ভ্রমণ

ভ্রমণকালে মাথা ঘোরা ও বমিভাব ঠেকাবেন যেভাবে

ভ্রমণকালে অনেকেরই মাথা ঘোরা ও বমিভাব হয়ে থাকে। কেউ কেউ তো বাসে, ট্রেনে, প্রাইভেট কারসহ যেকোনো যানবাহনে ওঠার আগে বমির ওষুধ খেয়ে থাকেন। যাতে ভ্রমণকালে বমি ঠেকানো যায়! তবে তাতেও কাজ হয় না।

Advertisement

সাধারণত ভ্রমণকালে অনেকেরই মোশন সিকনেস হয়ে থাকে। গতি ও জড়তার ফলে মস্তিষ্কে সমন্বয়হীনতার বাহনগুলোতে বমির সমস্যা হতে পারে। অন্তঃকর্ণ আমাদের শরীরের গতি ও জড়তার ভারসাম্য রক্ষা করে।

যখন কেউ গাড়িতে চড়েন; তখন অন্তঃকর্ণ মস্তিষ্কে খবর পাঠায় যে সে গতিশীল। তবে চোখ বলে ভিন্ন কথা। কারণ তার সামনের বা পাশের মানুষগুলো কিংবা গাড়ির সিটগুলো থাকে স্থির। চোখ আর অন্তঃকর্ণের এই সমন্বয়হীনতার ফলে তৈরি হয় মোশন সিকনেস।

এ ছাড়াও অ্যাসিডিটির সমস্যা থাকলে বমি হতে পারে। এমনকি অসুস্থতার কারণেও বমি হতে পারে কিংবা গাড়ির ধোঁয়া কিংবা কটূ গন্ধের কারণেও বমি হতে পারে। জেনে নিন ভ্রমণকালে বমি ঠেকাতে যা করবেন-

Advertisement

> সবসময় চেষ্টা করুন গাড়ির সামনের দিকে বসার। কারণ পেছনে বসলে বেশি গতিশীল মনে হয়।

> শুধু সামনেই নয় বরং জানালার পাশে বসুন এবং জানালা খোলা রাখুন। জানালা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে থাকলে মোশন সিকনেস হবে না।

> যেদিকে গাড়ি চলছে তার উল্টো দিকে বসবেন না, এতে বমিভাব বেশি হয়।

> আপনার আশেপাশের সিটের কেউ যদি বমি করেন; তাহলে সেদিকে লক্ষ্য করবেন না। কারণ অন্য যাত্রীর বমি করা দেখলে যদি বমি হতে পারে।

Advertisement

> আগে থেকেই ভাববেন না যে, গাড়িতে উঠলেই বমি হবে। নিজেকে শান্ত রাখুন, দীর্ঘ শ্বাস নেওয়ার চেষ্টা করুন। অন্যদিকে মনোযোগ রাখুন যেমন- গান শুনতে পারেন কিংবা ফোনে নিজেকে ব্যস্ত রাখুন।

> চোখ বন্ধ করে রাখলে আরাম পাবেন। ভ্রমণের আগের রাতে ভালোভাবে ঘুমানোর চেষ্টা করুন। অনেক সময় ঠিকভাবে ঘুম না হওয়ার কারণে মাথাব্যথার কারণেও বমি হতে পারে।

> ভ্রমণের আগে হালকা কিছু খেয়ে বাসে উঠুন। কখনই খালি পেটে ভ্রমণ করবেন না। ভ্রমণের আগে ভারী কিছু খাবেন না। যাত্রাপথে যত কম খাবেন; ততই বমি হওয়ার আশঙ্কা কমবে।

> আদা বমি রোধের জন্য অনেক উপকারী। সেইসঙ্গে আদা হজমে সাহায্য করে। আদা কুঁচি চিবুতে পারেন বমি ভাব দূর হয়ে যাবে।

> এ ছাড়াও বমি ঠেকাতে দারুচিনি মুখে রাখতে পারেন।

> টক জাতীয় ফল খেলেও বমি ভাব দূর হয়। এছাড়া লেবু পাতার গন্ধ, কমলা লেবুর গন্ধেও বমি ভাব দূর হয়।

> যখনই বমি ভাব হবে মুখে এক টুকরা লবঙ্গ দিন। এতে বমি ভাব চলে যাবে সাথে মুখের দুর্গন্ধ ও চলে যাবে।

> চুইংগাম খেতে পারেন। এতে মুখ এবং মন ব্যস্ত থাকবে এবং বমি ভাব হবে না।

জেএমএস/জিকেএস