ভিডিও EN
  1. Home/
  2. খেলাধুলা

দেশের ফুটবলের সব জৌলুস ধুয়েমুছে গেলো : আসলাম

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশিত: ০৮:২৮ পিএম, ২৮ মার্চ ২০২৩

কী ফুটবল খেললো বাংলাদেশ? প্রশ্ন করতেই লম্বা হাসি সাবেক তারকা ফুটবলার শেখ মোহাম্মদ আসলামের। হাসলেন যে! আসলামের এক কথায় জবাব-‘লজ্জায়’।

‘আমি পুরো ম্যাচটা দেখেছি। বাংলাদেশ যে ফুটবল খেলেছে, সেটা আমাদের জন্য লজ্জার। এটা কোনো ফুটবলই নয়। বরং বেটার খেলে, প্রতিজ্ঞা করে সিশেলস ম্যাচটি জিতেছে। জিততে হলে কিভাবে খেলতে হয়, সেটা দেখিয়েছে র্যাংকিংয়ে ১৯৯ নম্বরে থাকা দলটি। আমরা পারিনি। আমাদের ফুটবলারদের শারীরিক ভাষা জয়ের জন্য ছিল না। ভাবখানা এমন ছিল যে, আমরা রাজা-বাদশা, ওরা কোথাকার কে! আমাদের ফুটবলাররা পুরো আয়েসী ফুটবল খেলেছে’-বলছিলেন শেখ মোহাম্মদ আসলাম।

‘অতি পারিশ্রমিক দেশের ফুটবলের ক্ষতি করছে’-এই শিরোনামে কয়েক বছর আগে আপনার একটা সাক্ষাৎকার প্রকাশ হয়েছিল জাগো নিউজে। অনেক ফুটবলার সেই সাক্ষাৎকার দেখে আপনাকে নানা ভাষায় তিরস্কার করেছিলেন। আপনার কি এখনো মনে হয়, অতি পারিশ্রমিক একটা সমস্যা? ক্লাবে বেশি টাকা পান বলে জাতীয় দলে পা বাঁচিয়ে খেলেন ফুটবলাররা?

শেখ মোহাম্মদ আসলামের জবাব, ‘আমাদের স্ট্যান্ডার্ড এখন এটাই। এই সিশেলসের কাছে হারের পর এটা প্রমাণ হলো যে, আমাদের ফুটবল আসলেই নেমে গেছে। আমার মনে হয়, এই দল ডিআরইউ (ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি) দলের বিপক্ষেও জিততে পারবে না। অধঃপতন, অবক্ষয় আর অতি অর্থের সঙ্গে আয়েসী ফুটবল খেলেছেন আমাদের খেলোয়াড়রা।’

ম্যাচে সমস্যাটা কী দেখলেন? শেখ আসলাম বলেন, ‘সমস্যার শেষ নেই। রক্ষণ থেকে মধ্যমাঠ, আক্রমণভাগ-কোনো সমন্বয় ছিল না। ভালো পাস ছিল না, ভালো শট ছিল না। এক কথায় এটা কোনো ফুটবলই না। আমি বলব, বাংলাদেশ ফুটবল খেলেছে রাগবি স্টাইলে। আসল ক্রীড়া কৌশল যেন ভুলে গেছেন ফুটবলাররা। বল ধরতে গিয়ে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়ের ওপর পরে যাচ্ছেন, পেছন থেকে টেনে ধরছেন। এ যেন রাগবি স্টাইলে ফুটবল খেলা। আমাদের ফুটবলের জৌলুস, রস সব ধুয়েমুছে গেলো’-বলছিলেন আসলাম।

কোনো নির্দিষ্ট জোন নয়, কোনো পজিশনের খেলোয়াড়রাই নিজেদের দক্ষতার পরিচয় দিতে পারেননি উল্লেখ করে শেখ মোহাম্মদ আসলাম বলেছেন,‘কোথাও দেখলাম না কেউ দক্ষতার পরিচয় দিতে পেরেছেন। স্ট্রাইকাররা ছোট বক্স থেকে বল আকাশে মারছেন। আরেকটি বিষয় হলো, এখন আক্রমণভাগের জন্য আমাদের বিদেশি খেলোয়াড়দের নাগরিকত্ব দিতে হচ্ছে। এটা ফুটবলের জন্য যে কত বড় লজ্জার, তা ভাষায় প্রকাশ করার নয়।’

সিশেলস অপেশাদার দল উল্লেখ করে জাতীয় দলের এই সাবেক অধিনায়ক আরও বলেন, ‘আপনাদের লেখনীতেই দেখেছি সিশেলসের ফুটবলাররা বিভিন্ন পেশার। এমন একটি দলের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে বাংলাদেশের দাপুটে ফুটবল খেলা উচিত ছিল। সেটা তারা পারেনি। সিশেলস আগেই নাকি ঘোষণা দিয়েছিল এই ম্যাচ তারা জিতবে। মাঠে দেখেছি তারা জয়ের জন্য জানবাজি রেখে খেলেছে। জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে। তারা ভালো ফুটবল নৈপুণ্য দেখিয়েছে।’

’প্রথম ম্যাচে তারা ক্লান্ত ছিল। ওই ম্যাচে বাংলাদেশকে ঠিকমতো বুঝে উঠতে পারেনি। এক ম্যাচ খেলেই তারা বাংলাদেশকে মেপে ফেলেছে। আমাদের খেলোয়াড়দের মধ্যে গা-ছাড়া ভাব থাকলেও জিততে মরিয়া ছিল আফ্রিকার দেশটির। ওদের জয়ের ক্ষুধা ছিল, আমাদের খেলোয়াড়দের সেটা ছিল না’-বলে হতাশ কণ্ঠে শেষ করেন আসলাম।

আরআই/এমএমআর/এমএস