অর্থনীতি

ইউনিলিভারের কিনে নেয়া জিএসকের এমডি মিনহাজ

ইউনিলিভারের কিনে নেয়া গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন (জিএসকে) বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) দায়িত্ব পেয়েছেন ইউনিলিভার বাংলাদেশ লিমিটেডের গ্রাহক উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক খান সালাউদ্দিন মোহাম্মদ মিনহাজ। সেই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পুনরায় পেয়েছেন মাসুদ খান।

কোম্পানিটির ২৯৬তম বোর্ড সভায় এ নিয়োগ দেয়া হয়। যা ১ জুলাই থেকে কার্যকর হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

১৯৭৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন বাংলাদেশে কনজিউমার হেলথকেয়ার ও ফার্মাসিটিক্যালস দুই ইউনিটের মাধ্যমে বেশ দাপটের সঙ্গে বাংলাদেশে ব্যবসা করে আসছিল। কিন্তু ফার্মাসিউটিক্যালস ইউনিটের লোকসান দেখিয়ে ২০১৮ সালে ওষুধ উৎপাদন কারখানা এবং ফার্মাসিউটিক্যাল বিজনেস ইউনিটের সব কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়।

এরপরেই ইউনিলিভারের কাছে শেয়ার বিক্রির ঘোষণা আসে। এ সংক্রান্ত প্রথম বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয় ২০১৮ সালের ৩ ডিসেম্বর। সে সময় ইউনিলিভার ও জিএসকের পক্ষ থেকে দুটি পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ভারত, বাংলাদেশ ও এশিয়ার অন্য ২০টি দেশের বাজারে জিএসকের চলমান কনজিউমার হেলথ ড্রিংকস ব্যবসা কিনে নিচ্ছে অ্যাংলো-ডাচ জায়ান্ট ইউনিলিভার।

প্রথমে সেট ফার্স্টের কাছে থাকা জিএসকে বাংলাদেশের সব শেয়ার ইউনিলিভারের মূল কোম্পানি ইউনিলিভার এনভির কাছে বিক্রি করার কথা ছিল। কিন্তু চলতি বছরের ২২ মার্চ এ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ইউনিলিভারের মূল কোম্পানির পরিবর্তে এর সাবসিডিয়ারি ইউনিলিভার ওভারসিজ হোল্ডিংস বিভির কাছে সেট ফার্স্টের সব শেয়ার বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়।

এর অংশ হিসেবে গত ২৮ জুন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ব্লক মার্কেটের মাধ্যমে জিএসকের শেয়ার কিনে নেয় ইউনিলিভার। ৯৮ লাখ ৭৫ হাজার ১৪৪টি শেয়ারের প্রতিটি কেনা হয় ২ হাজার ৪৬ টাকা ৩০ পয়সা করে। শেয়ার কিনে নেয়ায় দু’দিনের মধ্যে নতুন এমডি নিয়োগ দেয়া হল প্রতিষ্ঠানটিতে

জিএসকের নতুন এমডি মিনহাজ গত প্রায় দুই দশক ধরে খাদ্য, গৃহ ও ব্যক্তিগত পরিচর্যাসহ ভোগ্যপণ্যের নানান খাতে মূল্যবান অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। এর মধ্যে গত ৯ বছর তিনি ‘বিপণন’ এবং ‘গ্রাহক উন্নয়ন কার্যক্রম’- উভয় ক্ষেত্রেই পরিচালনা কমিটির সদস্য হিসেবে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ২০০০ সালে নেসলে বাংলাদেশে যোগদানের মাধ্যমে কর্মজীবন শুরু করেন কে এস এম মিনহাজ। সেখানে সাপ্লাই চেইন এবং ব্র্যান্ড ব্যবস্থাপনা বিভাগে কাজ করার অভিজ্ঞতা নিয়ে তিনি ইউনিলিভার বাংলাদেশ লিমিটেডে যোগ দেন ২০০৬ সালে।

এর পাঁচ বছরের মাথায় পদোন্নতি পেয়ে দেশের কনিষ্ঠতম বিপণন পরিচালকদের তালিকায় নাম লেখান মিনহাজ। একটি উজ্জীবিত এবং কর্মদক্ষ বিপণন দলকে নেতৃত্ব প্রদানের মাধ্যমে ডিটারজেন্ট, ত্বক এবং চুলের যত্নে ব্যবহৃত পণ্যসামগ্রীর সরবরাহে দারুণ উন্নতি ঘটান।

পণ্য সরবরাহের প্রতিযোগিতায় কোম্পানিকে এগিয়ে রাখার পাশাপাশি লাভজনক প্রবৃদ্ধি অর্জনেও তার অবদান অনস্বীকার্য। এছাড়া পিওরইট, নর এবং ভ্যাসলিনের মতো শক্তিশালী ব্র্যান্ড বাজারে আনার মাধ্যমে পানি, মসলাদার সুস্বাদু খাবার এবং হাত ও শরীরের যত্নে ব্যবহৃত পণ্যের ভবিষ্যৎ বাজারের বীজ বপনের ক্ষেত্রেও তার নেতৃত্বগুণের প্রমাণ পাওয়া যায়।

২০১৪ সালে তিনি ইউনিলিভার বাংলাদেশের ‘বিক্রয় ও গ্রাহক উন্নয়ন’ বিভাগের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। গত ৬ বছর ধরে অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে তিনি সেখানে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এছাড়া দক্ষতার সঙ্গে পরিচালনার মাধ্যমে বিভাগটিকে ভবিষ্যৎ উপযোগী করে তোলা, পণ্য বিতরণের ভিত্তি সম্প্রসারণ এবং ‘গো-টু-মার্কেট’ প্রতিভার চমৎকার সমন্বয় ঘটিয়েছেন তিনি।

এমএএস/এফআর/এমকেএইচ