যেভাবে তাজা মাছ চিনবেন ও দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করবেন

প্রকাশিত: ০৬:৪৬ পিএম, ০৫ এপ্রিল ২০১৯, আপডেট: ০৬:৫৬ পিএম, ০৫ এপ্রিল ২০১৯

আমরা ‘মাছে ভাতে বাঙালি’ হিসেবে বিশ্বব্যাপী পরিচিত। স্বাদ ও সুবাসের কারণে মাছ প্রায় সবার কাছেই প্রিয়। তবে মাছ তাজা-টাটকা হলেই কেবল আসল স্বাদ পাওয়া যায়। তাই তাজা মাছ চেনা ও সংরক্ষণের উপায় জেনে নিন।

বরফে রাখা তাজা মাছ চেনার উপায়: মাছের নিচে যথেষ্ট পরিমাণ বরফ রয়েছে কিনা, ভালো করে দেখে নিন। বরফ কম হলে অনেক সময় দেখে বোঝা না গেলেও মাছ নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

বরফে রাখা তাজা মাছ চেনার উপায়: মাছের নিচে যথেষ্ট পরিমাণ বরফ রয়েছে কিনা, ভালো করে দেখে নিন। বরফ কম হলে অনেক সময় দেখে বোঝা না গেলেও মাছ নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

মাছের গন্ধ: তাজা মাছে কিন্তু কখনো গন্ধ থাকেনা, তবে যদি তা সাগর বা পুকুরের পানির গন্ধ হয়, তাহলে অবশ্য আলাদা কথা।

মাছের গন্ধ: তাজা মাছে কিন্তু কখনো গন্ধ থাকেনা, তবে যদি তা সাগর বা পুকুরের পানির গন্ধ হয়, তাহলে অবশ্য আলাদা কথা।

মাছের চেহারা: লাল ফুলকা, স্বচ্ছ চোখ আর মাছের গায়ের চকচকে আঁশ দেখে মাছ কিনুন। কারণ তাজা মাছের চেহারা এমনই হয়।

মাছের চেহারা: লাল ফুলকা, স্বচ্ছ চোখ আর মাছের গায়ের চকচকে আঁশ দেখে মাছ কিনুন। কারণ তাজা মাছের চেহারা এমনই হয়।

মাছটি একটু টিপে দেখুন: মাছ বিক্রেতার অনুমতি নিয়ে মাছের গায়ে আঙুল দিয়ে একটু টিপে দেখতে পারেন। যদি এতে একটু গর্তের মতো হয়ে থাকে তাহলে বুঝতে হবে মাছটি তেমন তাজা নয়।

মাছটি একটু টিপে দেখুন: মাছ বিক্রেতার অনুমতি নিয়ে মাছের গায়ে আঙুল দিয়ে একটু টিপে দেখতে পারেন। যদি এতে একটু গর্তের মতো হয়ে থাকে তাহলে বুঝতে হবে মাছটি তেমন তাজা নয়।

মাছ বহন করবেন যেভাবে: দোকানদার যদি ‘ইনসিউলেটিং পেপার’ দিয়ে মাছ প্যাকেট করে দেয় তাহলে তো ভালোই। তবে নিজেও বাড়ি থেকে একটি ‘কুল ব্যাগ’ নিয়ে যেতে পারেন, তাহলে আপনার সাধের কেনা মাছটি বাড়ি পৌঁছা পর্যন্ত তাজা থাকা নিয়ে নিশ্চিত থাকতে পারবেন।

মাছ বহন করবেন যেভাবে: দোকানদার যদি ‘ইনসিউলেটিং পেপার’ দিয়ে মাছ প্যাকেট করে দেয় তাহলে তো ভালোই। তবে নিজেও বাড়ি থেকে একটি ‘কুল ব্যাগ’ নিয়ে যেতে পারেন, তাহলে আপনার সাধের কেনা মাছটি বাড়ি পৌঁছা পর্যন্ত তাজা থাকা নিয়ে নিশ্চিত থাকতে পারবেন।

ফ্রিজে রেখে দিন: তাজা মাছ ভাজি বা রান্না করে খাওয়ার পর একটু বেচে গেলে তা ভালো করে ঢেকে ফ্রিজে রেখে দিন, তাহলে পরেরদিনও কিন্তু খেতে একই রকম স্বাদ লাগবে।

