৫ম উপজেলা নির্বাচনে কোনো অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৮:১২ পিএম, ১৪ জুন ২০১৯

নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম বলেছেন, পঞ্চম উপজেলা নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ করতে নির্বাচন কমিশন বদ্ধপরিকর। কোনো ধরনের অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না। এ জন্য প্রশাসন, নির্বাচন কর্মকর্তাসহ সকলকে সজাগ থাকতে হবে। কোনো ধরনের ইচ্ছাকৃত ত্রুটি-বিচ্যুতি দ্বারা নির্বাচন যেন প্রশ্নবিদ্ধ যেন না হয়। এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

তিনি বলেন, আপনারা যারা গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি, আচরণবিধিমালা সুষ্ঠুভাবে অনুসরণ করার চেষ্টা করবেন। আচরণবিধিমালা লঙ্ঘন না করে বরং নিজেদের সম্মান নিজেরা অক্ষুণ্ন রাখার চেষ্টা করুন। মনে রাখবেন আপনারা আপনাদের সম্মান রাখতে পারলেই ইসি কেবলমাত্র আপনাদের সম্মান রাখার চেষ্টা করবে। আমরা সবসময়ই আপনাদের সম্মান রক্ষা করতে চাই।

কবিতা খানম বলেন, আমরা আপনাদেরকে আরও সতর্ক করে বলতে চাই, আপনারা আচরণবিধি লঙ্ঘন করে নির্বাচনী এলাকায় এসে কোনো প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাবেন না।

পঞ্চম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে শুক্রবার দুপুরে সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক প্রেসব্রিফিং ও মতবিনিময় অনুষ্ঠানে নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম এসব কথা বলেন।

কামারখন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকারী প্রিসাইডিং অফিসারদের উদ্দেশে তিনি বলেন, মনে রাখবেন আপনারা নিজেরাই ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত ও ক্ষমতাপ্রাপ্ত কমান্ডিং অফিসার। ভোটকেন্দ্রে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা ও আচরণবিধি লঙ্ঘন ঘটলে, আপনাদেরই তা শক্তভাবে মোকাবেলা করতে হবে। এমনকি যেকোনো ধরনের গুরত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত আপনাকেই নিতে হবে। প্রয়োজনে আপনারা উপজেলা রিটার্নিং অফিসার, জেলা নির্বাচন অফিসার বা জেলা রিটার্নিং অফিসার বা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতামত গ্রহণ করতে পারবেন। মনে রাখবেন আপনাদের নিরাপত্তায় সহযোগিতায় সার্বক্ষণিক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ থাকবেন।

তিনি এ সময় দায়িত্বপ্রাপ্তদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, পূর্ণাঙ্গ চাকরিজীবনে হয়তো আপনাদের যথেষ্ট সুনাম আছে। একদিনের চাকরি করতে এসে, সারা জীবনের সুনাম নষ্ট বা সাময়িকভাবে বরখাস্ত হবেন না।

সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসক কামরুন নাহার সিদ্দীকার সভাপতিত্বে এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন- অতিরিক্ত সচিব মোখলেছুর রহমান, যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহম্মেদ, পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী, জেলা নির্বাচন অফিসার আবুল হোসেন ও উপজেলা রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্বে কামারখন্দ উপজেলা নির্বাহী জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

আগামী ১৮ জুন কামারখন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে সাতজন চেয়ারম্যান, তিনজন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। শুধুমাত্র একজন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সম্পা রহমান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। উপজেলার চারটি ইউনিয়নের ৪৯টি ভোটকেন্দ্রে এক লাখ ছয় হাজার ভোটার ভোট প্রদান করবেন।

ইউসুফ দেওয়ান রাজু/বিএ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :