EN
  1. Home/
  2. দেশজুড়ে

ফুটবলে বিশ্বজয়ের স্বপ্ন হাওরপাড়ের কিশোরীদের

জেলা প্রতিনিধি | সুনামগঞ্জ | প্রকাশিত: ১১:৩৫ এএম, ০৫ নভেম্বর ২০২০

সুনামগঞ্জে হাওরের প্রত্যন্ত অঞ্চলে যেখানে কিশোরীদের ঘরের বাইরে যাওয়াটাই কঠিন, সেখানে সকল বাধা-বিপত্তি অতিক্রম করে ফুটবল নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে গ্রামের অর্ধশতাধিক কিশোরী। শুরুতে স্থানীয় লোকজনের নানা সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে তাদের। সমাজের চোখ রাঙানি ও অভাবসহ নানা বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে এসব কিশোরীরা এখন খেলছে জাতীয় পর্যায়ে।

বুধবার (০৪ নভেম্বর) কথা হয় হাওর পাড়ের এসব কিশোরীদের সঙ্গে। জাগো নিউজের কাছে নিজেদের কথাগুলো তুলে ধরেন তারা।

Sunamganj-woman-football-2

কেউ দেড় থেকে দুই মাইল হেঁটে, কেউ আবার নৌকায় করে প্রতিদিন ভোরে এসে জড়ো হয় অনুশীলনে। দিরাই উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের কিশোরী ফুটবলারদের এগিয়ে চলার গল্প ইতোমধ্যে সুনামগঞ্জসহ দেশব্যাপী ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছে।

শুরুর দিকে কিশোরীরদের ফুটবল খেলা নিয়ে সমাজে নানা কথা উঠলেও এগিয়ে চলেছে পূর্ণিমা, জুবলি, একা, মৌ, পলি, ডেইজিসহ অর্ধশাধিক কিশোরী।

Sunamganj-woman-football-3

২০১৯ সালের এপ্রিলের শুরুর দিকে ১৫ জন কিশোরী নিয়ে স্বপ্নচুড়া ফুটবল স্পোর্টিং ক্লাবের যাত্রা শুরু হলেও এখন ৭০-৭৫ কিশোরী ফুটবলার রয়েছে এ ক্লাবে। তবে নিয়মিত মাঠে খেলছে ৩৫ কিশোরী।

ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলায় খেলার পাশাপাশি ৬ জন খেলছে জাতীয় পর্যায়ের লীগে। সর্বশেষ বাংলাদেশ মহিলা ফুটবল প্রিমিয়ার লীগে অংশগ্রহণের জন্য ৭ম দল হিসেবেও তালিকাভুক্ত হয় কিশোরীদের এই দল।

Sunamganj-woman-football-4

ফুটবলার কিশোরী লিজা রাণী তালুকদার জানান, দিরাই উপজেলা থেকে তার বাড়ি প্রায় ৫ কিলোমিটার দূরে হওয়ায় নৌকায় আসতে এক ঘণ্টারও বেশি সময় লেগে যায়। তারপরও এতটুকু আশা ছাড়েন না। ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে মাঠে অনুশীলনে আসেন।

পূর্ণিমা বলেন, শুরুতে স্থানীয় লোকজনের নানা সমালোচনা শুনতে হয়েছে। কিন্তু নানা বাধা বিপত্তি পেরিয়ে আজও আমি ফুটবল খেলছি। আশা করি একদিন আমি আমার সপ্নে পৌঁছাতে পারব।

Sunamganj-woman-football-5

মেয়েদের এমন সাফল্যে খুশি অভিভাবকরা। একদিন মেয়েরা দেশের জন্য সুনাম কুড়িয়ে আনবে আর গড়ে উঠবে বিশ্বমানের খেলোয়ার হিসেবে এমন আশা অভিভাবকদের।

তারা বলেন, মেয়ের সঙ্গে আমাদেরও আগ্রহ রয়েছে ফুটবল নিয়ে। অনেকেই অনেক কিছু বলার পরও আমরা মেয়েদের মাঠে পাঠাচ্ছি খেলার জন্য। আমরা এখন লোকের কথা কানে তুলি না। ভবিষ্যতে মেয়েরা ভালো করতে পারবে এটাই আশা করি।

হাওরপাড়ের কিশোরীদের স্বপ্ন পূরণের জন্য কাজ করছেন ফুটবলপ্রেমী তরুণ ও দিরাই স্বপ্নচুড়া ফুটবল স্পোর্টিং ক্লাবের কোচ ও প্রতিষ্ঠাতা রাকিব আহমেদ।

Sunamganj-woman-football-5

তিনি জানান, দেড় বছর আগে এই ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেছি হাওরাঞ্চল দিরাইয়ের মাঠে। এই এলাকার মেয়েরা অনেক কষ্ট করে পড়ালেখা করে, সেখানে ফুটবল খেলাটা তাদের আয়ত্বের মধ্যে নিয়ে এসেছি। মোটামুটি ভালো খেলছে,আরও ভালো অবস্থানে যাওয়ার সম্ভবনা দেখি। আমি সবসময় চেষ্টা করি তাদের যেন ভালো অবস্থানে নিতে পারি। তাদের এখন মূল স্বপ্ন জাতীয় দলে খেলা।

সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রিড়া সংস্থার সভাপতি মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ জানান, খেলাধুলায় সুনামগঞ্জের যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। জেলা, বিভাগ ও জাতীয় পর্যায়ের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় সুনামগঞ্জের খেলোয়াড়রা বিশেষ প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছে। বিশেষ করে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টে মেয়েরা ভালো করেছে। দিরাই উপজেলার মেয়েদের দলটি সেরা দল। বর্তমানে তারা সারা দেশে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করছে।

লিপসন আহমেদ/এফএ/পিআর