কাঁঠালবাড়ী রুটে ফেরি চলে তো চলে না

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মাদারীপুর
প্রকাশিত: ০৮:৩৭ এএম, ১২ আগস্ট ২০১৮

নাব্যতা সঙ্কটের কারণে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী রুটে ফেরি চলাচল চরম মাত্রায় ব্যাহত হচ্ছে। মাঝে মধ্যেই এ রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে। আর এ বন্ধের সময়টাতে বিকল্প রুট হিসেবে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাট ব্যাবহারের জন্য বলা হচ্ছে। কিন্তু ঈদ সামনে রেখে এভাবে ফেরি বন্ধ হয়ে যাওয়া এবং দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ার ওপর বাড়তি চাপ পড়ায় সেই দুর্ভোগ এসে পড়ছে যাত্রীদের ওপর।

গতকাল শনিবার বিকেল থেকেও নাব্যতা সঙ্কটের কারণে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী রুটে সকল ফেরি চলাচল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় কর্তৃপক্ষ। পরে ৬ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর রাত সাড়ে ১১টায় আবার সীমিত আকারে ফেরি চালু হয়।

এর কয়েকদিন আগে নাব্যতা সঙ্কটের কারণে চ্যানেল অতিক্রম করতে না পারায় তিনটি রোরো ফেরি ও ২টি ডাম্প ফেরি বন্ধ রাখা হয়। এরপরই অপর একটি ফেরির তলদেশ ডুবোচরে ধাক্কা লাগলে ফেরিটি নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে তলা ফেটে যায়।

ক্রমাগত নাব্যতা সঙ্কট এমন প্রকট আকার ধারণ করায় শনিবার বিকেল ৫টা থেকে কর্তৃপক্ষ সকল ফেরি চলাচল বন্ধ রাখে। এ সময় বিকল্প রুট হিসেবে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে পণ্যবাহী পরিবহনগুলোকে।

বিআইডব্লিউটিসি'র কাঁঠালবাড়ী ঘাট সূত্র জানায়, পদ্মায় স্রোতের সঙ্গে প্রচুর পরিমাণে পলি এসে চ্যানেল মুখে জমা হয়ে নাব্যতা সঙ্কট দেখা দিয়েছে। ফলে চ্যানেল অতিক্রম করতে ফেরিগুলোর তলদেশ ডুবোচরে ধাক্কা লাগে।

বিআইডব্লিউটিসি'র কাঁঠালবাড়ী ফেরি ঘাটের ব্যবস্থাপক আব্দুস সালাম মিয়া বলেন, নাব্যতা সঙ্কটের কারণে গত কয়েকদিন ধরেই ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছিল। এ বিকল্প রুটে ফেরি চলাচলের জন্য পানির গভীরতা প্রয়োজন কমপক্ষে ৬ থেকে ৭ ফুট। সেখানে বর্তমানে গভীরতা মাত্র ৪ থেকে ৫ ফুট। চ্যানেল অতিক্রম করতে ফোরিগুলোকে ডুবোচরে ধাক্কা খেতে হচ্ছে।

নাসিরুল হক/এফএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :