1. Home/
  2. খেলাধুলা

হেরোইনসহ গ্রেফতার পেসার, দ্বিতীয় সুযোগের আহ্বান মালিঙ্গার

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশিত: ১০:৩১ এএম, ০২ জুন ২০২০

দেশের অন্যতম সেরা তারকা লাসিথ মালিঙ্গা, টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কও বটে। তাই দলের বাকি খেলোয়াড়দের আগলে রাখার একটা অঘোষিত দায়িত্বও বর্তায় তার কাঁধে। সে দায়িত্বের অংশ হিসেবেই এবার শেহান মাদুশঙ্কার পাশে দাঁড়ালেন মালিঙ্গা।

গত সপ্তাহের শনিবার (২৩ মে) লকডাউনের মধ্যেই এক সহচরসহ গাড়ির মধ্যে হেরোইন নিয়ে ধরা পড়েন শ্রীলঙ্কার ২৫ বছর বয়সী পেসার শেহান মাদুশঙ্কা। তার কাছ থেকে উদ্ধার হয় আড়াই গ্রামের কাছাকাছি নিষিদ্ধ হেরোইন।

এর চার দিনের মধ্যেই শ্রীলঙ্কান বোর্ডের অনির্দিষ্টকালীন সময়ের জন্য জরুরি ভিত্তিতে নিষিদ্ধ করেছেন মাদুশঙ্কাকে। আদালতের রায়ের ওপর ভিত্তি করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে লঙ্কান বোর্ড। তবে তার আগে অধিনায়ক মালিঙ্গাকে নিজের পাশেই পাচ্ছেন মাদুশঙ্কা।

যেহেতু বয়স মাত্র ২৫, তাই মাদুশঙ্কার মাঝে আগামী দিনে অনেক সম্ভাবনা দেখছেন মালিঙ্গা। ফলে মাদুশঙ্কার বিরুদ্ধে বড় কোন শাস্তির বদলে পুনর্বাসনের প্রস্তাব দিয়েছেন এ লঙ্কান কিংবদন্তি। তার মতে, সবারই একটা দ্বিতীয় সুযোগ প্রাপ্য।

শ্রীলঙ্কান দৈনিক ডেইলি নিউজকে মালিঙ্গা বলেছেন, ‘মাদুশঙ্কা শ্রীলঙ্কার দীর্ঘদিনের একটা বিনিয়োগ। যে কি না দেশের জন্য অনেক বড় সম্পদ হতে পারে। আমাদের খুঁজে বের করতে হবে সে কেনো মাদক সেবল করছে। এটা হতে পারে ব্যক্তিগত সমস্যার কারণে। কিন্তু এটা কোনভাবেই সমাধান নয়।’

মালিঙ্গা আরও বলেন, ‘মাদকসেবীরা হয়তো অনেক কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে গিয়েছে এবং মাদক সেবন বন্ধ করতে চায়। কিন্তু মাদকের প্রতি নেশা এবং আমাদের ব্যবস্থা হয়তো তাদের এ কাজটি সহজে করতে দেয় না। সে হয়তো সামনে এসে বলতে পারছে না যে, তার সাহায্য দরকার।’

মাদুশঙ্কার পুনর্বাসনের প্রস্তাব দিয়ে ঝাঁকড়া চুলের এ পেসার আরও বলেন, ‘আমাদের উচিৎ ওকে পুনর্বাসিত করা এবং সঠিক পথে ফিরিয়ে আনা। ওর বয়স মাত্র ২৫ বছর এবং হতে পারে বন্ধু নির্বাচনে ভুল করেছে। যা আজকের পরিণতি দিয়েছে।’

তবে দেশের আইন ভঙ্গ করায়, সেই শাস্তির ব্যাপারে ছাড় দেয়ার কথা বলেননি মালিঙ্গা। তার মতে মাদক আইনে শাস্তি হোক, তবে আবার সঠিক পথে ফেরানোর ব্যবস্থাটাও রাখা হোক। যাতে পুনরায় শ্রীলঙ্কা দলের হয়ে মাঠ মাতাতে পারেন ২৫ বছর বয়সি মাদুশঙ্কা।

মালিঙ্গা বলেছেন, ‘শাস্তি দেয়ার সময় আমাদের দেশে বিদ্যমান আইন দিয়েই শাস্তি হওয়া উচিৎ। তবে এরপর তার জন্য সঠিক পথে ফেরার রাস্তা খোলা রাখতে হবে। আইনি সব প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার অন্তত তিন বছর তাকে হাই পারফরম্যান্স সেন্টারে রাখা উচিৎ। সবাই কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যায়। আমাদের উচিৎ ওকে ও ওর পরিবারকে সাহায্য করা।’

২০১৮ সালের বাংলাদেশ সফরে অভিষেক হয়েছিল মাদুশঙ্কার। সেবার ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল ম্যাচে খেলতে নেমে বিশ্বের চতুর্থ ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডে অভিষেকেই হ্যাটট্রিক করেন তিনি। একই সফরে খেলেন একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। কিন্তু এরপর আর জাতীয় দলে দেখা যায়নি ওয়েনাপুয়ার এ পেসারকে।

এসএএস/জেআইএম