয়ে হয়। এখন আমি ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। বিয়ের পর থেকেই নূর ইসলাম প্রায়ই নেশা করে বাড়ি ফিরে আমাকে মারপিট করত। বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার মালঞ্চা গ্রামে বাবার বাড়িতে বেড়াতে যাই। শুক্রবার বিকেলে বাবার বাড়ি থেকে ফিরে আসি। বাড়িতে এসে দেখি সে নেশা করে মাতাল অবস্থায় রয়েছে। তার কাছে যাওয়া মাত্রই সে আমাকে চড়-থাপ্পড় মারতে শুরু করে। একপর্যায়ে সে ঘরের দরজা ভেতর থেকে তালা দিয়ে বন্ধ করে দেয়। এরপর ঘরে থাকা একটি লোহার রড দিয়ে আমার দুই হাত ও দুই পায়ে আঘাত করে ভেঙে দেয়। পরে পরিবারের লোকজন দরজা ভেঙে আহত অবস্থায় আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

Advertisement

সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভীরুল ইসলাম জানান, খবর পাওয়ার পর তাৎক্ষণিকভাবে অভিযান চালিয়ে নূর ইসলামকে আটক করা হয়। হাসপাতালে গিয়ে আহত পারভীন আক্তারের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আরএআর/এমএস