লাশের সঙ্গে পরিবারের স্বপ্ন মাটি চাপা পড়ল

উপজেলা প্রতিনিধি ঈশ্বরদী (পাবনা)
প্রকাশিত: ০১:৪১ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পরিবারে স্বচ্ছলতা আনতে বিদেশে গিয়ে শেষ পর্যন্ত লাশ হয়ে ফিরতে হলো হাসানকে। প্রবাসী একমাত্র ছেলের মরদেহ দেখে বিলাপ করে তার বাবা ছান্দু সরদার বলেন, লাশের সঙ্গে আমার পরিবারের সব স্বপ্ন মাটি চাপা পড়ল। এ সময় মৃত হাসানের স্বজনদের কান্নায় পরিবেশ ভারী হয়ে উঠে।

নিহত প্রবাসী হাসানের মামা আমিরুল ইসলাম জানান, হাসান তার বাবা-মার একমাত্র সন্তান। পরিবারের সুখ স্বাচ্ছন্দের জন্য বেশ কয়েক বছর আগে সিঙ্গাপুর যায় হাসান। সেখানে পাইপ লাইনের শ্রমিক হিসেবে কাজ করত। গত বুধবার সকালে কাজ করার সময় পাইপ লাইনের মাটি চাপা পড়ে মারা যান।

শনিবার ভোরে যখন সিঙ্গাপুর থেকে হাসান আলী সরদারের (৩২) লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স নিজ বাড়ি পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের দীঘা গ্রামে পৌঁছায় তখন চারিদিকে শোকের ছায়া নেমে আসে। কফিন থেকে প্রবাসী ছেলের মরদেহ যখন বের করা হয় তখন বারবার মূর্ছা যাচ্ছিলেন বাবা ছান্দু সরদার, মা হাবিয়া বেগম। ওই দিন সকাল ১০টায় দীঘা গ্রামে হাসানের মরদেহের দাফন করা হয়।

সাহাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মতলেবুর রহমান মিনহাজ ফকির জানান, হাসান ছিল তাদের পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী। তার অকাল মৃত্যুতে গোটা পরিবার এখন অনেকটা অসহায় হয়ে পড়েছে।

আলাউদ্দিন আহমেদ/আরএ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :