চঞ্চলকে নিয়ে অমিতাভ রেজার আয়নাবাজি

প্রকাশিত: ০৭:৫৮ এএম, ২৯ মার্চ ২০১৫
চঞ্চলকে নিয়ে অমিতাভ রেজার আয়নাবাজি

প্রায় ১৫ বছর ধরে নির্মাণের সাথে জড়িত জনপ্রিয় বিজ্ঞাপন ও টিভি নাটক পরিচালক অমিতাভ রেজা। এবার তিনি নাম লেখাতে চলেছেন চলচ্চিত্র নির্মাণে। দুইবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার পাওয়া অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীকে প্রধান চরিত্র করে তার প্রথম ছবির নাম ‘আয়নাবাজি’।

রেবাবার একটি সংবাদ সম্মেলনে কনটেন্ট ম্যাটারস লি: প্রযোজিত এবং হাফ স্টপ ডাউন লি: নির্মিত, অমিতাভ রেজা’র পরিচালনায় প্রথম চলচ্চিত্র ‘আয়নাবাজি’র আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন আয়রাবাজি ছবির নির্মাতা অমিতাভ রেজা, অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী, কাহিনীকার সৈয়দ গাওসুল আলম শাওন, প্রযোজক আদিল খান ও অন্যান্যরা।

গাউসুল আলম শাওনের কাহিনীতে ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছেন অমন বিশ্বাস আর তার সাথে যৌথভাবে সংলাপ লিখেছেন আদনান আদীব খান।  

ছবির নাম ঘোষণা করে অমিতাভ রেজা বলেন, ‘আমাদের দেশীয় চলচ্চিত্রের যে গৎবাধা ছক তার বাইরে গিয়ে তৈরি হচ্ছে আয়নাবাজি। আমি এখানে একটি গল্প বলার চেষ্টা করেছি। এখানে একজন আয়না নামের লোক আছেন যাকে ঘিরেই ছবির গল্প। সে সমাজের খুব পরিচিত একজন। স্বভাবে বদ মানুষ। বহুরূপি তার যোগ্যতা। এ চরিত্রে অভিনয় করবেন সবার প্রিয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী।’

অমিতাভ আরো বলেন, ‘হয়তো সবার জন্য আমি ছবি বানাতে পারবো না। তবে এটুকু চেষ্টা করবো, যারা ছবিটি দেখবেন তাদের বারবার দেখার ইচ্ছে জাগবে।’

তিনি ছবির কাহিনীকার, চিত্রনাট্যকার, প্রযোজনা কর্তৃপক্ষ, কলাকুশলীদের অভিনন্দন জানান। সেইসাথে চমৎকার একটি গানের জন্য ধন্যবাদ জানান দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড চিরকুট’কে। এই গানের দলটি আয়নাবাজি ছবির জন্য দু’টি গান তৈরি করার দায়িত্ব পেয়েছে। এরইমধ্যে ‘দুনিয়া’ নামে একটি গানের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে ওই গানটি পরিবেশনের পর সবাই গানটির বেশ প্রশংসা করেন।

চিরকুট ব্যান্ডের প্রধান সুমী জানালেন, এই গানটি ছাড়াও ছবির থিম সং তৈরি করবে তার দল।

অমিতাভ রেজা জানালেন, ছবিতে প্রায় ৪-৫ টির মতো গান রাখা হবে। চিরকুটের পাশাপাশি অন্য গানগুলোর জন্য হাবিব ওয়াহিদ, অর্ণব, ফুয়াদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে।

সম্মেলনে অমিতাভ রেজার সাজে হাজির হয়ে সবাইকে চমকে দেন চঞ্চল চৌধুরী। নিজের বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘আমি খুবই সৌভাগ্যবান, অমিতাভ রেজার মতো গুণী নির্মাতা তার প্রথম ছবিতেই আমাকে কাজ করতে ডেকেছেন বলে। আমি আমার যোগ্যতার সবটুকু ঢেলে দিয়ে চেষ্টা করবো আয়নাবাজিতে পরিচালকের মন্দ মানুষ আয়নাকে সফল করতে।’

ছবিতে দেখা যাবে- এই শহরের ভিতরে আরও একটা শহর আছে। যার গল্প এখন আমরা আর শুনি না। ‘আয়নাবাজি’ সেই শহরের গল্প। যে শহরে এখনও সকালে দুধওয়ালা আসে, ফেরিওয়ালারা হাঁকডাক দেয়, বাচ্চারা দল বেঁধে নাটক শিখতে যায়। মহল্লার পুরীর দোকানে চা খাওয়া হয়, ঠাট্টা-মশকরা করা বখাটেরা।

আয়না সেই শহরের একজন বাসিন্দা। সহজ আর সরল, সেখানে তার একাকী জীবন আর ছোট বাচ্চাদের নিয়ে একটা নাটকের দল। তার মাঝে হঠাৎ হয়ে যায় একটা সহজাত প্রেম- হৃদি। জীবনের প্রয়োজনে সে নতুন শহরে আসে। কিন্তু মুখোশ পাল্টিয়ে, অন্য মানুষ হয়ে, চেনা কিছু মানুষের ডাকে।

সেই মানুষগুলোর জন্য আয়না কাজ করে জীবিকার প্রয়োজনে, তারপর ফিরে যায় তার ছোট্ট মহল্লায়। এ’রকম আসা-যাওয়ার মাঝে কখনো আটকে পড়ে নষ্ট শহরের বেড়াজালে। বের হয়ে ছুটে যাওয়ার চেষ্টা করেও পারে না আয়না পারে না তার মহল্লার আয়না হতে। রঙিন মুখোশ আর খুলতে পারে না সে।

আয়না তার ফেলে আসা প্রেম আর নাটকের স্কুলের কাছে যেন আর ফিরে যেতে পারে না। যে অভিনয়কে ভালোবেসে আয়না এই শহরকে মঞ্চ বানাতে চায়, সেই মঞ্চ একদিন হয়ে যায় ফাঁসির মঞ্চ।

যার জল্লাদের হাসির কাছে এই শহরের সেরা অভিনেতা পরাজয়ের শেষ বিন্দুতে দাঁড়িয়ে থাকে। এই যুগের স্পার্টাকাস আয়না যেন তার শেষ নাটকের মঞ্চে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করে মানুষখেকো মানুষগুলোর। এমনই অনুভূতি নাড়া দেয়ার গল্প নিয়ে তৈরি হচ্ছে আয়নাবাজি ছবিটি।  

ছবিটিতে কে কে অভিনয় করছেন সে বিষয়ে চুড়ান্ত ঘোষণা দেননি পরিচালক। আপাতত জানিয়েছেন চঞ্চল চৌধুরীর পাশাপাশি ছবিতে আরো অভিনয় করবেন গাউসুল আলন শাওন, লুতফর রহমান জর্জ, শওকত ওসমান, হীরা চৌধুরী।

আগামী মে মাসেই ঢাকার বিভিন্ন লোকেশনে শুরু হবে আয়নাবাজির শুটিং। এ বছরই ছবিটি মুক্তি দেয়ার ঘোষণাও দিলেন বিজ্ঞাপন নির্মাণে ব্যাতিক্রমী ধারা তৈরি করা অমিতাভ রেজা।
 
এলএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :

এই বিভাগের সর্বশেষ