আইপিএলের বিশাল অঙ্কের পুরস্কার সম্পর্কে জেনে নিন

প্রকাশিত: ০২:৩৯ পিএম, ১৩ মে ২০১৯, আপডেট: ০২:৩৯ পিএম, ১৩ মে ২০১৯

চকচকে জার্সি, সেই সাথে আইপিএল খেলে বিভিন্ন দেশের ক্রিকেটারদের অর্থনৈতিক রমরমা অবস্থা। এযেন সত্যিই চাঁদের হাট।  গ্লামারাস এই ট্রফির পুরস্কার মূল্যও কম ‘গ্লামারাস’ নয় কিন্তু। আইপিএল ট্রফির সঙ্গে বিশাল অঙ্কের টাকাও পেল চ্যাম্পিয়ন দলসহ অন্যান্যরা ।

জয়ী দল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে ২০ কোটি টাকার চেক। এই অর্থের পঞ্চাশ শতাংশ পাবে জয়ী ফ্র্যাঞ্চাইজি আর বাকি পঞ্চাশ শতাংশ ক্রিকেটারদের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হবে।

জয়ী দল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে ২০ কোটি টাকার চেক। এই অর্থের পঞ্চাশ শতাংশ পাবে জয়ী ফ্র্যাঞ্চাইজি আর বাকি পঞ্চাশ শতাংশ ক্রিকেটারদের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হবে।

রানার্স দল চেন্নাই সুপার কিংস পেল ১২.৫ কোটি টাকার চেক। অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে চেক তুলে দেওয়া হয়।

রানার্স দল চেন্নাই সুপার কিংস পেল ১২.৫ কোটি টাকার চেক। অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে চেক তুলে দেওয়া হয়।

ম্যান অব দ্য ফাইনাল যশপ্রীত বুমরা পেলেন পাঁচ লাখ টাকা। চার ওভারে মাত্র ১৪ রান দিয়ে দু’উইকেট তুলে নিয়েছেন যশপ্রীত বুমরা।

ম্যান অব দ্য ফাইনাল যশপ্রীত বুমরা পেলেন পাঁচ লাখ টাকা। চার ওভারে মাত্র ১৪ রান দিয়ে দু’উইকেট তুলে নিয়েছেন যশপ্রীত বুমরা।

হ্যারিয়ার সুপার স্ট্রাইকার অব দ্য সিজনের সম্মান আন্দ্রে রাসেলের। পুরস্কারের অর্থমূল্য ১ লাখ টাকা। এ ছাড়াও ‘মোস্ট ভ্যালুয়েবল প্লেয়ার’ সম্মানের জন্য আরও ১ লাখ টাকা পাচ্ছেন রাসেল। পেয়েছেন গাড়িও।

হ্যারিয়ার সুপার স্ট্রাইকার অব দ্য সিজনের সম্মান আন্দ্রে রাসেলের। পুরস্কারের অর্থমূল্য ১ লাখ টাকা। এ ছাড়াও ‘মোস্ট ভ্যালুয়েবল প্লেয়ার’ সম্মানের জন্য আরও ১ লাখ টাকা পাচ্ছেন রাসেল। পেয়েছেন গাড়িও।

অরেঞ্জ ক্যাপের দাবিদার সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। তিনিও পাচ্ছেন ১০ লাখ টাকা। ১২ ম্যাচে ৬৯২ রান করে অজি ওপেনার সবার আগে।

অরেঞ্জ ক্যাপের দাবিদার সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। তিনিও পাচ্ছেন ১০ লাখ টাকা। ১২ ম্যাচে ৬৯২ রান করে অজি ওপেনার সবার আগে।

চেন্নাইয়ের স্পিনার ইমরান তাহির পার্পল ক্যাপের অধিকারী। ১৭ ম্যাচে ২৬ উইকেট নেওয়া তাহির পাচ্ছেন ১০ লাখ টাকা।

চেন্নাইয়ের স্পিনার ইমরান তাহির পার্পল ক্যাপের অধিকারী। ১৭ ম্যাচে ২৬ উইকেট নেওয়া তাহির পাচ্ছেন ১০ লাখ টাকা।

‘ক্যাচ অব দ্য সিজন’ অবশ্যই মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের কিয়েরন পোলার্ডের দখলে। ঠিক বাউন্ডারি লাইনের পাশে সুরেশ রায়নার ক্যাচটি দখল করেন তিনি। তিনিও পাচ্ছেন ১ লাখ টাকা। সঙ্গে একটি গাড়িও।

