জেলা আ. লীগের প্রচার সম্পাদকের বিরুদ্ধে সেক্রেটারির মামলা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০৮:৫৯ এএম, ০২ আগস্ট ২০২১
সৈয়দ নজরুল ইসলাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকারের বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ নজরুল ইসলামকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত শনিবার (৩১ জুলাই) দুপুরে জেলা শহরের মুন্সেফপাড়ায় এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

রোববার (১ আগস্ট) রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম জাগো নিউজকে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ‘আল মামুন সরকারের বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় শনিবার রাতে তিনি নিজে বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় সৈয়দ নজরুল ইসলামের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামি করা হয়। মামলাটি এফআইআর (এজাহারভুক্ত) করা হয়েছে।’

অগ্নিকাণ্ডের পর বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘গত ২৮ মার্চ হেফাজতের হামলায় আমার বাসা ধ্বংসযজ্ঞে পরিণত হয়। এর এক মাস পর বাসার সংস্কার কাজ শুরু করি। বাসায় আসবাপত্র কেনা হয়েছে। গ্যাস-বিদ্যুতের নতুন করে সংযোগ না দেয়ায় বাসাটি বন্ধ রাখা হয়।’

তিনি সেসময় বলেন, ‘জনৈক নজরুল ইসলাম গত এক মাস যাবৎ ধারাবাহিকভাবে আমার বিরুদ্ধে কুৎসা রটনা করছেন। গত পরশু আমার শ্বশুরের বাসা সম্পর্কে আপত্তিকর কথা বলেছেন। এর পরদিন বাসার সামনে এক সন্ত্রাসী প্রকৃতির ব্যক্তি বিভিন্ন ধরনের উস্কানিমূলক কথাবার্তা বলেছেন। গতকাল (শুক্রবার) সে (নজরুল ইসলাম) ফেসবুকে এই বাসা সম্পর্কে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এরপর আজকেই (শনিবার) এই ঘটনা ঘটেছে। কোনো সন্দেহ নেই আমাকে যারা অপছন্দ করেন বা রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী আছেন, ধারণা করছি তাদের দ্বারাই এটা হয়ে থাকতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার বাড়ির পেছন দিক থেকে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। গত এক বছর যাবৎ এই বাসায় কোনো রান্না-বান্না হয় না। ঘটনাটি পরিকল্পিত।’

গত শনিবার অভিযোগের প্রেক্ষিতে জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ নজরুল ইসলামের বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি কি জঙ্গিবাদী? আমি কি কারো বাড়িতে আগুন লাগাতে পারি? আমার ফেসবুকে একাধিকবার জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে পোস্ট দিয়েছি। অগ্নিসংযোগের মতো নেক্কারজনক কাজ যারা করেছে, আমি তাদের প্রতি চরম ঘৃণা জানাই এবং সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে তাদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।’

উল্লেখ্য, এর আগে গত ২৮ মার্চ আল মামুন সরকারের বাসভবনে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেন হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থকরা। এরপর থেকেই আল মামুন সরকার ও তার পরিবরের সদস্যরা অন্যত্র থাকছেন। বর্তমানে বাড়িটির সংস্কার কাজ চলছিল।

আবুল হাসনাত মো. রাফি/ইএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]