শিশুকে রড দিয়ে পেটালেন আ.লীগ নেতার ছেলে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি টাঙ্গাইল
প্রকাশিত: ০৮:৫৮ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০২০

টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলায় মোবাইল চুরির অপবাদে সাত বছরের এক শিশুকে রড দিয়ে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠালেন স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার ছেলে।

সোমবার (২০ জানুয়ারি) রাতে উপজেলার বানিয়াজান ইউনিয়নের পঞ্চাশী বটতলা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার বিচার দাবিতে বুধবার (২২ জানুয়ারি) বিকেলে পঞ্চাশী বটতলা বাজারে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। এর আগে মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) রাতে ধনবাড়ী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন নির্যাতিত শিশুটির মা।

আহত শিশুটি উপজেলার বানিয়াজান কামারপাড়া গ্রামের এক ব্যক্তির ছেলে এবং স্থানীয় সিরনকাজী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী। বর্তমানে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে শিশুটি।

বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। অভিযুক্ত সেলিম খান (৩৫) বানিয়াজানের পঞ্চাশী ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়াদুদ খানের ছেলে। তিনি স্থানীয় মুদি দোকানি।

এলাকাবাসী জানায়, সোমবার সন্ধ্যায় সেলিমের দোকানে যায় শিশুটি। এ সময় শিশুটিকে পাশের দোকান থেকে চা এনে দিতে বলেন সেলিম। তার কথা অনুযায়ী চা এনে দেয় শিশুটি।

কিছুক্ষণ পর দোকানের বাইরে যান সেলিম। বাইর থেকে এসে সেলিম বলেন আমার মোবাইল খুঁজে পাচ্ছি না। এ কথা বলেই দোকানে থাকা লোহার রড দিয়ে শিশুটিকে পেটাতে শুরু করেন। শিশুটির চিৎকারে আশপাশের দোকানদাররা এগিয়ে এলে ক্ষেপে যান সেলিম। এরপর বেধড়ক পিটিয়ে শিশুটিকে আহত করেন তিনি।

কিছুক্ষণ পর শিশুটিকে উদ্ধার করে দোকানে চিকিৎসা দেয়া হয়। অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে ধনবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। গুরুতর অবস্থা দেখে তাকে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়। বর্তমানে শিশুটি মধুপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

এদিকে ঘটনার পর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে আত্মগোপনে চলে যান সেলিম খান। তবে শিশুটিকে মারধর করা ঠিক হয়নি বলে জানিয়েছেন সেলিম খানের বাবা পঞ্চাশী ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়াদুদ খান।

বানিয়াজান ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম তালুকদার ফটিক বলেন, মোবাইল চুরির অপবাদে শিশুটিকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে। এমন ন্যক্কারজনক ঘটনায় আমি তীব্র নিন্দা জানাই এবং সুষ্ঠু বিচার চাই।

ধনবাড়ী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. চাঁন মিয়া বলেন, শিশুটির মা থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযুক্তকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরিফ উর রহমান টগর/এএম/পিআর