সংঘর্ষে লুটের ১৪ গরুর একটি পাওয়া গেল কলেজশিক্ষকের বাড়িতে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ০৯:৩৫ পিএম, ১৬ এপ্রিল ২০২১

পাবনার সাঁথিয়ায় দু’পক্ষের সংঘর্ষের সময় লুট হওয়া একটি গরু উদ্ধার করা হয়েছে উপজেলার জোড়গাছা ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান লাভলুর বাড়ি থেকে।

শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) বিকেলে পুলিশ গরুটি উদ্ধার করে মালিককে বুঝিয়ে দিয়েছে। তবে ওই সংঘর্ষের সময় লুট হওয়া ১৪টি গরুর মধ্যে ১৩টির সন্ধান এখনও পাওয়া যায়নি।

পুলিশ এবং স্থানীয়রা জানায়, পূর্ববিরোধ ও আধিপত্য বিস্তারের জের ধরে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার ধোপাদহ ইউনিয়নের দয়রামপুর গ্রামে গত ২৫ মার্চ দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে একজন নিহত ও অন্তত দশজন আহত হন। ধোপাদহ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভপতি দয়রামপুর গ্রামের বাসিন্দা এনামুল কবির শশি ও তাজমুল হোসেন মেম্বার পক্ষের মধ্যে ওই সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে ছাত্রলীগ নেতা শশি গ্রুপের নাজির উদ্দিন নামের একজন নিহত হন। এরপর নিহত যুবকের পক্ষের লোকজন প্রতিপক্ষের বাড়িতে ব্যাপক হামলা ও লুটপাট চালান। সে সময় তাজমুল গ্রুপের লোকজনের ১৪টি গরু লুট হয়।

সেই লুটপাটের ১৪টি গরুর মধ্যে তিনটি গরু জোড়গাছা ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান লাভলুর বাড়িতে রয়েছে বলে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দুটি গরু সরিয়ে ফেলা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার পুলিশ মোস্তাফিজুর রহমান লাভলুর বাড়ি থেকে একটি গরু উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান লাভলুর বক্তব্য জানতে তার মোবাইল ফোনে রিং তা বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম শুক্রবার রাতে জানান, একটি গরু উদ্ধার করা হয়েছে এবং মালিককে গরু বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান লাভলুর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে তিনি গরুটি কিনেছিলেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জারান ওসি।

আমিন ইসলাম/এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]