EN
  1. Home/
  2. দেশজুড়ে

চার্জ গঠনের তিন কার্যদিবসেই ধর্ষণের রায়

জেলা প্রতিনিধি | কুষ্টিয়া | প্রকাশিত: ০৪:২৫ পিএম, ১৭ নভেম্বর ২০২০

চার্জ গঠনের তিন কার্যদিবসেই কুষ্টিয়ায় আবাসিক মহিলা মাদরাসায় ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে মাদরাসা সুপার আব্দুল কাদেরকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) দুপুরে কুষ্টিয়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মুন্সী মো. মশিয়ার রহমান জনাকীর্ণ আদালতে যুগান্তকারী এ রায় দেন।

এ সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আব্দুল কাদের আদালতে উপস্থিত ছিলেন। চার্জশিট দাখিলের মাত্র তিন কার্যদিবসের মধ্যেই আলোচিত এই ধর্ষণ মামলার রায় দিলেন আদালত।

দণ্ডপ্রাপ্ত আব্দুল কাদের কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার স্বরূপদহ (চকপাড়া) গ্রামের সিরাজুল উলুম মরিয়ম নেসা মহিলা মাদরাসার সুপার।

আমৃত্যু কারাদণ্ডের পাশাপাশি আদালত আব্দুল কাদেরকে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। একই সঙ্গে জরিমানার টাকা আসামির স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি বিক্রি করে ধর্ষণের শিকার ওই মাদরাসাছাত্রীকে দেয়ার জন্য জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ৪ অক্টোবর ভোর ৫টায় মাদরাসার নাহাবিলা (অষ্টম) শ্রেণির আবাসিক এক ছাত্রীকে নিজের অফিস কক্ষে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন মাদরাসার সুপার আব্দুল কাদের। একই দিন রাত ৮টার দিকে দ্বিতীয় দফায় ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন তিনি। বিষয়টি জানাজানি হলে পরদিন ৫ অক্টোবর ধর্ষণের শিকার ওই মাদরাসাছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মিরপুর থানায় মামলা করেন।

মামলা হওয়ার ৯ দিনের মাথায় ১৩ অক্টোবর তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। আসামি আব্দুল কাদের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

আব্দুল কাদেরের বিরুদ্ধে গত ১২ নভেম্বর আদালত অভিযোগ (চার্জ) গঠন করেন। তবে এ সময় আসামি আদালতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। ১৩ জন সাক্ষীর দেয়া সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে অভিযোগ গঠনের মাত্র তিন কার্যদিবসে আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় মঙ্গলবার আদালত আসামির উপস্থিতিতে এ রায় দেন।

কুষ্টিয়া আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী বলেন, অভিযোগ গঠনের মাত্র তিন কার্যদিবসে ধর্ষণের এ রায় কুষ্টিয়া তথা বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি যুগান্তকারী ঘটনা। এটি ধর্ষণ প্রতিরোধের বিরুদ্ধে একটি অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

আল-মামুন সাগর/আরএআর/এমএস