‘ক্যাচ অব দ্য সিজন’ অবশ্যই মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের কিয়েরন পোলার্ডের দখলে। ঠিক বাউন্ডারি লাইনের পাশে সুরেশ রায়নার ক্যাচটি দখল করেন তিনি। তিনিও পাচ্ছেন ১ লাখ টাকা। সঙ্গে একটি গাড়িও।

এমার্জিং প্লেয়ার অর্থাৎ আইপিএল যে তারকা ক্রিকেটারের উত্থান দেখল, সেই শুভমান গিল পাচ্ছেন ১০ লাখ টাকা। কেকেআরের অন্যতম ক্রিকেটার তিনি। তার হাত ধরে বেশ কয়েকটি ম্যাচে জয় পেয়েছে নাইটরা।

এমার্জিং প্লেয়ার অর্থাৎ আইপিএল যে তারকা ক্রিকেটারের উত্থান দেখল, সেই শুভমান গিল পাচ্ছেন ১০ লাখ টাকা। কেকেআরের অন্যতম ক্রিকেটার তিনি। তার হাত ধরে বেশ কয়েকটি ম্যাচে জয় পেয়েছে নাইটরা।

কে এল রাহুলের দখলে রইল ‘স্টাইলিশ প্লেয়ার অব দ্য সিজন’। সারা গায়ে ট্যাটু রয়েছে এই তারকার, ঘড়ি, সানগ্লাসেস, হাঁটাচলা সবেতেই রাহুল হিরো। উপস্থিত না থাকায় বন্ধু হার্দিক তার হয়ে সম্মান গ্রহণ করেন। এই পুরস্কারের অর্থমূল্য ১০ লাখ টাকা।

কে এল রাহুলের দখলে রইল ‘স্টাইলিশ প্লেয়ার অব দ্য সিজন’। সারা গায়ে ট্যাটু রয়েছে এই তারকার, ঘড়ি, সানগ্লাসেস, হাঁটাচলা সবেতেই রাহুল হিরো। উপস্থিত না থাকায় বন্ধু হার্দিক তার হয়ে সম্মান গ্রহণ করেন। এই পুরস্কারের অর্থমূল্য ১০ লাখ টাকা।

‘ড্রিম ১১ গেম চেঞ্জার অব দ্য ম্যাচ’ অ্যাওয়ার্ড রাহুল চহারের। রাহুলের অন্যতম অস্ত্র হল নিখুঁত লাইন-লেংথ এবং বৈচিত্র, লেগব্রেকে দক্ষতা। ফাইনালেও চার ওভারে ১৪ রান দিয়ে রাহুলের এক উইকেটের স্পেলটাও মুম্বাইয়ের জয়ের অন্যতম একটা কারণ। এই পুরস্কারের অর্থমূল্য ১ লাখ টাকা।

‘ড্রিম ১১ গেম চেঞ্জার অব দ্য ম্যাচ’ অ্যাওয়ার্ড রাহুল চহারের। রাহুলের অন্যতম অস্ত্র হল নিখুঁত লাইন-লেংথ এবং বৈচিত্র, লেগব্রেকে দক্ষতা। ফাইনালেও চার ওভারে ১৪ রান দিয়ে রাহুলের এক উইকেটের স্পেলটাও মুম্বাইয়ের জয়ের অন্যতম একটা কারণ। এই পুরস্কারের অর্থমূল্য ১ লাখ টাকা।

দ্রুততম অর্ধশতরানের জন্য মনোনীত হলেন হার্দিক পান্ডে। পুরস্কারের অর্থমূল্য ১০ লাখ টাকা।

দ্রুততম অর্ধশতরানের জন্য মনোনীত হলেন হার্দিক পান্ডে। পুরস্কারের অর্থমূল্য ১০ লাখ টাকা।

সেরা পিচ এবং সেরা মাঠের সম্মান পেল পাঞ্জাব ও হায়দরাবাদ। এই পুরস্কারের অর্থমূল্য মোট ৫০ (২৫+২৫) লাখ টাকা।

সেরা পিচ এবং সেরা মাঠের সম্মান পেল পাঞ্জাব ও হায়দরাবাদ। এই পুরস্কারের অর্থমূল্য মোট ৫০ (২৫+২৫) লাখ টাকা।

ফেয়ার প্লে সম্মানের কোনো অর্থমূল্য নেই। তবে একটা অসাধারণ ট্রফি পেল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

ফেয়ার প্লে সম্মানের কোনো অর্থমূল্য নেই। তবে একটা অসাধারণ ট্রফি পেল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

আরও