EN
  1. Home/
  2. আন্তর্জাতিক

ইরানকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিনের আড়াই লাখ ডোজ দিল চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | প্রকাশিত: ০৫:২৮ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

চীনের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি সিনোফার্মের করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের ২ লাখ ৫০ হাজার ডোজ রোববার ইরানে পৌঁছেছে। ডোজগুলো ইরানকে বিনামূল্যে দিয়েছে চীন সরকার।

ইরানের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের মুখপাত্র কিয়ানৌশ জাহানপোর এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘চীন সরকারের এ ধরনের কার্যক্রম প্রশংসাযোগ্য এবং ইরানি জাতির ঐতিহাসিক স্মৃতিতে এটি থেকে যাবে।’

ভ্যাকসিনের ডোজগুলো যেদিন ইরানে পৌঁছেছে সেই একই দিন দেশটিতে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৬০ হাজার ছাড়িয়েছে। এছাড়া মোট আক্রান্তের সংখ্যা সেখানে ১৬ লাখেরও বেশি।

এ মাসের শুরুর দিকে ইরানের রাশিয়ার স্পুটনিক ৫ ভ্যাকসিন এসে পৌঁছায়। এই ভ্যাকসিন দিয়েই সামনের সারির স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রয়োগের মাধ্যমে ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম শুরু করেছে ইরান। সিনোফার্মের ভ্যাকসিন দেশটিতে আমদানিকৃত দ্বিতীয় ভ্যাকসিন।

ইরানের জাতীয় করোনাভাইরাসরোধী টাস্ক ফোর্সের মুখপাত্র আলিরেজা রাইসি জানান, সরকার আশা করছে আগামী ২০ মার্চ থেকে ১৩ লাখ ঝুকিপূর্ণ ইরানিকে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হবে এবং এক মাসের মধ্যে তা শেষ করা হবে।

তিনি আরও জানান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভ্যাক্স কর্মসূচীর আওতায় অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৪২ লাখ ডোজ ইরান কবে পাবে তা শীঘ্রই জানা যাবে। ভারতের ভারত বায়োটেক কোম্পানির ভ্যাকসিন আমদানির সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান ইরানি কর্মকর্তারা।

ইরানে স্থানীয়ভাবে তৈরি ভ্যাকসিন কোভিরান বারেকাটের প্রথম ধাপের ট্রায়াল এ মাসের শুরুর দিকে শেষ হয়েছে। ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী দল তখন জানায়, এটি করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ৯০ শতাংশ কার্যকর এবং ব্রিটেনে পাওয়া ভাইরাসের নতুন ধরনের বিরুদ্ধেও পুরোপুরি কার্যকর।

রোববার থেকে ইরানের দ্বিতীয় করোনা ভ্যাকসিন রাজি কোভ-পার্সের ট্রায়াল শুরু হয়েছে। কর্মকর্তারা জানান, মধ্যপ্রাচ্যের বৃহত্তম ভ্যাকসিন উৎপাদনস্থল গড়ে তুলবে ইরান। বসন্তকালের শুরু থেকে প্রতিমাসে বারেকাট ভ্যাকসিনের এক কোটি ডোজ উৎপাদন করা হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তারা।

এমকে/জিকেএস