সাপাহারে ব্যক্তি উদ্যোগে ৪ কিলোমিটার রাস্তা সংস্কার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ
প্রকাশিত: ০৭:৫৫ পিএম, ২৫ জুন ২০২১

নওগাঁয় সাপাহার উপজেলার আইহাই ইউনিয়নে ব্যক্তিগত উদ্যোগে চার কিলোমিটার গ্রামীণ রাস্তা সংস্কার করছেন স্থানীয় এক ব্যক্তি। ইউনিয়নের আশড়ন্দ বাজার থেকে শুকরইল হয়ে আইহাই গ্রাম পর্যন্ত কাঁচা রাস্তায় মাটি ভরাট, ইটের খোয়া ও বালু দিয়ে চলাচলের উপযোগী করছেন তিনি। রাস্তাটি চলাচলের উপযোগী হলে ওই এলাকার ৫-৬টি গ্রামের মানুষের নিত্যপণ্য বাজারজাত করতে সুবিধা হবে।

গত বুধবার থেকে রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। এ কাজ করতে আরও তিন দিন সময় লাগবে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার আইহাই ইউনিয়নে প্রধান ফসল ধান ও আম। এ ইউনিয়নের আইহাই, আশড়ন্দ, শুকরইল, ছাতাহার ও মধুইলসহ ৫-৬টি গ্রামের মানুষ এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। আমের মৌসুমে মাটির ওই রাস্তা দিয়ে প্রায় ৬০০ বিঘা জমির আম গত কয়েক বছর থেকে বাজারজাত করছেন চাষিরা। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করায় রাস্তাটি ভেঙে এবং গর্ত তৈরি হয়ে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

এ অবস্থায় রাস্তাটি সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছেন জিয়াউজ্জামান টিটু মাষ্টার। তিনি আইহাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। গত বুধবার থেকে ২০-২৫ জন শ্রমিক এবং শুকরইল গ্রামের সেচ্ছাসেবী সংগঠন তরুণ দলের প্রায় অর্ধশত সদস্যকে নিয়ে রাস্তা থেকে কাদা সরিয়ে সংস্কার করছেন।

এ বিষয়ে আশড়ন্দ গ্রামের আরিফ হোসেন বলেন, ‘খরায় ধুলা আর বর্ষায় হাঁটু সমান কাদা। সামান্য বৃষ্টিতে কাদা হয়ে যায়। বর্তমানে আমের মৌসুমে আম চাষিরা এ হাঁটু সমান কাদার মধ্য দিয়ে ভ্যান ও অন্য যান কষ্ট করে নিয়ে যাচ্ছেন। দীর্ঘদিন থেকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে বলা হলেও বার বার শুধু আশ্বাসের বাণী শোনায়। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয় না।’

এ বিষয়ে জিয়াউজ্জামান টিটু মাস্টার বলেন, ‘আইহাই ইউনিয়নের অসহায়, দরিদ্র মানুষের পাশে সুখে-দুঃখে ছিলাম, ভবিষ্যতেও থাকব। এই ইউনিয়নের সমস্যাগুলো আমি চিহ্নিত করে সামর্থ্য অনুযায়ী সমাধানের চেষ্টা করে যাচ্ছি। আর কয়েকদিনের মধ্যে রাস্তাটি চলাচলের উপযোগী হবে। খাদ্যমন্ত্রী ও নওগাঁ-১ আসনের সংসদ সদস্য সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপির নিকট আবেদন, এলাকাবাসীর চলাচলের সুবিধার জন্য রাস্তাটি দ্রুত পাকা করে দিন।’

আইহাই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হামিদুর রহমান বলেন, ‘ওই কাঁচা রাস্তাটির কারণে এলাকাবাসীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। তবে বরাদ্দ না থাকায় রাস্তাটির জন্য কিছুই করা সম্ভব হচ্ছে না।’

আব্বাস আলী/এমএইচআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]