ফ্রিজে রেখে দিন: তাজা মাছ ভাজি বা রান্না করে খাওয়ার পর একটু বেচে গেলে তা ভালো করে ঢেকে ফ্রিজে রেখে দিন, তাহলে পরেরদিনও কিন্তু খেতে একই রকম স্বাদ লাগবে।

বরফ দিয়ে রাখুন: টাটকা মাছ কেনার পর যদি কোনো কারণে রান্না করা না হয় তাহলে এমন ঠান্ডায় রাখতে হবে, যেন ফ্রিজের তাপমাত্রা নরমাল ফ্রিজের চেয়ে ঠান্ডা থাকে। অর্থাৎ ফ্রিজেই মাছের গায়ে বাড়তি বরফ দিয়ে রাখুন। এভাবে মাছ দুই দিন তাজা থাকবে।

বরফ দিয়ে রাখুন: টাটকা মাছ কেনার পর যদি কোনো কারণে রান্না করা না হয় তাহলে এমন ঠান্ডায় রাখতে হবে, যেন ফ্রিজের তাপমাত্রা নরমাল ফ্রিজের চেয়ে ঠান্ডা থাকে। অর্থাৎ ফ্রিজেই মাছের গায়ে বাড়তি বরফ দিয়ে রাখুন। এভাবে মাছ দুই দিন তাজা থাকবে।

বেশিদিন মাছ তাজা রাখতে চাইলে: ডিপফ্রিজে রাখার জন্য বিশেষ ব্যাগে ভরে ডিপফ্রিজে রেখে দিন। তবে মনে রাখবেন যে ডিপফ্রিজে রাখার আগে অবশ্যই মাছের আঁশ, ফুলকা ইত্যাদি পরিষ্কার করে নেবেন। এতে মাছ জীবাণুমুক্ত থাকবে। মাছ ভালোভাবে ফ্রিজ করলে মাছের স্বাদ কয়েক সপ্তাহ পরেও একই রকম থাকে।

বেশিদিন মাছ তাজা রাখতে চাইলে: ডিপফ্রিজে রাখার জন্য বিশেষ ব্যাগে ভরে ডিপফ্রিজে রেখে দিন। তবে মনে রাখবেন যে ডিপফ্রিজে রাখার আগে অবশ্যই মাছের আঁশ, ফুলকা ইত্যাদি পরিষ্কার করে নেবেন। এতে মাছ জীবাণুমুক্ত থাকবে। মাছ ভালোভাবে ফ্রিজ করলে মাছের স্বাদ কয়েক সপ্তাহ পরেও একই রকম থাকে।

ফ্রোজেন মাছ গরম পানিতে ভেজাবেন না: তাড়াহুড়ো করতে যেয়ে ডিপফ্রিজে রাখা মাছ কখনো গরম পানিতে ভেজাবেন না, যা অনেকেই করে থাকেন। এতে মাছের রসালোভাব কমে গিয়ে মাছকে শুষ্ক করে ফেলে এবং এতে মাছের আসল স্বাদ কমে যায়। তাই রান্নার কয়েক ঘণ্টা আগেই ডিপফ্রিজ থেকে বের করে বাইরে রেখে দিন, নিজে থেকেই মাছ গলে যাবে। তখন রান্না, ভাজি যাই করুন না কেন, মাছের পুরো স্বাদই পাবেন।

ফ্রোজেন মাছ গরম পানিতে ভেজাবেন না: তাড়াহুড়ো করতে যেয়ে ডিপফ্রিজে রাখা মাছ কখনো গরম পানিতে ভেজাবেন না, যা অনেকেই করে থাকেন। এতে মাছের রসালোভাব কমে গিয়ে মাছকে শুষ্ক করে ফেলে এবং এতে মাছের আসল স্বাদ কমে যায়। তাই রান্নার কয়েক ঘণ্টা আগেই ডিপফ্রিজ থেকে বের করে বাইরে রেখে দিন, নিজে থেকেই মাছ গলে যাবে। তখন রান্না, ভাজি যাই করুন না কেন, মাছের পুরো স্বাদই পাবেন।

আরও