সাগরে নিখোঁজের ২০ ঘণ্টা পর রুয়েট শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ১২:৫৫ পিএম, ১১ আগস্ট ২০১৯

কক্সবাজারে সমুদ্র সৈকতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) শিক্ষার্থী আরিফুল ইসলামের (২১) মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। নিখোঁজের ২০ ঘণ্টা পর সৈকতের নাজিরারটেক পয়েন্ট থেকে রোববার সকাল ৮টার দিকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহতের বড় ভাই জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক আলিফউজ্জামান শুভ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সকালে নাজিরারটেক সৈকত এলাকায় একটি মরদেহ ভাসতে দেখে খবর দেয় স্থানীয় জেলেরা। ঘটনাস্থলে গিয়ে এটি আরিফের মরদেহ শনাক্ত করে সদর থানা পুলিশকে জানানো হয়। পুলিশ গিয়ে ১০টার দিকে মরদেহ সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা দিলে আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাকে সাড়ে ১১টার দিকে বাসায় নিয়ে আসা হয়েছে।

আরিফুল ইসলাম কক্সবাজার শহরের রুমালিয়ারছরা পিটি স্কুল এলাকার প্রবাসী জাহাঙ্গীর আলমের মেজ ছেলে ও রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) সিএসই বিভাগের ১৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। তার চাচা নুরুল আজিম কনক জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি।

এর আগে শনিবার দুপুর ১২টার দিকে সৈকতের লাবনী পয়েন্ট থেকে এক বন্ধুসহ চোরাবালিতে আটকে নিখোঁজ হয়েছিলেন আরিফুল। ওইদিন বিকেলে কবিতা চত্বর সৈকত পয়েন্ট থেকে নিখোঁজ অপর শিক্ষার্থীর মরদেহ পাওয়া যায়।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসাইন বলেন, বিচ কর্মীদের মতে ভাটাকালীন নিষিদ্ধ সময়েই
ওই শিক্ষার্থীরা সাগরে গোসল করতে নেমেছিল। এ সময় অসাবধানতাবশত পাঁচজন চোরাবালিতে আটকা পড়ে। তিনজনকে উদ্ধার করা গেলেও আরিফ ও রফিক নিখোঁজ ছিলেন। খবর পেয়ে বিচ কর্মী, পুলিশ ও সংশ্লিষ্টরা নিখোঁজদের উদ্ধারে কাজ করে। বিকেল ৪টার দিকে কবিতা চত্বর বিচ পয়েন্ট থেকে রফিকের মরদেহ উদ্ধার হয়। আর রোববার সকাল ৮টার দিকে নাজিরারটেক সৈকত থেকে আরিফের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে।

সায়ীদ আলমগীর/এমবিআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]